kalerkantho

সোমবার । ৬ বৈশাখ ১৪২৮। ১৯ এপ্রিল ২০২১। ৬ রমজান ১৪৪২

ইরানের পরমাণুচুক্তি

ভিয়েনা বৈঠক যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়াই

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইরানের পরমাণুচুক্তিতে যুক্তরাষ্ট্রকে ফেরানোই যেখানে মূল আলোচ্য, সেখানে দেশটিকে বাদ দিয়েই গত মঙ্গলবার অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় বৈঠক হয়েছে। ইরানের আপত্তির মুখে যুক্তরাষ্ট্রকে বাদ দিয়ে এই বৈঠক করে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় থাকা ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। এর পরও এই বৈঠকের মধ্য ‘নতুন দিগন্ত খুলেছে’ বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। ২০১৫ সালে হওয়া জয়েন্ট কম্প্রিহেনসিভ প্ল্যান অব অ্যাকশন (জেসিপিওএ) শীর্ষক চুক্তি থেকে ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নেন তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাঁর উত্তরসূরি জো বাইডেন জানিয়েছেন, ইরানের ওপর ট্রাম্পের পুনর্বহাল করা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে তিনি চুক্তিতে ফিরতে রাজি। এদিকে ইরান জানিয়েছে, ধাপে ধাপে নয়, একসঙ্গে সব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করলে তবেই তারা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনায় বসবে। এ নিয়ে মতান্তরের জেরে গত মঙ্গলবার ভিয়েনায় যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়াই ইরানের সঙ্গে বৈঠক করতে বাধ্য হয় ইইউ। মার্কিন প্রতিনিধিরা ভিয়েনায় উপস্থিত থাকলেও ইরানের অনড় অবস্থানের কারণে তাঁরা বৈঠকে যোগ দেননি। বৈঠকে কিছু ব্যাপারে ইইউয়ের সঙ্গে একমত হয় ইরান। দেশটির ওপর থেকে সব মার্কিন নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নিতে কারিগরি ও কূটনৈতিক তত্পরতা অব্যাহত রাখার ব্যাপারে সমঝোতা হয়েছে। এ ছাড়া নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার এবং জেসিপিওএ পুরোপুরি বাস্তবায়নের বিষয় দেখভাল করার জন্য আলাদা দুটি বিশেষজ্ঞদল গঠন করা হয়েছে। এই দুটি দল তাদের প্রচেষ্টার ফলাফল পরমাণু সমঝোতাবিষয়ক যৌথ কমিশনে উত্থাপন করবে। বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র না থাকলেও যেসব সমঝোতা হয়েছে, সেসব নিয়ে আশাবাদী ইরানের রাষ্ট্রপ্রধান রুহানি। গতকাল বুধবার তেহরানে মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে তিনি বলেন, ‘গতকাল এক নতুন দিগন্ত খুলে গেছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমরা শুধু (ওয়াশিংটরে কাছ থেকে) সততা আর আন্তরিকতা চাই। তারা যদি সেটা দেখাতে পারে, তবে প্রয়োজন হলে খুব অল্প সময়ের মধ্যে আমরা (জেসিপিওএভুক্ত) অন্য সব পক্ষের জন্য সমঝোতায় পৌঁছতে পারব বলে আমি মনে করি।’ সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা