kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ মাঘ ১৪২৮। ১৮ জানুয়ারি ২০২২। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দাবি না মানলে কাল বিআরটিএ ঘেরাও

► আজও সড়কে থাকার ঘোষণা শিক্ষার্থীদের
► নিরাপদ সড়ক, ভাড়ার আন্দোলন একসঙ্গে
► আন্দোলনে বিএনপি, জাপার একাত্মতা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



দাবি না মানলে কাল বিআরটিএ ঘেরাও

নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসান হত্যার বিচার, নিরাপদ সড়ক ও বাসে অর্ধেক ভাড়ার দাবিতে গতকালও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা রাজধানীর ধানমণ্ডি ২৭ নম্বর মোড়ে বিক্ষোভ করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

নিরাপদ সড়ক ও গণপরিবহনে অর্ধেক ভাড়াসহ (হাফ পাস) ৯ দফা দাবিতে আজ সোমবার আবার রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে নামার ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। দাবি বাস্তবায়নে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বেঁধে দেওয়া সময়ও শেষ হচ্ছে আজ। দাবি আদায় না হলে আগামীকাল মঙ্গলবার বনানীতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) কার্যালয় ঘেরাও করবে তারা।

এদিকে গতকাল সন্ধ্যায় আন্দোলনকারী এক ছাত্রীকে মোহাম্মদপুর থানায় ডেকে নিয়ে ঘণ্টাখানেক জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। ওই ছাত্রী কালের কণ্ঠকে জানিয়েছেন, পুলিশ তাঁর কাছে জানতে চেয়েছে আন্দোলনে কেউ অর্থায়ন করছে কি না। তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, তাঁর জানা মতে কেউ অর্থায়ন করছে না, ছাত্রছাত্রীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে এই আন্দোলনে অংশ নিয়েছে। 

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে পরিবহনের ভাড়া বাড়ানো হলে ৮ নভেম্বর রাজধানীর শাহবাগে অর্ধেক ভাড়ার দাবিতে মানববন্ধন করে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। পরে ১১ নভেম্বর বিআরটিএতে একটি স্মারকলিপি দিয়ে তারা প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করে। তখন থেকে হাফ পাসের দাবিতে সড়কে শিক্ষার্থীরা। এরই মধ্যে ২৪ নভেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির চাপায় নটর ডেম কলেজের ছাত্র নাঈম হাসান নিহত হলে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়কসহ ৯ দফা দাবি ঘোষণা করে।

শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে গতকাল একাত্মতা ঘোষণা করেছে বিএনপি, জাতীয় পার্টি (জাপা) ও আ স ম আবদুর রবপন্থী জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

শিক্ষার্থীদের ৯ দফা

শিক্ষার্থীদের দাবির মধ্যে রয়েছে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের অধীনে শিক্ষার্থীসহ সড়কে হত্যার বিচার ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ নিশ্চিত করা; ঢাকাসহ সারা দেশে সব গণপরিবহনে (সড়ক, নৌ, রেল ও মেট্রো রেল) শিক্ষার্থীদের হাফ পাস নিশ্চিত করে প্রজ্ঞাপন জারি; গণপরিবহনে নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং জনসাধারণের চলাচলের জন্য যথাস্থানে ফুটপাত, ফুট ওভারব্রিজ বা বিকল্প নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা; সড়ক দুর্ঘটনায় আহত যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকের যথাযথ ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসন; পরিকল্পিত বাস স্টপেজ ও পার্কিং স্পেস নির্মাণ এবং যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিতকরণে কঠোর আইন প্রণয়ন; দ্রুত বিচারিক প্রক্রিয়া ও যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে দুর্ঘটনায় নিহতের দায়ভার সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা মহলকে দেওয়া; বৈধ ও অবৈধ যানবাহন চালকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বৈধতার আওতায় আনা এবং বিআরটিএর সব কর্মকাণ্ডের ওপর নজরদারি ও জবাবদিহি নিশ্চিত করা; আধুনিক বাংলাদেশ বিনির্মাণে ঢাকাসহ সারা দেশে অবিলম্বে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা স্বয়ংক্রিয় ও আধুনিকায়ন এবং পরিকল্পিত নগরায়ণ নিশ্চিত করা; ট্রাফিক আইনের প্রতি জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য এটি পাঠ্যসূচির অন্তর্ভুক্ত করা এবং গণমাধ্যমে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা।

সড়কে শিক্ষার্থীরা

দাবি আদায়ে গতকাল মিরপুর রোডের ধানমণ্ডি ২৭ নম্বরে সকাল সাড়ে ১১টা থেকে সড়ক অবরোধ করে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। এতে ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ, সেন্ট যোসেফ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ পাবলিক কলেজ ও বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ রাইফেলস কলেজের শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিল বেশি।

দুপুর ১টার দিকে সায়েন্স ল্যাব, কলাবাগান ও মোহাম্মদপুর এলাকায় ছাত্ররা মিছিল নিয়ে ধানমণ্ডি ২৭ নম্বরে জড়ো হয়। তারা সড়ক অবরোধ করে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে। বিভিন্ন গাড়ির কাগজপত্র ও লাইসেন্স যাচাই করে শিক্ষার্থীরা। দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করে তারা অবরোধ তুলে নেয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক লালমাটিয়া মহিলা কলেজের এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘৪৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিলেও এর মধ্যে সব কিছু বাস্তবায়ন সম্ভব নয়, সেটি আমরাও জানি। তবে যেগুলো বাস্তবায়ন করা যায়, সেগুলো কেন করা হচ্ছে না?’

বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ পাবলিক কলেজ, বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ রাইফেলস কলেজ ও ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা রাজধানীর সায়েন্স ল্যাব মোড়ে দুপুর ১২টা থেকে আড়াইটা পর্যন্ত অবস্থান নেয়। এ ছাড়া ঢাকা ইম্পেরিয়াল কলেজের ছাত্ররা দুপুর ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত রামপুরা ব্রিজে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করে। শান্তিনগর মোড়ে অবস্থান নেয় সবুজবাগ সরকারি কলেজ, উইলস লিটল ফ্লাওয়ার ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ও সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজের শিক্ষার্থীরা। মাইলস্টোন স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও রাজউক উত্তরা মডেল কলেজের শিক্ষার্থীরা সাড়ে ১১টা থেকে আড়াইটা পর্যন্ত উত্তরার বিএনএস সেন্টারে অবস্থান নেয়। প্রাইম এশিয়া ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা খিলগাঁও পুলিশ ফাঁড়ির সামনে বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে পৌনে ৫টা পর্যন্ত অবস্থান নেয়।

খিলগাঁও পুলিশ ফাঁড়ির সামনে আন্দোলনরত ছাত্র ও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের (নিসআ) যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল্লা মেহেদী বলেন, ‘আগামীকালের (আজ সোমবার) মধ্যে আমাদের ৯ দফা দাবি আদায় না হলে মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে আমরা বিআরটিএ কার্যালয় ঘেরাও করব।’

ফার্মগেট এলাকায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা সড়কে নামার চেষ্টা করলেও পুলিশের বাধায় নামতে পারেনি।

নটর ডেম কলেজের ছাত্ররা রাস্তায় নামেনি

নটর ডেম কলেজের ছাত্ররা গতকাল সকাল সাড়ে ১১টার দিকে গুলিস্তান জিরো পয়েন্ট এলাকায় অবস্থান নেওয়ার কথা থাকলেও তারা রাস্তায় নামেনি। শিক্ষার্থী তানভীর হাসান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘২ ডিসেম্বর থেকে আমাদের ক্লাস টেস্ট পরীক্ষা। এ ছাড়া নাঈম হত্যার বিচারের জন্য দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র আমাদের কাছে কিছুটা সময় চেয়েছেন।’

আন্দোলনে একাত্মতা

বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও রবপন্থী বাংলাদেশ ছাত্রলীগ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেছে। গতকাল প্রেস ক্লাবে এক অনুষ্ঠানে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘ছেলেমেয়েরা বাসভাড়া কমানোর জন্য রাস্তায় নেমেছে। এখন লেখাপড়া করতে খরচ অনেক বেড়েছে। এ জন্য তারা বাসভাড়া হাফ করতে বলছে। আমরা শিক্ষার্থীদের দাবির প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছি। প্রয়োজনে সরকারকে ভর্তুকি দিতে হবে।’

সংসদে জাপার চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের শিক্ষার্থীদের অর্ধেক ভাড়ার দাবিকে যৌক্তিক আখ্যা দিয়ে সরকারকে দ্রুত এ বিষয়ে সিদ্ধান্তে আসার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জাসদ-রব) ধানমণ্ডি ২৭ নম্বরে গিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে ছয় দফার লিফলেট বিলি করেছে।



সাতদিনের সেরা