kalerkantho

শনিবার  । ১৯ অক্টোবর ২০১৯। ৩ কাতির্ক ১৪২৬। ১৯ সফর ১৪৪১         

দুই তদন্ত কমিটি রিপোর্ট দিচ্ছে আজ

ওয়াহিদ ম্যানসনের দোতলায় রাসায়নিক থেকেই আগুন শুরু

ওমর ফারুক   

৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ওয়াহিদ ম্যানসনের দোতলায় রাসায়নিক থেকেই আগুন শুরু

পুরান ঢাকার চকবাজারে প্রাণঘাতী অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ওয়াহিদ ম্যানশনের দোতলার রাসায়নিক থেকে। সেখানে একটি বিস্ফোরণের পরই আগুন ধরে যায় এবং তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে পাশের ভবন ও রাস্তায়। রাসায়নিকের কারখানায় আগুন লাগার কারণে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের তা নিয়ন্ত্রণে নিতে বেগ পেতে হয়।

চকবাজারের চুড়িহাট্টা পাঁচ রাস্তা মোড়ে গত ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের পর ঘটনা তদন্তে চারটি কমিটি গঠন করা হয়। এগুলোর মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কর্তৃপক্ষ গঠিত দুটি তদন্ত কমিটি তাদের কাজ শেষ করেছে। দুটি কমিটির প্রতিবেদনেই আগুন লাগার কারণ ও ভবিষ্যতে এমন দুর্ঘটনা এড়াতে করণীয় সম্পর্কে সুপারিশ থাকছে। আগুনের সূত্রপাত ওয়াহিদ ম্যানশনের দোতলার রাসায়নিকের গুদাম—এমন তথ্যেরও উল্লেখ থাকছে। এ দুটি কমিটি আজ সোমবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার কথা রয়েছে।

কমিটির এক সদস্য কালের কণ্ঠকে জানান, তদন্ত করতে গিয়ে তাঁরা ৩০ জনের মতো প্রত্যক্ষদর্শীর সঙ্গে কথা বলেছেন। তাঁদের বেশির ভাগই জানিয়েছেন যে ওয়াহিদ ম্যানশনের দ্বিতীয় তলার কেমিক্যালের গুদাম থেকে আগুনের সূত্রপাত। কেউ কেউ অবশ্য ভবনটির সামনে পিকআপ ভ্যানের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের কথাও বলেছেন। তবে সব মিলিয়ে তদন্ত কমিটিও মনে করছে যে আগুনের সূত্রপাত ওয়াহিদ ম্যানশন থেকেই।

চুড়িহাট্টায় অগ্নিকাণ্ডের পরদিন ২১ ফেব্রুয়ারি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তীকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সদস্যরা আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন। তাঁরা ওয়াহিদ ম্যানশনের দোতলায় পুড়ে যাওয়া প্রসাধন সামগ্রীর গুদামও পরিদর্শন করেন। এরপর প্রত্যক্ষদর্শী ও অগ্নিদগ্ধদের সঙ্গে কথা বলেন কমিটির সদস্যরা।

অবশেষে তাঁরা গতকাল রবিবার তদন্ত শেষ পর্যায়ে নিয়ে এসেছেন। আজ সোমবার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া হতে পারে বলে জানা গেছে। তদন্তের বিষয়ে জানতে চাইলে প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সোমবার (আজ) তদন্ত রিপোর্ট জমা দেওয়ার সম্ভাবনা আছে।’

অন্যদিকে এই ঘটনায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কর্তৃপক্ষ গঠিত তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয় ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক দেবাশীষ বর্ধনকে। এই কমিটির সদস্য করা হয় সহকারী পরিচালক (এডি) সালাহ উদ্দিন ও উপসহকারী পরিচালক (ডিএডি) আব্দুল হালিমকে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দেবাশীষ বর্ধন গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমাদের তদন্ত শেষ পর্যায়ে। সোমবার তদন্ত রিপোর্ট জমা দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।’ এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘বেশির ভাগ প্রত্যক্ষদর্শীই জানিয়েছেন যে আগুন লেগেছে ওয়াহিদ ম্যানশনের দ্বিতীয় তলা থেকে। প্রাপ্ত তথ্য পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা