kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

টিন তারকা

গার্লফ্রেন্ড একটা পেইন!

৩ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গার্লফ্রেন্ড একটা পেইন!

প্রথম শ্রেণিতে থাকতেই অভিনয় জগতে ঢু মারে। ‘বড় ছেলে’ নাটকে এবং ‘পোড়ামন-২’ ছবিতে শিশুশিল্পী হিসেবে কাজ করেছে। এখন নিয়মিত নাটক, বিজ্ঞাপনচিত্র ও চলচ্চিত্রে আছে। টিন তারকায় আজ হাজির মিরপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ইরফান মোর্শেদ খান সামির

 

দলছুট : কতগুলো কাজ করা হলো?

সামির : টিভিসি ২৫টি, নাটক ৩৭টি, শর্ট ফিল্ম, মিউজিক ভিডিও, ওভিসি, মডেলিং করা হয়েছে অনেক। এ ছাড়া দুটি ছবিতেও আমার কাজ করার সুযোগ হয়েছে পোড়ামন-২ এবং গন্তব্য। গন্তব্য এখনো মুক্তি পায়নি।

 

দলছুট : এত ছোট বয়সে এত কিছু!

সামির : আমার আসলে অভিনয়ে আসা হবে তা নিজেই জানতাম না। কিন্তু তারপর নির্মাতা মাবরুর রশিদ বান্নাহ আমাকে দেখে বলল, তুমি অভিনয় করবে? দেরি না করে চলে এলাম।

 

দলছুট : পছন্দের পরিচালক কে? কার কার অভিনয় অনুসরণ করা হয়?

সামির : পছন্দের পরিচালক মাবরুর রশিদ বান্নাহ ভাইয়া। কারণ বান্নাহ ভাইয়া না থাকলে আমি আজ এখানে আসতেই পারতাম না। এ ছাড়া ভাইয়ার কাজগুলোও অনেক সুন্দর হয়। আমি নিজেকে নিজের মতো করে গড়ে তোলার চেষ্টা করি। এ ছাড়া সব ভালো অভিনেতাকেই অনুসরণ করে থাকি।

 

দলছুট : শুটিংয়ের মজার গল্প বলো।

সামির : বিটিভির পহেলা বৈশাখের বিশেষ নাটক রহিম-রূপবান। আমি যখন জানতে পারি, আমার বোন (ভাবনা আপু) আমার রূপবান। তখন ভাবনা আপু বলে—রহিম, আর আমি বলি রূপবান। ওই সিনটা নেওয়ার সময় অনেক হাসাহাসি হচ্ছিল।

 

দলছুট : প্রিয় কয়েকটা ডায়ালগ বল।

সামির : প্রিয় অনেক ডায়ালগ আছে। একটা বলছি, ‘কী গার্লফ্রেন্ড, গার্লফ্রেন্ড একটা পেইন। শুধু বলে বিয়ে কবে করবা?’ এটা বড় ছেলে নাটকের। ‘তুই আমার শরীলে চড়ের সিল বসাইয়া দিছছ’ এটা পোড়ামন-২-এর পছন্দের একটা ডায়ালগ।

 

দলছুট : নিজের অভিনয় নিজে দেখো?

সামির : মাঝেমধ্যে নিজের কাজ নিজেই দেখতে পারি না। কারণ পড়ালেখা। এ ছাড়া শুটিং থাকে। টিভিই দেখা হয় না। পরে ইউটিউবে এলে দেখি।

 

দলছুট : হঠাৎ মোটা অঙ্কের লটারি জিতলে।

সামির : প্রথমে আম্মুকে বলব। আম্মুই আমার সব দেখে। আম্মু সবার আগে।

 

দলছুট : একদিন নাটক করতে গিয়ে দেখলে, মুখ দিয়ে কথা বের হচ্ছে  না। এখন উপায়?

সামির : এর জন্য মূকাভিনয় আছে না! ওটাও শিখে নেব তাহলে।

 

দলছুট : যদি শোনো, অভিনয়ের ওপর মোটা অঙ্কের ট্যাক্স বসেছে, কী করবে?

সামির : অনেক কষ্ট পাব। কষ্ট পেয়ে কাঁদতে কাঁদতে শহরে বন্যা ঘটিয়ে দেব। পরে বন্যার হাত থেকে বাঁচতে আবার ট্যাক্স বাতিল হয়ে যাবে।

 

দলছুট : বড় হয়ে কী কী হবে?

সামির : আমার ঘুরতে ভালো লাগে। আর অল্প সময়ে বেশিদূর ঘোরার জন্য পাইলট হওয়ার বিকল্প নেই।

 

সাক্ষাৎকার নিয়েছেন

গোলাম মোর্শেদ সীমান্ত

মন্তব্য