kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ১৯ মে ২০২২ । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  

‘সামনের নির্বাচনের বৈধতা নিয়ে সন্দেহ আছে’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘সামনের নির্বাচনের বৈধতা নিয়ে সন্দেহ আছে’

জো বাইডেন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে এক বছর পূর্তির দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে নিজের ব্যাপারে জো বাইডেনের মন্তব্য, ক্ষমতার প্রথম বছরেই এত কাজ করেননি আর কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্ট। আর বিরোধীদের ব্যাপারে ভাষ্য, রিপাবলিকানদের কারণেই আসন্ন মধ্যবর্তী নির্বাচনের বৈধতা নিয়ে তাঁর ভেতরে সন্দেহ দেখা দিয়েছে।

গত বছর ২০ জানুয়ারি প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন ডেমোক্র্যাট নেতা বাইডেন। প্রেসিডেন্ট হিসেবে দ্বিতীয় বছরে পা দেওয়ার আগের দিন গত বুধবার হোয়াইট হাউসে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

একই দিন তাঁর ভোটাধিকার সংস্কার প্রচেষ্টা আটকে দেয় সিনেট। মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষে ভোটাধিকার সংস্কার সংক্রান্ত বিলটি আটকে যাওয়ায় ক্ষুব্ধ বাইডেন সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘নির্বাচন বৈধ হবে কি না, সেটা ভোটাধিকার সংস্কারের সঙ্গে সরাসরি সম্পর্কিত। ’ চলতি বছর ৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য মধ্যবর্তী নির্বাচনে ভোট কারচুপির আশঙ্কা সম্পর্কে জানতে চাইলে বাইডেন ওই মন্তব্য করেন। তিনি আরো বলেন, ‘ওই নির্বাচন বৈধ হবে, তেমনটা আমি বলতে পারছি না। ’

নিজের কর্মপরিধি সম্পর্কে বাইডেনের দাবি, ‘এক বছরে এত কাজ করেছেন, এমন কোনো প্রেসিডেন্টের কথা কি আপনারা মনে করতে পারেন?’ তিনি আরো বলেন, ‘ভবিষ্যতেও কোনো প্রেসিডেন্ট এত কাজের তালিকা নিয়ে বসবে না, যত কাজের তালিকা আমি করে রেখেছি। ’

জরিপে বাইডেনের জনপ্রিয়তা পড়তির দিকে। সে ব্যাপারে জানতে চাইলে এককথায় প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমি এসব জরিপে বিশ্বাস করি না। ’ গ্যালাপের সাম্প্রতিক জরিপে দেখা যায়, ক্ষমতা গ্রহণের শুরুতে বাইডেনের প্রতি সমর্থনের হার ছিল ৫৭ শতাংশ। এ বছরে সেটা কমে ৪০ শতাংশ হয়েছে। জরিপে বিশ্বাস করেন না বললেও কিছু ভুল হয়েছে স্বীকার করেন এবং এর সাফাই গাইতে গিয়ে তিনি বলে, ‘বছরটা চ্যালেঞ্জে ভরা ছিল। ’ এ ছাড়া বিভিন্ন এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে গিয়ে তিনি কংগ্রেসে রিপাবলিকানদের প্রচণ্ড বিরোধিতার শিকার হবেন, সেটা ‘ভাবতেও পারেননি’ বলে মন্তব্য করেন।

মুদ্রাস্ফীতির লাগাম টানা কঠিন হবে : যুক্তরাষ্ট্রে রেকর্ড মুদ্রাস্ফীতির লাগাম টানা কঠিন হবে স্বীকার করে নিয়ে বাইডেন সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘সরবরাহ স্বাভাবিক হলে মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। ’ করোনাভাইরাস মহামারির কারণে সব পণ্যের সরবরাহ বিঘ্নিত হচ্ছে উল্লেখ করেন তিনি বলেন, ‘গ্যাস পাম্প, মুদি দোকান, সবখানে মানুষ সমস্যাটা দেখতে পাচ্ছে। ’ সংকট থেকে উত্তরণে ‘অনেক কাজ করতে হবে এবং কঠিন পথ পাড়ি দিতে হবে’ মন্তব্য করে তিনি আরো বলেন, কংগ্রেসে তাঁর প্রস্তাব পাস হওয়াটাও জরুরি। ‘বিল্ড ব্যাক বেটার’ শীর্ষক নির্বাচনী অঙ্গীকার পূরণে তিনি বিশাল অঙ্কের উন্নয়ন বাজেট প্রস্তাব করেছেন, যা সিনেটে আটকে গেছে। প্রস্তাবটি পাস হলে পরিস্থিতির উন্নয়ন হতো বলে মনে করেন বাইডেন।

এসবের পরও এক বছরে বিপুল উন্নতি হয়েছে বলে দাবি করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, ‘যখন আমি শপথ নিই, তখন ২০ লাখ লোককে (করোনাভাইরাসের) টিকা দেওয়া হয়েছিল। আজ পূর্ণ টিকা নেওয়া আমেরিকানের সংখ্যা ২১ কোটি।

সূত্র : এএফপি



সাতদিনের সেরা