kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ কার্তিক ১৪২৭। ২০ অক্টোবর ২০২০। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

জানা-অজানা

টাইগ্রিস নদী

[ ষষ্ঠ শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বইয়ে টাইগ্রিস নদীর কথা উল্লেখ আছে ]

৭ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



টাইগ্রিস নদী

টাইগ্রিস নদীর আরেক নাম দজলা। পারস্য শব্দ ‘টিগরা’ থেকেই নাম হয়েছে টাইগ্রিস। তুরস্কের পাহাড় থেকে উত্পত্তি হয়ে নদীটি ইরাকে প্রবাহিত হয়েছে।

প্রায় ১৯০০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এ নদী ইউফ্রেটিসের (ফোরাত নদী) সঙ্গে মিলে পারস্য উপসাগরে গিয়ে ঠেকেছে। 

একসময় এই দুই নদীর (টাইগ্রিস ও ইউফ্রেটিস) অববাহিকায় গড়ে উঠেছিল মেসোপটেমীয় সভ্যতা। এ অঞ্চলকে ‘অর্ধচন্দ্রাকৃতির ভূমি’ বলেও ডাকা হয়। এখনকার ইরাক, ইরানের খুজেস্তান, সিরিয়া ও তুরস্কের উত্তরাংশ মেসোপটেমিয়ারই অংশ ছিল।

নদীর তীরঘেঁষা গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোর মধ্যে আছে দিয়ারবাকির (তুরস্ক), মসুল ও বাগদাদ (ইরাক)।

প্রাচীন আসিরীয় সভ্যতার নিনেভেহ শহরের ধ্বংসাবশেষও এ নদীর তীরে। নদীর গভীরতা বেশি না হওয়ায় ছোট নৌকাই বেশি চলে।

 

হাবিব তারেক

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা