kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বিজ্ঞানচর্চা

বাস্তুসংস্থান

[পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক বিজ্ঞান বইয়ের প্রথম অধ্যায়ে ‘বাস্তুসংস্থান’ সম্পর্কে আলোচনা আছে]

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



বাস্তুসংস্থান

জীব বেঁচে থাকার জন্য পরিবেশের বিভিন্ন জড় বস্তুর ওপর নির্ভরশীল। একটি নির্দিষ্ট স্থানে বসবাসকারী জীব সম্প্রদায়ের বিভিন্ন সদস্যের সঙ্গে জড় উপাদানগুলোর পারস্পরিক ক্রিয়াই হলো ওই স্থানের বাস্তুসংস্থান।

প্রত্যেক বাস্তুসংস্থানে মূলত দুটি উপাদান রয়েছে। যথা—অজীব উপাদান ও সজীব উপাদান।

অজীব উপাদানের মধ্যে পরিবেশের মৌলিক অজৈব, জৈব ও ভৌত উপাদান অন্তর্ভুক্ত।

বাস্তুসংস্থানে প্রাণী, উদ্ভিদ, অণুজীব প্রভৃতি হলো সজীব বস্তু। সজীব উপাদান তিন প্রকার। যথা—

উৎপাদক, খাদক ও বিয়োজক।

উৎপাদক হচ্ছে বাস্তুসংস্থানের স্বভোজী জীব।

যেসব উপাদান উৎপাদকের তৈরি খাদ্যোপাদানের ওপর নির্ভরশীল, সেসব জীবকে খাদক বলে। বাস্তুসংস্থানে তিন ধরনের খাদক পাওয়া যায়। যথা—প্রথম স্তরের খাদক যেমন—ঘাসফড়িং, দ্বিতীয় স্তরের খাদক যেমন—ব্যাঙ এবং তৃতীয় বা সর্বোচ্চ স্তরের খাদক যেমন—বাঘ।

যেসব সজীব উপাদান কোনো বাস্তুসংস্থানের মৃত জীবের কলাভুক্ত জটিল জৈব যৌগগুলোকে বিশ্লিষ্ট বা বিয়োজিত করে তা থেকে কিছু অংশ নিজেরা শোষণ করে এবং বাকি অংশের জটিল যৌগগুলোকে ভেঙে সরল জৈব যৌগে পরিণত করে পরিবেশে ফিরিয়ে দেয়, তাকে বিয়োজক বলে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা