kalerkantho

শুক্রবার । ২ আশ্বিন ১৪২৮। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ৯ সফর ১৪৪৩

মৃত্যুর নতুন রেকর্ড এক দিনে ১৪৩

► ১৬ মাসের মধ্যে গত ৬ মাসেই মৃত্যু ৪৮%
► ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ মৃত্যু আবারও খুলনায়, বাড়ছে ঢাকাসহ সারা দেশেই

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



মৃত্যুর নতুন রেকর্ড এক দিনে ১৪৩

দেশে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর নতুন রেকর্ড হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ১৪৩ জন। এর আগে গত সোমবার দৈনিক মৃত্যু ছিল সর্বোচ্চ ১১৯ জন। পরের দুই দিন ছিল ১১২ ও ১১৫ জন।

সেই সঙ্গে গত কয়েক দিন ধরে খুলনা বিভাগেই ঘটছে সর্বোচ্চ মৃত্যুর ঘটনা। গতকালও সেখানে মারা গেছে ৪৬ জন। এর পরই ঢাকায় মৃত্যু হয়েছে ৩৫ জনের। অন্যান্য বিভাগেও বাড়ছে মৃত্যু।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে দেওয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানা গেছে।

সরকারিভাবে শুধু যারা করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হওয়ার পর মারা যাচ্ছে তাদের সংখ্যা জানানো হলেও বিভিন্ন বিভাগ ও জেলার হাসপাতালে করোনা ইউনিটে প্রতিদিনই বাড়ছে উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে গতকাল প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, গত ১৬ মাসের মধ্যে মাসিক হিসাবে সর্বোচ্চ দুই হাজার ৪০৪ জনের মৃত্যু হয়েছে চলতি বছরের এপ্রিলে। এর পরই সর্বাধিক মৃত্যু হয়েছে জুনে এক হাজার ৮৮৪ জন। গত মাসের প্রথম দুই সপ্তাহে মৃত্যু তুলনামূলক কম থাকলেও এর পর থেকেই তা বাড়তে থাকে। আর সেই ধারায় চলতি মাসের প্রথম দিনটি গতকাল শুরু হলো দেশে করোনা মহামারির ইতিহাসের সর্বোচ্চ মৃত্যু দিয়ে। গত ১৬ মাসে মোট ১৪ হাজার ৬৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে শেষ ছয় মাসে বা চলতি বছরের ছয় মাসেই মারা গেছে ছয় হাজার ৯৪৪ জন, অর্থাৎ ৪৮ শতাংশ। যদিও বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন গত কয়েক দিনে যে হারে শনাক্ত হচ্ছে তাতে আগামী দুই সপ্তাহের কাছাকাছি সময়ে মৃত্যু এখনকার চেয়ে দ্বিগুণেরও বেশি হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়েছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গত বছর দেশে করোনাভাইরাসের সর্বোচ্চ শনাক্ত ও মৃত্যুর ঘটনায় মানুষ যেভাবে ভয়ে তটস্থ ছিল, বছর ঘুরতেই সেই ভয় কেটে গেছে। কিন্তু এখন সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির কারণে দিনে দিনে তখনকার পরিসংখ্যান নগণ্য হয়ে যাচ্ছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৫.৯০ শতাংশ। নতুন শনাক্ত হয়েছে আট হাজার ৩০১ জন। গত ১৬ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত ছিল চলতি বছরের এপ্রিলে, এক লাখ ৪৭ হাজার ৮৩৭ জন। এরপরই সর্বোচ্চ শনাক্ত গত মাসে এক লাখ ১২ হাজার ৭১৮ জন। দৈনিক সর্বোচ্চ শনাক্ত হয় আট হাজার ৮২২ জন, গত বুধবার।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক রেখাচিত্রে দেখানো হয়েছে, এ পর্যন্ত মাসিক হিসাবে সর্বোচ্চ শনাক্তের হার ২২.৪৬ শতাংশ ছিল গত বছর জুলাই মাসে। এরপরই দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ছিল এ বছরের এপ্রিলে ১৮.৫০ শতাংশ। গত মাসে ছিল ১৭.০৪ শতাংশ। আর সবচেয়ে কম মাসিক শনাক্তের হার ছিল চলতি বছরের মার্চ মাসে ২.৮২ শতাংশ।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ১৪৩ জনের মধ্যে ৯০ জন পুরুষ ও ৫৩ জন নারী। বয়স বিবেচনায় ১০ বছরের নিচের একজন, ১১-২০ বছরের একজন, ৩১-৪০ বছরের ১১ জন, ৪১-৫০ বছরের ১৮ জন, ৫১-৬০ বছরের ৪২ জন ও ষাটোর্ধ্ব ৭০ জন। তাদের মধ্যে আছে ঢাকা বিভাগে ৩৫, চট্টগ্রামে ১৫, রাজশাহী ১৯, খুলনা ৪৬, বরিশাল আট, সিলেট সাত, রংপুর ১০ ও ময়মনসিংহের তিনজন। সরকারি হাসপাতালে মারা গেছে ১০৯ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ২৩ জন ও বাসায় ১১ জন মারা গেছে।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের ঘোষণা আসে সরকারের তরফ থেকে। এর ১০ দিনের মাথায় ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর তথ্য জানানো হয়। সংক্রমণ রোধে চলতি বছরের ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশে গণটিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে।



সাতদিনের সেরা