kalerkantho

রবিবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৯ নভেম্বর ২০২০। ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২

বিশেষজ্ঞ মত

এখনো মাস্কের বিকল্প নেই

ডা. মো. নজরুল ইসলাম

২৭ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এখনো মাস্কের বিকল্প নেই

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস মহামারি থেকে সুরক্ষায় আমাদের সামনে দুটি পথ রয়েছে। একটি হচ্ছে বায়োলজিক্যাল সেফটি বা ভ্যাকসিন, আরেকটি হচ্ছে ফিজিক্যাল সেফটি বা ব্যক্তিগত শারীরিক সুরক্ষা। এর মধ্যে যেহেতু এখনো ভ্যাকসিনের নাগাল আমরা পাচ্ছি না তাই বিকল্পটিই এখন পর্যন্ত আমাদের রক্ষাকবচ। মাস্ক, হাত ধোয়া ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখাই এখন পর্যন্ত সবচেয়ে কার্যকর বিকল্প। খুব সাধারণ ভাষায় বললে—ভ্যাকসিন এখন পর্যন্ত শুধু অনিশ্চিতই নয়, বরং আমাদের দেশের জন্য তুলনামূলক অনেক দূরের বিষয়। কোনো ভ্যাকসিন কবে সফল হবে, কবে অনুমোদন পাবে, আমাদের দেশে কবে নাগাদ আমদানি হবে, কত শতাংশ মানুষ তা দিতে পারবে, সরবরাহ ব্যবস্থা কী হবে না হবে, সংরক্ষণ ব্যবস্থা কেমন থাকবে, অন্য দেশের ভ্যাকসিন আমাদের দেশের মানুষের শরীরে কতটা কার্যকর হবে—অনেক ধরনের অঙ্ক রয়েছে। বিপরীতে মাস্ক, হাত ধুয়ে রাখা ও শারীরিক দূরত্ব মেনে চলায় এত সব ঝামেলা, জটিলতা, আর্থিক ব্যাপারস্যাপার নেই। আছে শুধু ব্যক্তিগত পর্যায়ে সচেতনতা আর সরকারের জায়গা থেকে মানুষের মস্তিষ্কে বা মনে এই পদ্ধতিটি ভালোভাবে ঢুকিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করা। মানুষ হাতের নাগালে সহজ বিকল্প হাত ধোয়া বা মাস্ক ব্যবহারে যেভাবে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করছে তা দেখে রীতিমতো অবাক হতে হয়। সরকারও যে কেন কঠোর হচ্ছে না, কঠোর হতে কী সীমাবদ্ধতা রয়েছে সেটাও আমরা বুঝতে পারি না।

এখন মন্ত্রিপরিষদ সিদ্ধান্ত নিয়েছে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন—নো মাস্ক, নো সার্ভিস। সেটা বাস্তবায়নের দায়িত্ব কিন্তু সরকারের। সরকারের উচিত হবে শুধু মুখের ঘোষণা নয়, সরকারি আদেশ জারি করে সব অফিস-আদালতে এগুলো পালনে বাধ্য করার ব্যবস্থা করা। পথেঘাটে, পরিবহনে যারা মাস্ক পরবে না সেখানেও অভিযান করা দরকার। শাস্তির দৃষ্টান্ত স্থাপন হলে পরিস্থিতির পরিবর্তন ঘটবে।

আরেকটি বিষয় আমাদের মনে রাখতে হবে, ভ্যাকসিনের ওপর আমাদের বেশি নির্ভর হওয়া ঠিক হচ্ছে না। কারণ আমাদের এখানে যেই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল হবে না সেটা আমাদের দেশের মানুষের জন্য কতটা উপযোগী সেটা কিন্তু খুবই ভাবনার বিষয়। কারণ অনেক ভাইরাস যেমন একেক দেশের মানুষের সঙ্গে একেক ধরনের আচরণ করে তেমনি ভ্যাকসিনও একেক দেশে একেক আচরণ করে বলে প্রমাণ রয়েছে। যেমন আমরা দেখছি করোনাভাইরাসও অন্য দেশে যে আচরণ করছে আমাদের দেশে তেমনটা হচ্ছে না। ফলে ভ্যাকসিন নিয়েও সেই ঝুঁকি থাকতে পারে।

লেখক : ভাইরোলজির অধ্যাপক ও সাবেক উপাচার্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা