kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

উনের বিরল ক্ষমা প্রার্থনা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উনের বিরল ক্ষমা প্রার্থনা

দক্ষিণ কোরিয়ার এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় ক্ষমা চাইলেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ব্লু হাউস বিবৃতিতে জানায়, প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইনকে লেখা এক চিঠিতে এ ধরনের ‘লজ্জাজনক ঘটনা’ আর ঘটবে না বলে জানিয়েছেন উন।

উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে সম্পর্ক ভালো নয়। পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে পিয়ংইয়ং ও ওয়াশিংটনের মধ্যেও উত্তেজনা রয়েছে। দুই কোরিয়ার মধ্যে বিগত দিনে বহু বিবাদপূর্ণ ঘটনা ঘটলেও উত্তর কোরিয়ার নেতার পক্ষ থেকে দুঃখ প্রকাশ করার ঘটনা নেই। তাই নিজেদের জলসীমায় দক্ষিণের নাগরিক হত্যার ঘটনায় উনের ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টিকে ‘বিরল’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন বিশ্লেষকরা।  

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, দুই সন্তানের জনক ৪৭ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি মত্স্য বিভাগে কাজ করতেন। গত সোমবার তিনি নিখোঁজ হওয়ার সময় ইয়োনপিয়ং দ্বীপের কাছে একটি টহল নৌকায় ছিলেন। তিনি উত্তরের সেনাদের হাতে ধরা পড়েন। সেনারা তাঁকে মাথায় গুলি করে হত্যা করে এবং লাশ আগুনে পুড়িয়ে দেয়। ওই ব্যক্তি সম্ভবত পালিয়ে উত্তর কোরিয়া চলে যেতে চেয়েছিলেন। এ ঘটনায় দক্ষিণে ব্যাপক ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। দুই কোরিয়ার সীমান্তে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কড়া নজর রাখছে। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইন এই হত্যাকাণ্ডকে দুঃখজনক অভিহিত করে বলেন, এ ধরনের ঘটনা মেনে নেওয়া যায় না। তিনি এ হত্যার ঘটনায় দায়িত্বশীল পদক্ষেপ নিতে উত্তর কোরিয়ার প্রতি আহ্বান জানান।

ব্লু হাউস জানায়, মুনকে চিঠি লিখে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। উন একে ‘অপ্রত্যাশিত ও লজ্জাজনক’ ঘটনা বলে উল্লেখ করেন। মুন ও দক্ষিণ কোরিয়ার জনগণকে এভাবে হতাশ করায় তিনি গভীর দুঃখ প্রকাশ করেন।

দুই কোরিয়ার সীমান্তে এমনিতে কঠোর পাহারা থাকে। করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে কড়াকড়ি আরো বাড়ানো হয়েছে। সংবাদমাধ্যম বিবিসি ?জানায়, দেশে করোনাভাইরাসের প্রবেশ ঠেকাতে উত্তর কোরিয়া খুব সম্ভবত সীমান্তে ‘গুলি করে হত্যার’ নীতি গ্রহণ করেছে, যাতে বাইরে থেকে মানুষের প্রবেশ আটকানো যায়। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা