kalerkantho

সোমবার । ২০ জানুয়ারি ২০২০। ৬ মাঘ ১৪২৬। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

রংপুরে স্ত্রী ও দুই সন্তানের প্রাণ নিলেন রাজ্জাক

শ্যামনগর কেরানীগঞ্জে আরো দুই স্ত্রীকে হত্যা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



রংপুরে স্ত্রী ও দুই সন্তানের প্রাণ নিলেন রাজ্জাক

পারিবারিক বিবাদের জেদ থেকে রংপুরে স্ত্রীসহ দুই সন্তানকে খুন করে স্বামী নিজেও গলায় ছুরি চালিয়েছেন। আত্মহননে ব্যর্থ ওই ঘাতককে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। এদিকে সাতক্ষীরার শ্যামনগরে স্ত্রীকে হত্যা করে স্বামী ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এ ছাড়া ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের বুড়িগঙ্গা প্রথম সেতুর ওপর থেকে নদীতে ফেলে স্ত্রীকে হত্যা করছেন স্বামী। এ ব্যাপারে প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

রংপুর : রংপুরে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীসহ দুই সন্তানকে হত্যার ঘটনাটি ঘটে গতকাল রবিবার সকালে নগরের বাহার কাছনা এলাকায়। রিকশাচালক আবদুর রাজ্জাক (৩৮) নেশাগ্রস্ত অবস্থায় স্ত্রীকে গলা কেটে এবং দুই শিশুসন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। এ ঘটনায় রাজ্জাককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায়, এক বছর আগে বাহার কাছনা কাকিনা ব্রিজসংলগ্ন  এলাকায় বসবাস শুরু করেন আবদুর রাজ্জাক। গতকাল সকাল ১১টার দিকে প্রতিবেশী এক নারী ওই বাড়িতে গিয়ে ঘরের ভেতর দুই শিশুসন্তানসহ গৃহবধূ রত্নার লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। এ সময় তিনি আব্দুর রাজ্জাকের হাত ও গলায় রক্ত দেখে চিৎকার শুরু করলে অন্যরা ছুটে আসে।

এলাকাবাসী জানায়, সকালে স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়ার একপর্যায়ে ক্ষুব্ধ হয়ে ধারালো ছুরি দিয়ে স্ত্রী তাসনিয়া আক্তার রত্নার (৩৫) গলা কাটেন তিনি। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই রত্নার মৃত্যু হয়। রত্না সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। পরে রাজ্জাক তাঁর তিন বছরের মেয়ে নেহা ও এক বছরের ছেলে নিশাতকে বালিশচাপা দিয়ে হত্যা করেন। এ ঘটনার পর রাজ্জাক তাঁর গলা কেটে নিজেই আত্মহত্যার চেষ্টা চালান। আবদুর রাজ্জাক প্রায়ই নেশাগ্রস্ত হয়ে স্ত্রীকে মারধর করতেন বলে অভিযোগ করে এলাকাবাসী।

এদিকে খবর পেয়ে রংপুর মেট্রোপলিটনের কোতোয়ালি, মাহিগঞ্জ ও হারাগাছ থানার পুলিশ এবং র?্যাব-১৩-এর সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন। পরে ঘটনাস্থল থেকে রিকশাচালক আবদুর রাজ্জাককে গ্রেপ্তার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কোতোয়ালি থানার পুলিশের জোন প্রধান জমির উদ্দিন জানান, দুপুরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখনো হত্যার কারণ জানা যায়নি। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, নেশাগ্রস্ত রিকশাচালক পারিবারিক কলহের জের ধরে এমন ঘটনা ঘটিয়েছেন।

রত্নার ভাই এস এম আব্দুর রশীদ জানান, বোনের স্বামী আবদুর রাজ্জাক মাদকাসক্ত। ছয় মাস আগে অটোরিকশা কেনার জন্য টাকা দাবি করলে তাঁকে ৭০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। এ ছাড়া টাকার জন্য তাঁর বোনকে প্রায়ই মারধর করতেন রাজ্জাক। এই টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে রত্নাসহ দুই শিশুকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় রাজ্জাকের মা-বোন জড়িত থাকতে পারেন।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপপুলিশ কমিশনার (অপরাধ) কাজী মুত্তাকী ইবনু মিনান বলেন, পারিবারিক বিরোধ নিয়ে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীসহ দুই শিশুসন্তানকে হত্যার পর ঘাতক আবদুর রাজ্জাক নিজেও আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

শ্যামনগর (সাতক্ষীরা) : সাতক্ষীরার শ্যামনগরে স্ত্রী সোনা বিবিকে (৩৮) কুপিয়ে হত্যা করে স্বামী মান্নান গাজী (৫০) গাছের সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। গত শনিবার গভীর রাতে উপজেলার মুন্সীগঞ্জ গাজীপাড়া ঈদগাহ মাঠে এ ঘটনা ঘটে। মান্নান গাজী শ্যামনগরের মুন্সীগঞ্জ ইউনিয়নের মুন্সীগঞ্জ গাজীপাড়া গ্রামের মৃত সোহরাব গাজীর ছেলে।

মুন্সীগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মোড়ল বলেন, পারিবারিক কলহের জের ধরে এ নৃশংস হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে।

শ্যামনগর থানার ওসি নাজমুল হুদা বলেন, ভোরে স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশ দুটি উদ্ধার করে সাতক্ষীরা মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যায় ব্যবহৃত একটি কুড়াল ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। হত্যার রহস্য উদ্ঘাটনের চেষ্টা চলছে।

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) : পারিবারিক কলহের জের ধরে গত শনিবার রাতে বুড়িগঙ্গা প্রথম সেতুর (পোস্তগোলা ব্রিজের) ওপর থেকে নদীতে ফেলে এক গৃহবধূকে হত্যা করছেন স্বামী। ওই গৃহবধূর নাম কানিজ ফাতেমা সাম্মু (৩৫)। স্বামী রিপনকে আটক করে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে প্রতক্ষ্যদর্শীরা। সাম্মুর বাড়ি রাজধানীর গেণ্ডারিয়ার ৬০/৬১ মিলব্যারাক কেবি রোড এলাকায়।

জানা যায়, বিয়ের পর থেকে সাম্মু ও রিপনের পারিবারিক কলহ লেগেই থাকত। বিয়ের দীর্ঘ দিন পরও তাঁদের কোনো সন্তান হয়নি। গত শনিবার সন্ধ্যায়ও তাঁদের মধ্যে ঝগড়া হয়। পরে রাত ১০টার দিকে রিপন ঘুরতে বের হওয়ার কথা বলে স্ত্রী সাম্মুকে পোস্তগোলা ব্রিজের ওপর নিয়ে আসেন। একপর্যায়ে সাম্মুকে ব্রিজ থেকে ধাক্কা দিয়ে নদীতে ফেলে দেন রিপন। ঘটনাটি ব্রিজের ওপর থাকা পথচারীদের নজরে এলে তারা রিপনকে আটক করে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ রিপনকে গ্রেপ্তার করে। গতকাল রবিবার সকালে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের হাসনাবাদ মোকামপাড়া এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীর তীরবর্তী স্থানে সাম্মুর লাশ ভেসে ওঠে। এ ঘটনায় সাম্মুর ছোট বোন রিফাত ফাতেমা বাদী হয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা