kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ১৯ মে ২০২২ । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  

নির্বাচন কমিশন গঠন আইন

সংসদে আজ পাস হতে পারে

বিশেষ প্রতিনিধি   

২৭ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সংসদে আজ পাস হতে পারে

নির্বাচন কমিশন গঠনসংক্রান্ত প্রস্তাবিত আইন পাসের সুপারিশ করে জাতীয় সংসদে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। এই বিলটি আজ বৃহস্পতিবার পাস হতে পারে বলে সংসদ সচিবালয় সূত্র জানিয়েছে।

দুই দিন বিরতির পর গতকাল বুধবার সকাল ১১টায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশন শুরু হয়। কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিতসংখ্যক উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত অধিবেশনে ‘প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ বিল-২০২২’ পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে প্রতিবেদন উত্থাপন করেন সংসদীয় কমিটির সভাপতি শহীদুজ্জামান সরকার।

বিজ্ঞাপন

নিয়ম অনুযায়ী এখন আইনমন্ত্রী যেকোনো দিন বিলটি পাসের জন্য সংসদে প্রস্তাব করবেন।

এ বিষয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক গতকাল সন্ধ্যায় কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমি আগামীকাল (আজ বৃহস্পতিবার) বিলটি পাসের জন্য সংসদে উপস্থাপন করব। ’

এরপর আর কোনো প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হবে কি না এমন প্রশ্নে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘সংসদে পাসের পর এতে রাষ্ট্রপতি স্বাক্ষর করবেন। এর বাইরে আর কোনো প্রক্রিয়া নেই। আশা করছি, কালকেই (আজ বৃহস্পতিবার) এটি সংসদে পাস হবে। ’

বঙ্গভবনও আইনটি পাসের অপেক্ষায় রয়েছে। গত ২০ জানুয়ারি রাষ্ট্রপতির প্রেসসচিব মো. জয়নাল আবেদীন কালের কণ্ঠকে বলেন, বঙ্গভবন নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠন আইনটি সংসদে পাসের অপেক্ষায় আছে। কারণ, আইনটি পাস হলে সে অনুযায়ী অনুসন্ধান কমিটি গঠন করতে হবে।

কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বাধীন বর্তমান ইসির মেয়াদ আর ১৮ দিন আছে। আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি এই কমিশনের শেষ কর্মদিবস। তার আগেই ইসি গঠনে সংবিধান অনুসারে দেশে প্রথমবারের মতো আইন প্রণয়ন ও সেই আইনের ভিত্তিতে রাষ্ট্রপতি প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও নির্বাচন কমিশনারদের (ইসি) শূন্য পদে যোগ্য ব্যক্তিদের নিয়োগ দিতে অনুসন্ধান কমিটি গঠন করবেন। অনুসন্ধান কমিটি এ কাজ করতে ১০ দিন সময় পাবে। এরপর অনুসন্ধান কমিটি প্রতিটি পদের বিপরীতে দুজন ব্যক্তির নাম সুপারিশ করবে এবং রাষ্ট্রপতি তাঁদের মধ্য থেকে সর্বোচ্চ পাঁজনকে নিয়োগ দেবেন।

গতবার অনুসন্ধান কমিটি গঠন হয় ২০১৭ সালের ২৫ জানুয়ারি। সে ক্ষেত্রে আজ বৃহস্পতিবার সংসদে আইনটি পাস হলে সন্ধ্যার মধ্যেই অনুসন্ধান কমিটি গঠনের সম্ভাবনা রয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের ধারণা। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সংসদ চাইলে সংসদীয় কমিটির সুপারিশসহ কিংবা সংসদে যে রকম স্থির করা হবে, সেভাবে খসড়া আইনটি পাস হবে। গত রবিবার আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ওই বিলটি সংসদে উত্থাপনের পর তা অধিকতর পরীক্ষার জন্য সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়।

 



সাতদিনের সেরা