kalerkantho

রবিবার । ২১ জুলাই ২০১৯। ৬ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৭ জিলকদ ১৪৪০

বেপরোয়া চাঁদাবাজি

চাঁপাইনবাবগঞ্জে চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে পিটুনি

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি   

১১ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চাঁপাইনবাবগঞ্জে চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে পিটুনি

বেপরোয়া চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরের বারোঘরিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু খায়ের ও ৪ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য রঞ্জু খানকে গতকাল রবিবার দুপুরে বেধড়ক পিটিয়েছে স্থানীয় জনতা। ঘটনার সময় চাঁদা না দেওয়ায় চেয়ারম্যানের লোকজন বারোঘরিয়া বাজারের তিনটি দোকান ভাঙচুর ও চার নারীর শ্লীলতাহানি ঘটায় বলে অভিযোগ করেছে স্থানীয়রা। এই ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান ও ওয়ার্ড সদস্যের বিচার চেয়ে বিকেলে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, বারোঘরিয়া বাজারের বিভিন্ন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে নিয়মিত চাঁদা নিতেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল খায়ের। রবিবার দুপুরে চেয়ারম্যান আবু খায়ের ও ৪ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য রঞ্জু খান গ্রাম পুলিশ সদস্যদের নিয়ে বারোঘরিয়া বাজারে যান। এ সময় তাঁরা ওই বাজারের ব্যবসায়ী খালেক, করিম ও সুকুমারের কাছে চাঁদা দাবি করেন। কাঙ্ক্ষিত চাঁদা না পেয়ে চেয়ারম্যান খায়েরের নির্দেশে ওই তিনজনের দোকান ভেঙে ফেলে তাঁর লোকজন। এ সময় বাধা দিতে গিয়ে চেয়ারম্যানের লোকজনের হাতে শ্লীলতাহানির শিকার হন ব্যবসায়ী করিমের দুই বোনসহ চার নারী। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে স্থানীয় জনতা। তারা ঐক্যবদ্ধ হয়ে বারোঘরিয়া বাজারে এসে চেয়ারম্যান আবু খায়ের ও সদস্য রঞ্জু খানকে বেধড়ক পিটুনি দেয়। একপর্যায়ে জনতার ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যান তাঁরা।

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান আবুল খায়েরের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাঁর মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তবে চাঁদাবাজি ও নারীদের শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ অস্বীকার করেন সদস্য রঞ্জু খান।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরের ইউএনও আলমগীর হোসেন জানান, ওই বাজারটি উপজেলা প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণাধীন। কাজেই আমাদের না জানিয়ে সেই বাজারের দোকার ভাঙচুর করে অন্যায় করেছেন চেয়ারম্যান ও মেম্বার। ঘটনা তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

মন্তব্য