kalerkantho

শনিবার । ২০ আগস্ট ২০২২ । ৫ ভাদ্র ১৪২৯ । ২১ মহররম ১৪৪৪

ছেলেমেয়ের সঙ্গে সেলফি তুললেন প্রধানমন্ত্রী

এই সেতুর মাধ্যমে দক্ষিণাঞ্চলেও হবে ব্যাপক উন্নয়ন

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি   

৫ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এই সেতুর মাধ্যমে দক্ষিণাঞ্চলেও হবে ব্যাপক উন্নয়ন

পদ্মা সেতুতে : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল প্রথমবারের মতো ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় ও মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ পুতুলকে নিয়ে পদ্মা সেতু হয়ে সড়কপথে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় যান। সেতুর ওপর মা ও ভাইয়ের সঙ্গে সেলফি তোলেন পুতুল। ছবি : পিআইডি

পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়ে প্রথমবার গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া ঘুরে গেলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সোমবার সড়কপথে ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়, মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ পুতুলসহ পরিবারের সদস্যদের নিয়ে দুপুর পৌনে ১২টায় তিনি টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছেন। উদ্বোধনের পর পদ্মা সেতু দিয়ে টুঙ্গিপাড়ায় এটিই প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত প্রথম সফর।

প্রধানমন্ত্রী পরিবারের সদস্যদের নিয়ে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান।

বিজ্ঞাপন

পরে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন। বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সড়কপথেই ঢাকার উদ্দেশে টুঙ্গিপাড়া ছাড়েন তিনি।

সকাল ৮টায় গণভবন থেকে টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশে যাত্রা করেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। সকাল ৮টা ৪৮ মিনিটে তিনি মাওয়ায় পদ্মা সেতুর টোল প্লাজায় টোল দিয়ে সেতুতে ওঠেন। সেতুর মাঝামাঝি গিয়ে গাড়ি থেকে নেমে পড়েন তিনি। এ সময় মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ ও ছেলে জয়ের সঙ্গে সেলফি তোলেন প্রধানমন্ত্রী। দুপুর ১২টার দিকে সজীব ওয়াজেদ জয় তাঁর নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এ ছবি পোস্ট করেছেন। দ্রুতই ছবিটি ভাইরাল হয়। সকাল সোয়া ৯টার দিকে প্রধানমন্ত্রী জাজিরা প্রান্তে যান এবং সেখানে ফলকের সামনে কিছু সময় কাটান। এরপর পদ্মা সেতুর জাজিরা সার্ভিস এরিয়া-২-এ প্রায় ৪০ মিনিট বিশ্রাম নেন। সকাল সোয়া ১০টার দিকে প্রধানমন্ত্রী সেখান থেকে টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশে যাত্রা করেন।

প্রধানমন্ত্রী এদিন গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া ও কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়সভা করেন। দুপুরে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ঘণ্টাব্যাপী এ মতবিনিময়সভা হয়। সভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির সময় আওয়ামী লীগের সব নেতাকর্মীর ওপর অত্যাচার-নির্যাতন হয়েছে। জেল-জুলুম হয়েছে। অনেক মানুষ মারা গেছে, অনেক লাশ হারিয়ে গেছে। ’

তিনি বলেন, ‘আয়ুব খান, ইয়াহিয়া খান, এরশাদ, জিয়া—সব আমলেই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর নির্যাতন করা হয়েছে। কিন্তু শত নির্যাতনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ সাংগঠনিকভাবে সব সময় শক্তিশালী ছিল। বিশেষ করে আমাদের মাঠকর্মীরা সব সময় সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং তাঁরাই দলকে ধরে রেখেছেন। ’

যমুনা নদীর ওপর বঙ্গবন্ধু সেতু হওয়ায় উত্তরাঞ্চলের মানুষের জীবনমানের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী এ সময় বলেন, ‘এখন উত্তরাঞ্চলে মঙ্গা নাই। পদ্মা সেতুর মাধ্যমে দক্ষিণাঞ্চলেও ব্যাপক উন্নয়ন হবে। ’

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর চাচাতো ভাই শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি, শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল এমপি, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. বাবুল শেখ, টুঙ্গিপাড়া পৌরসভার মেয়র শেখ তোজাম্মেল হক টুটুলসহ টুঙ্গিপাড়া ও কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

 

 



সাতদিনের সেরা