kalerkantho

শনিবার । ৮ মাঘ ১৪২৮। ২২ জানুয়ারি ২০২২। ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

মনপুরা

[ষষ্ঠ শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বইয়ের তৃতীয় অধ্যায়ে মনপুরার উল্লেখ আছে]

ইন্দ্রজিৎ মণ্ডল   

১৯ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মনপুরা

মনপুরা বরিশাল বিভাগের ভোলা জেলার মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন ছোট্ট একটি দ্বীপ। ভোলা সদর থেকে ৮০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে বঙ্গোপসাগরের কোলঘেঁষে মেঘনার বুকে জেগে ওঠা ৮০০ বছরের পুরনো এই দ্বীপ প্রকৃতির অপার সৌন্দর্যের লীলাভূমি। উপজেলা মর্যাদাসম্পন্ন মনপুরার মোট আয়তন ৩৭৩.১৯ বর্গকিলোমিটার এবং জনসংখ্যা ৭০ হাজারেরও বেশি।

অনেকে মনে করেন, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যসহ বিভিন্ন কারণে আগন্তুকদের মন ভরিয়ে রাখত বলে এই উপজেলার নাম মনপুরা রাখা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আবার কারো কারো মতে, এখানকার বনে বাঘ, হাতিসহ বিভিন্ন হিংস্র জন্তু থাকত। মনগাজী নামের এক ব্যক্তি এখানে বাঘের আক্রমণে মারা যান। পরে তাঁর নামানুসারে এই অঞ্চলের নাম রাখা হয় মনপুরা। প্রায় ৭০০ বছর আগে আরাকান ও পর্তুগিজ জলদস্যুরা এই দ্বীপকে তাদের আশ্রয়স্থল করেছিল। লুণ্ঠিত মালামাল এখানে এনে রাখত। জলদস্যুরা সঙ্গে করে নিয়ে এসেছিল কেশওয়ালা লোমশ কুকুর। আজও এখানে কেশওয়ালা লোমশ কুকুর দেখতে পাওয়া।

এখানকার অধিবাসীদের প্রধান আয়ের উৎস কৃষি (শতকরা ৭২.৫০ ভাগ)। প্রধান কৃষি ফসল ধান, গম, ডাল, মরিচ, মিষ্টি আলু, বাদাম, গোল আলু ও শাকসবজি। প্রধান ফলফলাদি আম, কাঁঠাল, পেঁপে, কলা, আঙুর, তরমুজ। এই উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয় ৩৯টি, মাদরাসা ৩৫টি, মাধ্যমিক ৮টি এবং মনপুরা ডিগ্রি কলেজ, মনোয়ারা বেগম মহিলা কলেজ ও আব্দুল্লাহ্ আল ইসলাম জ্যাকব কলেজ অবস্থিত।

মনপুরার প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে হাজার হাজার একর ম্যানগ্রোভ বন। শীত মৌসুমে হাজার হাজার অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখর থাকে সমগ্র চরাঞ্চল। এই চরাঞ্চলে অতিথি পাখির উড়ে বেড়ানো, হরিণ পালের ছোটাছুটি, সুবিশাল নদীর বুক চিরে ছুটে চলা জেলে নৌকা, ঘুরে বেড়ানো মহিষের পাল আর আকাশছোঁয়া কেওড়া বাগান  দর্শকের মন ছুঁয়ে যায়।

এখানকার লোকদের সাক্ষরতার হার শতকরা ৪১ ভাগ। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনপুরার সংসদীয় আসন ভোলা-৪।

 

[আরো বিস্তারিত জানতে বাংলাপিডিয়া ও পত্রপত্রিকায় মনপুরা সম্পর্কিত লেখাগুলো পড়তে পারো। ]



সাতদিনের সেরা