kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ আষাঢ় ১৪২৭। ৭ জুলাই ২০২০। ১৫ জিলকদ  ১৪৪১

করোনা পরিস্থিতি

এক দিনে রেকর্ড শনাক্ত ২৫৪৫, মৃত্যু ৪০

► করোনা সংক্রমণ বাড়ার মধ্যে শেষ হলো ছুটির মে মাস
► এক মাসে শনাক্ত ৩৮৩৩৬, মৃত্যু ৩৭৫ সুস্থ ৯৬০৪ জন

কাজী হাফিজ   

১ জুন, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



এক দিনে রেকর্ড শনাক্ত ২৫৪৫, মৃত্যু ৪০

উদ্বেগজনক তথ্যের মধ্য দিয়ে শেষ হলো মে মাস। গত ৩০ মে শনিবার সকাল থেকে গতকাল ৩১ মে সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে রেকর্ডসংখ্যক ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনাভাইরাস সংক্রমণে। একই সঙ্গে আরেক রেকর্ড গড়ে নতুন করে করোনাভাইরাস আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ২,৫৪৫ জন। সুস্থ হয়েছে আরো ৪০৬ জন। দেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত এক দিনে রোগীর মৃত্যু ও শনাক্ত হওয়ার এটাই সর্বোচ্চ রেকর্ড।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যানুসারে মে মাসের প্রথম দিন দেশে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছিল ৮,৭৯০ জনে। সে সংখ্যা মাসটির শেষ দিনে পৌঁছেছে ৪৭,১৫৩ জনে। অর্থাৎ এই এক মাসে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ৩৮,৩৩৬ জনে। মে মাসের প্রথম দিন এই ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ছিল ১৭৫ জন। শেষ দিনে সে সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৫০ জনে। সে হিসাবে মে মাসে মারা গেছে ৩৭৫ জন। মাসটির প্রথম দিন সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ছিল ১৭৭ জন। এ সংখ্যাটি শেষ দিনে পৌঁছেছে ৯,৭৮১ জনে। অর্থাৎ মে মাসে সুস্থ হয়েছে মোট  ৯,৬০৪ জন।

এ মাসে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতদের মধ্যে রয়েছেন জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, ফারইস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য নাজমুল করিম চৌধুরী, খাদ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব গৌতম আইচ, ভোরের কাগজের সাবেক শিফট ইনচার্জ সুমন মাহমুদ, ভোরের কাগজের ক্রাইম রিপোর্টার আসলাম রহমান (করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু),  সময়ের আলোর মাহমুদুল হাকিম অপু ও দৈনিক বাংলাদেশের খবরের ফটো সাংবাদিক মিজানুর রহমান, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) প্রধান সহকারী খলিলুর রহমান, ইবনে সিনা ট্রাস্টের চিফ রেডিওলজিস্ট কনসালট্যান্ট ও মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ডা. মেজর (অব.) আবুল মুকারিম মো. মহসিন উদ্দিন, অবসর প্রস্তুতিকালীন ছুটিতে (পিআরএল) থাকা অতিরিক্ত সচিব ও তথ্য কমিশনের সাবেক সচিব তৌফিক আলম ও এস আলম গ্রুপের পরিচালক মোরশেদুল ইসলাম।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও সাবেক এমপি হাজি মো. মকবুল হোসেন মারা গেছেন করোনায়। বেসরকারি শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজির প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা ইমামুল কবীর শান্ত, এনটিভির অনুষ্ঠান প্রধান মোস্তফা কামাল সৈয়দ ও সাবেক সচিব বজলুল করিম চৌধুরীসহ আরো অনেকে।

গতকাল রবিবার দুপুরে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, সব শেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৫২টি ল্যাবে করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে নতুন করে ঢাকায় দুটি ল্যাব সংযুক্ত হয়েছে। একটি সরকারি, আরেকটি বেসরকারি।  ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয় ১২,২২৯টি। আর পরীক্ষা করা হয় ১১,৮৭৬টি। নতুন শনাক্ত নিয়ে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৭,১৫৩ জনে।

তিনি জানান, সব শেষ মারা যাওয়া ৪০ জনের মধ্যে ৩৩ জন পুরুষ এবং সাতজন নারী। অঞ্চল বিবেচনায় ঢাকা বিভাগে ২৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে আটজন, খুলনায় দুজন এবং রংপুর ও রাজশাহী বিভাগে একজন করে রয়েছেন।

বয়স বিবেচনায় ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে পাঁচজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আটজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১১ জন এবং ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে চারজন রয়েছেন। নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ৫২টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১২,২২৯টি। পরীক্ষা করা হয়েছে ১১,৮৭৬টি। এ নিয়ে মোট তিন লাখ ৮,৯৩০টি নমুনা পরীক্ষা করা হলো।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের হার ২১.৪৩ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ২০.৭৪ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১.৩৮ শতাংশ।

করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে সবাইকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও) ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লকডাউন-পরবর্তী সংশ্লিষ্ট দিকনির্দেশনা বিশেষ করে মাস্ক ব্যবহার এবং শারীরিক দূরত্ব মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। এক সঙ্গে ধূমপান ও তামাক ব্যবহারের ক্ষতিকর দিক উল্লেখ করে এ বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা