kalerkantho

রবিবার । ২ অক্টোবর ২০২২ । ১৭ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ

মুন্সীগঞ্জে আহত যুবদলকর্মী মারা গেছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা এবং মুন্সীগঞ্জ ও কুমিল্লা প্রতিনিধি   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মুন্সীগঞ্জে আহত যুবদলকর্মী মারা গেছেন

মুন্সীগঞ্জের মুক্তারপুরে বিএনপির সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় আহত যুবদলের কর্মী শহীদুল ইসলাম শাওন মারা গেছেন। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে তাঁর মৃত্যু হয়।

এ নিয়ে ২২ আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত বিএনপির চার নেতাকর্মীর মৃত্যু হলো। এর আগে ভোলায় দুজন এবং নারায়ণগঞ্জে একজনের মৃত্যু হয়।

বিজ্ঞাপন

মুন্সীগঞ্জের সংঘর্ষের ঘটনায় গতকাল দুটি মামলা করা হয়েছে। মামলায় বিএনপির রাজনীতিতে জড়িত ২৪ জনকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

এদিকে কুমিল্লায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লা বুলুর ওপর হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগ ও যুবলীগের ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা হয়েছে।

গত বুধবার মুক্তারপুরে সংঘর্ষে আহত শাওনকে (২১) ওই রাতেই ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শাওনের স্বজন মো. নাহিদ গতকাল রাতে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘শাওন আইসিইউতে ছিলেন। তিনি যুবদলের কর্মী। সংঘর্ষের সময় শাওনের মাথা ও কানে আঘাতের কারণে গভীর ক্ষত সৃষ্টি হয়। ’

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া জানান, আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৮টা ৪০ মিনিটে শাওন মারা যান।

হাসপাতালের সামনে যুবদলের সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকু সাংবাদিকদের বলেন, যুবদলের শহীদুল ইসলাম শাওনের জানাজা আজ শুক্রবার বাদ জুমা নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত হবে। পরের দিন এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করবে যুবদল।

ওই সংঘর্ষের ঘটনায় ঢামেকে ভর্তি হন যুবদল নেতা মো. জাহাঙ্গীর (৪০)। জাহাঙ্গীরের চাচাতো ভাই হৃদয় জানান, জাহাঙ্গীরের অবস্থা আগের চেয়ে উন্নতির দিকে। এ ছাড়া ঢামেকে ভর্তি হওয়া তারেককে (২২) বুধবার রাতেই মিরপুরের ডেল্টা হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে জানান পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া।

মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও অর্থ) সুমন দেব সন্ধ্যায় জানান, পুলিশের ওপর হামলা, অস্ত্র লুটের চেষ্টা এবং সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার ঘটনায় জেলা বিএনপির সদস্যসচিব কামরুজ্জামান রতনকে প্রধান আসামি করে ৩১৩ জনের নাম উল্লেখ করে সহস্রাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলায় ২৪ জনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। তাঁদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরো জানান, মুক্তারপুর এলাকার বাসিন্দা আব্দুল মালেক বাদী হয়ে দোকানপাট ভাঙচুর ও মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় অন্য একটি মামলা করেন। এতে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মহিউদ্দিন আহমেদকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। মামলায় ৫২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে আরো ১০০ থেকে ১৫০ জনকে।

এদিকে পুলিশের ওপর বিএনপি নেতাকর্মীদের হামলার প্রতিবাদে গতকাল বিকেলে মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ব্যানারে পৃথক মিছিল ও সমাবেশ করা হয়েছে বুলুর ওপর হামলায় কুমিল্লায় মামলা মনোহরগঞ্জের বিপুলাসার বাজারে বুলুর ওপর হামলার ঘটনায় কুমিল্লার আদালতে মামলা হয়েছে। লাকসাম পৌরসভা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মনির আহমেদ কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের ৬ নম্বর আমলি আদালতে ওই মামলা করেন। বাদীপক্ষের আইনজীবী কাইমুল হক রিংকু বলেন, মামলায় স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের ১৭ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করা হয়েছে। বিচারক আবু বকর সিদ্দিক মামলাটি গ্রহণ করে ঘটনা তদন্তের জন্য কুমিল্লার পিবিআইকে নির্দেশ দেন।

 



সাতদিনের সেরা