kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

ঢাকা-কলকাতা রুটে ৭০ বছর পর চালু হচ্ছে জাহাজ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঢাকা-কলকাতা রুটে ৭০ বছর পর চালু হচ্ছে জাহাজ

ব্রিটিশ আমল গেছে, পাকিস্তান শেষ হয়েছে, স্বাধীন বাংলাদেশেরও কেটে গেছে আরো ৪৮ বছর। সব মিলিয়ে দীর্ঘ ৭০ বছর পর আবার শুরু হচ্ছে ঢাকা-কলকাতা রুটে যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল।

ব্রিটিশ আমলে আসাম থেকে ঢাকা-চাঁদপুর-বরিশাল হয়ে কলকাতা রুটে চলত স্টিমার। দেশভাগের পর বন্ধ হয়ে যায় ওই সার্ভিস। মাঝে অনেকবার তা আবার চালুর উদ্যোগ নেওয়া হলেও সফলতা আসেনি। সর্বশেষ গত বছর বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে আবার নৌপথে যাত্রী পরিবহন সার্ভিস চালুর বিষয়ে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষর হয়। এর সুবাদে অন্যান্য প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে অবশেষে আগামী ২৯ মার্চ পরীক্ষামূলকভাবে ঢাকা ও কলকাতা দুদিক থেকেই দুটি যাত্রীবাহী নৌযান যাত্রা শুরু করবে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন সংস্থার (বিআইডাব্লিউটিসি) চেয়ারম্যান প্রণয় কান্তি বিশ্বাস কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘১৯৪৭ সালের দেশভাগের মধ্য দিয়ে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ-ভারতের নৌযাত্রী পরিবহন সার্ভিসটি। অনেক দিন ধরে চেষ্টার পর অবশেষে ২৯ মার্চ আমাদের একটি সরকারি যাত্রীবাহী পরিবহন দিয়েই পরীক্ষামূলকভাবে এ সেবা শুরু করছি। সেদিন কলকাতা থেকেও ভারতীয় একটি যাত্রী পরিবহন ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসবে বলে আমরা জানি। এ জন্য যাত্রীদের ভারতীয় ভিসা থাকতে হবে। পথিমধ্যে সীমান্ত এলাকায় হবে ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া।’

প্রণয় কান্তি বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করেছিলাম বেসরকারি উদ্যোক্তাদের মাধ্যমে এ সার্ভিস চালুর। কিন্তু বেসরকারি উদ্যোক্তারা এখন পর্যন্ত আমাদের আহ্বানে খুব একটা সাড়া দেননি।’

বিআইডাব্লিউটিসি সূত্র জানায়, ২৯ মার্চ ঢাকা থেকে চাঁদপুর-বরিশাল হয়ে সরকারি এমভি মধুমতি জাহাজটি যাবে কলকাতার দিকে। এরই মধ্যে এ জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ওই দিন জাহাজটি ছাড়বে নারায়ণগঞ্জের পাগলা মেরি এন্ডারসন জেটি থেকে। ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ঢাকা-কলকাতা ফ্যামিলি স্যুট (দুজন) ১৫ হাজার টাকা, প্রথম শ্রেণি কেবিন (যাত্রীপ্রতি) পাঁচ হাজার টাকা, ডিলাক্স শ্রেণি (দুজন) ১০ হাজার টাকা, ইকোনমি চেয়ার (যাত্রীপ্রতি) আট হাজার টাকা এবং সুলভ শ্রেণি বা ডেক (যাত্রীপ্রতি) এক হাজার ৫০০ টাকা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা