kalerkantho

জাতীয় সংকটে রাজনৈতিক দল

সাংস্কৃতিক সংগঠনের ভূমিকাও জরুরি

১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জাতীয় সংকটে রাজনৈতিক দল

কালের কণ্ঠে গতকাল প্রকাশিত ‘সংকটে জনগণের পাশে নেই রাজনৈতিক দল’ শীর্ষক তাত্পর্যপূর্ণ প্রতিবেদনটি বিশেষভাবে বিশ্লেষণের দাবি রাখে। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের লড়াইয়ে নেতাকর্মীদের জীবনবাজি রাখতেও পিছপা হয় না রাজনৈতিক দলগুলো। অথচ জনগণের সেবায় তাদের আগ্রহ তেমন চোখে পড়ে না। জনজীবনের বড় সংকট, প্রাকৃতিক দুর্যোগে জনগণের পাশে দাঁড়াচ্ছে না দলগুলো। গত সোমবার ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। এর আগে গুজবের জের ধরে গণপিটুনিতে মানুষ হত্যা, ডেঙ্গুর মতো উদ্বেগজনক সমস্যার ক্ষেত্রে ক্ষমতাসীন বা বিরোধী দলের কোনো ভূমিকা চোখে পড়েনি। এমনকি অতীতে বিভিন্ন সময়ে জনবান্ধব কর্মসূচি নিয়ে মাঠে থাকা বামদলগুলোরও কোনো তত্পরতা নেই।’ শুধু রাজনৈতিক দল নয়, দেশের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোরও তেমন কোনো কর্মসূচি চোখে পড়ছে না। বেসরকারি সংস্থা বা এনজিওগুলোরও কোনো কর্মসূচি সেভাবে দৃশ্যমান নয়। অথচ একসময় এ ধরনের যেকোনো সংকটে রাজনৈতিক দলগুলোর পাশাপাশি সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো আক্রান্ত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াত। অতীতে এমন অনেক দৃষ্টান্ত রয়েছে। পঞ্চাশ ও ষাটের দশকে যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগে আওয়ামী লীগ, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি, কমিউনিস্ট পার্টি প্রভৃতি রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা ত্রাণসামগ্রী সংগ্রহ করে দুর্গত এলাকায় ছুটে যেত। এখনকার রাজনৈতিক সংস্কৃতি কি তাহলে বদলে গেল? রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে বড় সংকটকাল চলছে। সরকার গঠনে জনগণের মতামত বা ভোট আর মূল নিয়ামক নয়। ফলে রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে জনগণ বা জনস্বার্থ গুরুত্ব হারিয়েছে। এ জন্যই দলগুলো জনগণের পাশে দাঁড়াতে আগ্রহী হচ্ছে না। অনেকের মতে, এটি একটি বড় ধরনের সংকট। এর মধ্য দিয়ে আমাদের সমাজ ও রাজনীতির প্রতিফলন ঘটেছে। এটিই কি তাহলে সত্যি?

অথচ একটু পেছন ফিরে তাকালে আমরা দেখতে পাই সম্পূর্ণ বিপরীত চিত্র। ১৯৭০ সালের ১২ নভেম্বর একটি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে সাড়ে তিন লাখ মানুষ প্রাণ হারায় এবং ব্যাপক সম্পদ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বঙ্গবন্ধু নির্বাচনী প্রচার বন্ধ রেখে উপদ্রুত এলাকায় ছুটে গিয়েছিলেন। তাঁর নির্দেশে ঘূর্ণিঝড় দুর্গত-অসহায় মানুষের জন্য এলাকায় ক্যাম্প করে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ব্যাপক ত্রাণকার্য পরিচালনা করা হয়। তাহলে আজ কেন রাজনৈতিক দলগুলো মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে না? সমাজ ও রাজনীতি বিশ্লেষকদের মতে, এই সংকট আমাদের সমাজ ও রাজনীতির সংকটের প্রতিফলন। তাহলে কি রাজনীতি শুধুই ক্ষমতায় যাওয়ার মাধ্যম?

জাতীয় যেকোনো সংকটে রাজনৈতিক দলগুলোর পাশাপাশি সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোকেও এগিয়ে আসতে হবে। মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে।

 

মন্তব্য