kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৬ জুলাই ২০২০। ২৪ জিলকদ ১৪৪১

৩০ দেশের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে জরুরি বৈঠক স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

► আক্রান্ত ৩ জনই স্থিতিশীল
► ১১ জনকে হাসপাতালের আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে এবং চারজন সরকারি কোয়ারেন্টাইনে আছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



৩০ দেশের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে জরুরি বৈঠক স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

কভিড-১৯ বা নতুন করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় বাংলাদেশে কর্মরত বিশ্বের ৩০টি দেশের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে গতকাল মঙ্গলবার জরুরি বৈঠক করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র, চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, ইতালি, ইরান, ভারতের রাষ্ট্রদূতসহ অন্যরা অংশ নেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাসের ফলে বর্তমান সময়ে দেশের সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরেন। বিভিন্ন দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্যিক ও পারস্পরিক সম্পর্ক বজায় রখে এই ভাইরাস মোকাবেলায় একযোগে কাজ করার ব্যাপারেও বৈঠকে আলোচনা করেন।

রাষ্ট্রদূতরা তাঁদের নিজ নিজ দেশের করোনা পরিস্থিতির সর্বশেষ তথ্য তুলে ধরেন। যুক্তরাষ্ট্র সরকারের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার তাঁর দেশের সর্বশেষ পরিস্থিতি তুলে ধরেন এবং বাংলাদেশসহ অন্যান্য দেশের সঙ্গে পারস্পরিক যোগাযোগব্যবস্থা প্রসঙ্গে আলোচনা করেন। মিলার বাংলাদেশ সরকারকে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় দুই দিনের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার কথা জানান।

অন্যদিকে চীন, ইরান, দক্ষিণ কোরিয়া, ইতালিসহ আক্রান্ত অন্যান্য দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের ভিসা আদান-প্রদানে পরবর্তী করণীয় বিষয়ে রাষ্ট্রদূতরা স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে তাঁদের অভিমত ব্যক্ত করেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ বিষয়ে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহায়তা করা হবে বলে জানান। বৈঠকে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদও ছিলেন।

এদিকে গতকাল সরকারের করোনা বিষয়ক মুখপাত্র ও আইইডিসিআরের পরিচালক অধ্যাপক ড. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা নিয়মিত ব্রিফিংয়ে জানান, দেশে যে তিনজনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে তাঁদের অবস্থা স্থিতিশীল আছে। এ ছাড়া আরো সাতজনের নমুনা পরীক্ষা করে কারো মধ্যেই কভিড-১৯ পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, পৃথিবীর দুই-তৃতীয়াংশ দেশে স্থানীয় সংক্রমণ ঘটছে। তাই যিনি যেখানে যে দেশে আছেন, সেখানে অবস্থান করাই ভালো। কারণ আরোহণ, ট্রানজিট ও অবতরণের সময় বিমানবন্দর টার্মিনাল এবং বিমানের ভেতরে যেকোনো যাত্রী-ক্রু কভিড-১৯ সংক্রমিত যাত্রীর মাধ্যমে সংক্রমিত হতে পারেন।

আইইডিসিআরের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. এ এস এম আলমগীর কালের কণ্ঠকে জানান, তিনজন ছাড়া এখন পর্যন্ত আর কারো করোনা শনাক্ত হয়নি। গতকাল সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১১ জনকে হাসপাতালের আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে এবং চারজন সরকারি কোয়ারেন্টাইনে আছেন। এ ছাড়া বাসায় কোয়ারেন্টাইনে আছেন অনেকে।

কালের কণ্ঠ’র সিলেট অফিস জানায়, কয়েক দিন আগে সৌদি আরব থেকে দেশে আসা সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার ৭০ বছর বয়সী এক নারী জ্বর নিয়ে একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যান। রোগের বিস্তারিত শুনে চিকিৎসক করোনা সন্দেহ করে কিছু প্যাথলজিক্যাল পরীক্ষা ও হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেন। কিন্তু পরে ওই মহিলা হাসপাতাল থেকে উধাও হয়ে যান। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটেছে।

পরে চিকিৎসকদের কাছে দেওয়া বাড়ির ঠিকানায় সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে যোগাযোগ করে ওই নারীর সন্ধান পাওয়া যায়। কিন্তু তিনি হাসপাতালে ভর্তি হতে রাজি হচ্ছেন না। এ অবস্থায় বাড়িতেই তাঁকে কোয়ারেন্টাইন থাকতে বলা হয়েছে এবং পরিবারের কাউকে তাঁর সংস্পর্শে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি জানান, ইতালি থেকে পিএইচডি অর্জন শেষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ফিরে আসার পর এক শিক্ষককে ১৫ দিনের জন্য নিজ বাসায় কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

মাদারীপুর প্রতিনিধি জানান, দুই দিন ধরে মাদারীপুরবাসী করোনাভাইরাসের আতঙ্কে থাকলেও মঙ্গলবার দুপুর থেকে আতঙ্ক আরো বেশি ছড়িয়ে পড়েছে। গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে জেলায় এক ইতালিপ্রবাসী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এবং ২৯ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

গোপালগঞ্জে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত দুই রোগী গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেসবুকে) এমন একটি স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে জনমনে ভীতির সঞ্চার হয়েছে। এদিকে জেলা প্রশাসন ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এ কথা অস্বীকার করেছে।

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, বিভিন্ন দেশ থেকে ফেরত আসা ৫৯ জনকে নিজ নিজ বাসায় বিশেষ ব্যবস্থায় রাখা হয়েছে। তাদেরসহ পরিবারের অন্য সদস্যদেরও বাড়ির বাইরে না যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

মাগুরা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, গত মাসে চীন, বাহরাইন, ইতালি সফর শেষে মোট ছয় ব্যক্তি মাগুরায় ফিরেছেন। গত এক মাসের পরীক্ষায় তাঁদের শরীরে কোনো করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি জানান, শরীরের তাপমাত্রা বেশি থাকায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে আসা এক ভারতীয় নাগরিককে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। সুভাষ সরকার (৩০) নামে আগরতলার মধ্য ভুবননগর এলাকার ওই ব্যক্তি গতকাল সকালে আগরতলা বন্দর দিয়ে আখাউড়ায় আসেন। আখাউড়া বন্দরের নো ম্যানস ল্যান্ডে থাকা স্বাস্থ্য পরীক্ষার দল ওই ব্যক্তির শরীরে তাপমাত্রা বেশি নিরূপণ করে ভারতে ফেরত পাঠিয়ে দেয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহ আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। কালের কণ্ঠকে তিনি বলেন, ‘করোনাভাইরাসের প্রাথমিক লক্ষণ হচ্ছে শরীরের তাপমাত্রা বেশি থাকা। বাংলাদেশের সিলেটের উদ্দেশে আসা ওই ব্যক্তির শরীরের তাপমাত্রা বেশি থাকায় তাকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। সুস্থ হওয়ার পর বাংলাদেশে আসার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে তাকে।’

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি জানান, মণিরামপুরে সৌদিফেরত এক নারীকে দুই সপ্তাহের জন্য কোরেন্টাইনে রাখা হয়েছে। সোমবার ওই নারী গলায় ব্যথা ও কাশি নিয়ে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গেলে চিকিৎসরা তাঁকে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে পরামর্শ করে ওই নারীকে তাঁর নিজ বাড়িতে দুই সপ্তাহের জন্য কোয়ারেন্টাইনে রেখেছেন।

চাঁদপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, চাঁদপুরের মতলব উত্তরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে ইতালিফেরত এক বৃদ্ধকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সোমবার রাতে ওই বৃদ্ধের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে গেছেন আইইডিসিআরের একজন টেকনোলজিস্ট। পরে স্বজনরা তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। গত বৃহস্পতিবার ইতালি থেকে দেশে ফেরেন ৬০ বছরের ওই বৃদ্ধ। এদিকে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় চাঁদপুরে ১০০ শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা