kalerkantho

রবিবার । ২১ আষাঢ় ১৪২৭। ৫ জুলাই ২০২০। ১৩ জিলকদ  ১৪৪১

বিশেষজ্ঞ মত

প্রণোদনা যেন চাকরিচ্যুতদের কাজে লাগে

আহসান এইচ মনসুর

৭ জুন, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রণোদনা যেন চাকরিচ্যুতদের কাজে লাগে

বর্তমান প্রেক্ষাপটে ব্যবসায়ীদের প্রণোদনা দেওয়া যেতেই পারে। এতে অর্থনীতিতে বিনিয়োগ আসবে। তবে এ ক্ষেত্রে দুটি বিষয় লক্ষ রাখতে হবে। একটি হলো, টাকাটা যেন অর্থনীতিতে কাজে লাগে অর্থাৎ ব্যবসা যেন চালু হয়। দ্বিতীয়ত, প্রণোদনার টাকা যেন শ্রমিকদের নিয়োগের কাজে লাগানো হয়। নতুন করে তো আর কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে না। তাই যে শ্রমিকরা চাকরি হারিয়েছে তারা যেন আবারও সুযোগ পায়। অন্যথায় প্রণোদনা দিয়ে লাভ হবে না।

করপোরেট কর কমানো যেতে পারে। কারণ আমাদের দেশে করপোরেট করের হার সবচেয়ে বেশি। বলা হয়েছিল, তা আস্তে আস্তে কমিয়ে আনা হবে; কিন্তু তা আর করা হয়নি।

তবে রপ্তানিতে যে প্রণোদনার কথা বলা হচ্ছে, তা ভুলভাবে করা হচ্ছে। প্রয়োজন হলো টাকার মানকে অবমূল্যায়িত করে প্রণোদনা দেওয়া। টাকাকে অতিমূল্যায়িত রেখে প্রণোদনা দেওয়ার কোনো মানে হয় না। সরকারের এমনিতেই রাজস্ব নেই। আগামী অর্থবছরেও রাজস্ব একটি বিরাট চ্যালেঞ্জ হয়ে থাকবে। করোনা চলে গেলেও এ চ্যালেঞ্জ থাকবে। তাই এতে আরো ক্ষতি হবে। সরকার একদিকে গলা কাটবে আর অন্যদিকে প্রণোদনা দেবে, তা তো হয় না। তার থেকে গলা না কাটাই ভালো। আর কালো টাকা সাদা করার ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাবে কখনোই খুব বেশি সাদা হয় না। তাই এর উপকারিতা নিয়ে সন্দেহ আছে। তবে বর্তমান প্রেক্ষাপটে প্রণোদনার প্রয়োজন রয়েছে।

করোনাভাইরাস এবং তার প্রভাব বিনিয়োগের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। করোনাভাইরাসকে সহনীয় পর্যায়ে যদি নামিয়ে না আনতে পারি, তাহলে কেউ বিনিয়োগ করবে না। আগে বিনিয়োগের পরিবেশ তৈরি করতে হবে। বেসরকারি খাতকে আকৃষ্ট করতে বিনিয়োগ পরিবেশ তৈরি করতে হবে। তা না হলে বিনিয়োগ আসবে না।

লেখক : নির্বাহী পরিচালক, পিআরআই

মন্তব্য