kalerkantho

শনিবার । ২৫ জানুয়ারি ২০২০। ১১ মাঘ ১৪২৬। ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

এসএসসি প্রস্তুতি জীববিজ্ঞান

ফারহানা রহমান, সহকারী শিক্ষক (জীববিজ্ঞান), ন্যাশনাল আইডিয়াল স্কুল, খিলগাঁও, ঢাকা

৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এসএসসি প্রস্তুতি জীববিজ্ঞান

পঞ্চম অধ্যায়

খাদ্য, পুষ্টি এবং পরিপাক

উদ্দীপক : মোকলেস মিয়া তিনটি জমিতে আলু, পটোল ও বেগুনের চাষ করল। কিন্তু জমিতে নানা ধরনের পুষ্টি অভাবজনিত লক্ষণ দেখা দিল। স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তা জমির উদ্ভিদগুলোর সমস্যার কথা শুনে জানালেন, তার আলুর জমিতে পটাসিয়াম, পটোলের জমিতে ফসফরাস ও বেগুনের জমিতে নাইট্রোজেনের অভাব রয়েছে। তিনি উক্ত জমির জন্য তিন ধরনের রাসায়নিক সার প্রয়োগের পরামর্শ দিলেন। পরবর্তী বছর মোকলেস মিয়ার জমিতে কোনো সমস্যা হলো না।

ক) আদর্শ খাদ্য পিরামিড কী?

খ) খাদ্যদ্রব্য সংরক্ষণে রাসায়নিক পদার্থের ব্যবহার কেমন হওয়া উচিত?

গ) মোকলেস মিয়ার পটোলের জমিতে কী রূপ সমস্যা দেখা দিতে পারে? আলোচনা করো।

ঘ) পরবর্তী বছর মোকলেস মিয়ার জমিতে কোনো সমস্যা না হওয়ার কারণ বিশ্লেষণ করো।

উত্তর :

ক) শর্করাকে নিচের স্তরে রেখে পর্যায়ক্রমে পরিমাণগত দিক বিবেচনা করে শাকসবজি, ফলমূল, আমিষ, স্নেহ ও চর্বিজাতীয় খাদ্যকে সাজালে যে কাল্পনিক পিরামিড তৈরি হয়, তাই হলো আদর্শ খাদ্য পিরামিড।

খ) খাদ্য সংরক্ষণ এমন এক প্রক্রিয়া, যাতে খাদ্যের পচন রোধ করা হয়। খাদ্য সংরক্ষণে অননুমোদিত রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করলে খাদ্যের গুণগত মান নষ্ট হয়ে যায়। তাই খাদ্য সংরক্ষণে বিভিন্ন স্বাস্থ্যসম্মত অনুমোদিত রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করা প্রয়োজন, যাতে খাদ্যদ্রব্য পচন সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়া ও ছত্রাক সংক্রমণ করতে না পারে।

গ) মোকলেস মিয়ার পটোলের জমিতে ফসফরাসের অভাবে নিম্নলিখিত সমস্যা দেখা দিতে পারে। যথা—

i. পটোলের পাতা বেগুনি রং ধারণ করতে পারে।

ii. পাতায় মৃত অঞ্চল সৃষ্টি হবে।

iii. পাতা, ফুল ও ফল ঝরে যেতে পারে।

iv. উদ্ভিদের বৃদ্ধি বন্ধ হয়ে যাবে।

v. উদ্ভিদ খর্বাকার হবে।

ঘ) কৃষি কর্মকর্তা মোকলেস মিয়ার তিনটি জমির তিন ধরনের পুষ্টি উপাদান ঘাটতি নির্ণয় করেছেন এবং উক্ত উপাদানসমৃদ্ধ রাসায়নিক সারের মাধ্যমে তা পূরণ করতে বলেছেন। যেমন—বেগুনের জমিতে নাইট্রোজেনসমৃদ্ধ ইউরিয়া সার প্রয়োগের মাধ্যমে মাটিতে নাইট্রোজেনের পরিমাণ বাড়ানো যায়, যা মূলের মাধ্যমে উদ্ভিদ গ্রহণ করে এর স্বাভাবিক বৃদ্ধি নিশ্চিত করে। অনুরূপভাবে পটোলের জমিতে ফসফরাসসমৃদ্ধ ট্রিপল সুপার ফসফেট ও আলুর জমিতে পটাসিয়ামসমৃদ্ধ মিউরেট অব পটাশ প্রয়োগের মাধ্যমে উক্ত জমি দুটির উদ্ভিদের অভাবজনিত লক্ষণ দূর করা সম্ভব। কাজেই আগের বছরের লক্ষণ দেখে সংশ্লিষ্ট জমির খনিজ পুষ্টি উপাদানের অভাব বোঝা গেছে। মোকলেস মিয়া কৃষি কর্মকর্তার পরামর্শ মতো যে জমিতে যে উপাদানের অভাব রয়েছে সেই জমিতে সেই উপাদানসমৃদ্ধ রাসায়নিক সার প্রয়োগের মাধ্যমে পরবর্তী বছর ওই জমির সঠিক ফলন নিশ্চিত করেছে। এ জন্যই পরবর্তী বছর মোকলেস মিয়ার জমিতে কোনো সমস্যা দেখা দেয়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা