kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

আবার ময়লার গাড়ির নিচে জীবন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আবার ময়লার গাড়ির নিচে জীবন

আহসান কবির খান

এক দিনের ব্যবধানে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ময়লার গাড়ির চাপায় এবার এক সংবাদকর্মী প্রাণ হারিয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে রাজধানীর পান্থপথে এ ঘটনা ঘটে।

ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নিহত সংবাদকর্মীর নাম আহসান কবির খান (৪৫)। তিনি প্রথম আলোর সাবেক কর্মী।

এর আগে গত বুধবার গুলিস্তানে রাস্তা পার হওয়ার সময় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির চাপায় নিহত হন নটর ডেম কলেজের উচ্চ মাধ্যমিকের ছাত্র নাঈম হাসান। তাঁর মৃত্যুর প্রতিবাদ এবং গাড়িচালকের সর্বোচ্চ শাস্তিসহ নানা দাবিতে শিক্ষার্থীরা রাজপথে নামে।

পুলিশ সূত্র জানায়, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে গত দুই দিনে দুজনসহ ময়লার গাড়ি দুর্ঘটনায় ১৫ জন নিহত হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে, ঢাকা উত্তর সিটির ময়লার গাড়িটি গতকাল দুপুরে পান্থপথ ট্রাফিক সিগন্যালে যানজটে আটকে ছিল। দুপুর আড়াইটার দিকে সিগন্যাল ছাড়া মাত্রই ময়লার গাড়িটি সামনে থাকা একটি মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলের পেছনের আরোহী

আহসান কবীর খান ছিটকে সড়কে পড়েন। তাঁর মাথার ওপর দিয়ে ময়লার গাড়ির চাকা চলে যায়। এতে হেলমেট পরা কবির ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

কলাবাগান থানার ওসি পরিতোষ চন্দ্র কালের কণ্ঠকে বলেন, গাড়িটি জব্দ করা হয়েছে। তবে চালক পলাতক।

সাব্বির নামের এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, মোটরসাইকেল আরোহীকে সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়িটি চাপা দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। স্থানীয় লোকজন পেছন থেকে ধাওয়া দিলে গ্রিন রোড সিগন্যালে গিয়ে চালক ও তাঁর সহযোগী গাড়ি রেখে পালিয়ে যান।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, দুর্ঘটনার পর কবির খানের নিথর দেহ অনেকক্ষণ সড়কে পড়ে ছিল। পরে পুলিশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

ট্রাফিক সার্জেন্ট অসীম কুমার সূত্রধর বলেন, ‘ঘটনাস্থলে এসে আমরা আর মোটরসাইকেলটি পাইনি। ধারণা করা হচ্ছে, মোটরসাইকেলে দুজন ছিলেন। কবিরের মাথা থেঁতলে গেছে। তাঁর কাছে পাওয়া পরিচয়পত্র থেকে তাঁকে শনাক্ত করা হয়।’

কবির খান প্রথম আলোর সাবেক কর্মী। তিনি ১৯৯৮ সালে পত্রিকাটির প্রতিষ্ঠার সময় থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত কাজ করেন। সর্বশেষ তিনি সংবাদ পত্রিকায় কর্মরত ছিলেন।

কবিরের ফুফাতো ভাই মিজানুর রহমান বলেন, ঝালকাঠি সদর উপজেলার শিরজু গ্রামের আব্দুল মান্নান খানের ছেলে কবির খান। মগবাজার চান বেকারি গলিতে পরিবার নিয়ে থাকতেন। তাঁর এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

নিহত কবিরের স্ত্রী নাদিরা বেগম রেখা বলেন, সকাল ১১টার দিকে কাজে মিরপুরের উদ্দেশে তাঁর স্বামী বাসা থেকে বের হন। এরপর দুপুরে তিনি স্বামীর দুর্ঘটনার খবর পান। তাঁর মোটরসাইকেল নেই। হয়তো কারো সঙ্গে তিনি যাচ্ছিলেন।

তদন্ত কমিটি

পান্থপথ এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনার বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলামের নির্দেশে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। কমিটির সদস্যদের তিন কার্যদিবসের মধ্যে সুস্পষ্ট মতামতসহ প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘চালকের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এরই মধ্যে তিন সদস্যের কমিটি করা হয়েছে। এ ছাড়া নিহতের পরিবারকে প্রয়োজনে সহযোগিতা করা হবে।’

 



সাতদিনের সেরা