kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

দেখতে পারো

৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেখতে পারো

হাঙর নদী গ্রেনেড

বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেনের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস ‘হাঙর নদী গ্রেনেড’। এ নামে সিনেমাও হয়েছে একটি। পরিচালনা করেছেন প্রয়াত পরিচালক চাষী নজরুল ইসলাম। গল্পটি যেমন সত্য, তেমন বেদনাদায়ক। একজন মায়ের দৃঢ়তা ও সাহসিকতার গল্প এটি। লেখক একজন মুক্তিযোদ্ধার বিবৃতিতে উপন্যাসটি রচনা করেন, যিনি ওই মাকে নিজ চোখে দেখেছেন। যশোরের কালীগঞ্জে, হলদিগাঁয়ে দুই ছেলের জনক গফুরের দ্বিতীয় স্ত্রী বুড়ি। মা মরা সলীম ও কলীমকে মাতৃস্নেহে বড় করেন তিনি। তাঁর গর্ভেও জন্ম নেয় এক পুত্রসন্তান রইস। সে সন্তানের মুখে কোনো দিন মা ডাক শোনা হয়নি তাঁর। রইস ছিলেন বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী। যুদ্ধ শুরু হলে সলীম যুদ্ধে যোগ দেন আর কলীম বাড়ি দেখভালের জন্য রয়ে যান। গ্রামের রাজাকাররা জানিয়ে দেয়, সলীম একজন মুক্তিযোদ্ধা। সলীমকে না পেয়ে কলীমকে নির্যাতন করে বুড়ির সামনেই হত্যা করে পাকিস্তানি সেনারা। এর পরপরই দুই মুক্তিযোদ্ধা হানাদার বাহিনীর হাত থেকে বাঁচতে বুড়ির বাড়িতে আশ্রয় নেন। হানাদার বাহিনী যখন তাদের খোঁজে বাড়িতে আসে, বুড়ি তখন পড়ে যায় এক কঠিন পরীক্ষায়। একদিকে নাড়িছেঁড়া প্রতিবন্ধী রইস, অন্যদিকে দুই মুক্তিযোদ্ধা। কী হয় তারপর? বইটি তোমার চোখ ভেজাবেই। আর সিনেমাটি দেখতে পাবে ইউটিউবেই।

 

মেঘমল্লার

২০১৪ সালে বানানো মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সিনেমা ‘মেঘমল্লার’ তৈরি হয়েছে কথাসাহিত্যিক আখতারুজ্জামান ইলিয়াসের ছোটগল্প ‘রেইনকোট’ অবলম্বনে। চিত্রনাট্য রচনা ও পরিচালনা করেছেন জাহিদুর রহিম অঞ্জন। বাংলাদেশ সরকারের জাতীয় চলচ্চিত্র অনুদানের সহায়তা পেয়েছিল চলচ্চিত্রটি। মূল চরিত্র নুরুল হুদা মফস্বল শহরের সরকারি কলেজের শিক্ষক। তাঁর শ্যালক কাউকে না জানিয়ে মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেয়। এদিকে জীবনসংকটে পড়ে যান নুরুল হুদা। কারণ কলেজে তিনি পাকিস্তানপন্থী শিক্ষকদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলেন। একদিন ঘোর বর্ষণে তাঁর স্ত্রী আসমা মুক্তিযোদ্ধা ভাইয়ের রেইনকোটটি পরিয়ে দেন নুরুল হুদাকে। সেই দিন তিনি পাকিস্তানি আর্মির সামনে পড়েন এবং ভয় পেয়ে যান। কোনো কিছু না শুনে পাকি সেনারা তার ওপর নির্যাতন শুরু করে। তারপর?

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা