kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ভারতজুড়ে পিএফআইবিরোধী অভিযানে শতাধিক গ্রেপ্তার

সন্ত্রাসে আর্থিক মদদদানের অভিযোগ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতে কট্টরপন্থী সংগঠন হিসেবে পরিচিত পপুলার ফ্রন্ট অব ইন্ডিয়া (পিএফআই) এবং এর শাখা সোশ্যালিস্ট ডেমোক্রেটিক পার্টি অব ইন্ডিয়ার (এসপিডিআই) বিরুদ্ধে গতকাল বৃহস্পতিবার দেশজুড়ে অভিযান চালানো হয়েছে। জাতীয় তদন্ত সংস্থা (এনআইএ) ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) যৌথ অভিযানে শতাধিক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ অভিযানের বিষয়ে গতকাল উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকও হয়েছে।

এনআইএ সূত্রে খবর, গতকাল ভোররাত থেকে ভারতের ১১ রাজ্যে অভিযান চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলো।

বিজ্ঞাপন

দিল্লির পিএফআই সভাপতি পারভেজ এবং তাঁর ভাইকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই দুজনসহ গতকালের অভিযানে পিএফআই ও এসপিডিআইর সঙ্গে যুক্ত শতাধিক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সবচেয়ে বেশি গ্রেপ্তার করা হয়েছে কেরালা থেকে।

কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার সূত্রে আরো জানা যায়, এটাই সংস্থার সবচেয়ে বড় অভিযান। ১১ রাজ্যের শতাধিক জায়গায় একযোগে তল্লাশি চালানো হয়। এর মধ্যে প্রায় ৫০টি অভিযান হয়েছে কেরালায়। তল্লাশি চালানো হয়েছে তামিলনাড়ু, কর্ণাটক, অন্ধ্র, তেলেঙ্গানা, মধ্য প্রদেশেও। কেরালার মঞ্জেরিতে পিএফআই চেয়ারম্যান ও এম এ সালেমের বাড়িতেও অভিযান চলে। কেরালা থেকে মোট ২২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মহারাষ্ট্র ও কর্ণাটক থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ২০ জন করে। এনআইএ সূত্রে খবর, সন্ত্রাসে আর্থিক মদদদান, প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার অভিযোগ রয়েছে পিএফআইর বিরুদ্ধে।

গতকালের অভিযানের খুঁটিনাটি নিয়ে এদিনই বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল ছাড়াও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় ভাল্লা, এনআইর ডিরেক্টর জেনারেল দিনকর গুপ্ত বৈঠকে হাজির ছিলেন। সূত্রের খবর, সন্ত্রাসবাদ রুখতে কড়া পদক্ষেপের বিষয়েই আলোচনা হয়েছে।

সন্ত্রাসে আর্থিক মদদ, বেআইনি আর্থিক লেনদের মতো অভিযোগে বেশ কিছুদিন ধরেই কেন্দ্রের নজরে রয়েছে কট্টরপন্থী সংগঠন পিএফআই ও এসপিডিআই। সন্ত্রাসে মদদের জন্য পশ্চিম এশিয়ার দেশগুলো থেকে এই গোষ্ঠী অর্থ সংগ্রহ করছিল বলে অভিযোগ। হাওয়ালার মাধ্যমে সেই টাকা লেনদেনের অভিযোগও রেয়েছে। সূত্র : এই সময়

 

 



সাতদিনের সেরা