kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ জানুয়ারি ২০২০। ১০ মাঘ ১৪২৬। ২৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ট্রাম্পের টুইট

দোষ করিনি তবু অভিশংসন করা হচ্ছে, এটা অন্যায়

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দোষ করিনি তবু অভিশংসন করা হচ্ছে, এটা অন্যায়

তাঁকে অযথা ‘অভিশংসন’ করা হচ্ছে। তাঁর কোনো দোষ নেই—এমনটাই মনে করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত শুক্রবার রাতে তাঁর টুইটে রীতমতো ক্ষোভ প্রকাশ করে ট্রাম্প লিখেছেন, ‘আমি কোনো দোষ করিনি। আমাকে অযথা ইমপিচ করা হচ্ছে। এটা অত্যন্ত অন্যায়।’ ওই সময় ট্রাম্প দুই ঘণ্টার মধ্যে ১২৩টি টুইট করেন। ওই দিনই কংগ্রেসের বিচার বিভাগীয় কমিটিতে ট্রাম্পের অভিশংসন বিষয়ক ডেমোক্রেটিক পার্টির আনা দুটি প্রস্তাব পাস হয়।

আগামী বছর যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, অভিশংসনই আগামী দিনে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে শক্তিশালী হাতিয়ার হয়ে উঠতে পারে বিরোধীদের।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে অভিশংসন করার ব্যাপারে দুটি ধারা উত্থাপন করেন ডেমোক্র্যাটরা। এগুলো হচ্ছে—জাতীয় নিরাপত্তাকে অগ্রাহ্য করা এবং কংগ্রেসের কাজে বাধা সৃষ্টি। ধারা দুটি মার্কিন কংগ্রেসের বিচার বিভাগীয় কমিটি অনুমোদন করায় হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে ভোটাভুটির তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে। হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে বিরোধী দল ডেমোক্রেটিক পার্টির। ফলে সেখানে অভিশংসনের প্রস্তাবটি পাস হয়ে যাবে বলেই মনে করা হচ্ছে। এরপর প্রস্তাবটি আসবে ১০০ সদস্যের সিনেটে। সেখানে অবশ্য ট্রাম্পের দল রিপাবলিকান পার্টিরই সংখ্যাগরিষ্ঠতা। ইমপিচমেন্ট প্রস্তাব আনার ব্যাপারে যাঁরা মূল উদ্যোগ নিয়েছেন, সেই র‌্যাডিক্যাাল লেফট (অতিবামপন্থী) ও ডেমোক্র্যাটদের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট গতকালের টুইটে। লিখেছেন, ‘র‌্যাডিক্যাল লেফট আর নিষ্কর্মা ডেমোক্র্যাটরা সবারই ঘৃণার পাত্র হয়ে উঠছে। আমাদের দেশের পক্ষে তাদের মতো খারাপ আর কিছু হয় না।’ মার্কিন প্রেসিডেন্টের মতে, এই ইমপিচমেন্ট আদতে বিরোধীদের একটা ‘ধাপ্পাবাজি’ আর ‘রাজনৈতিক চাল’। ট্রাম্প বলেছেন, ‘এটা একটা ধাপ্পাবাজি। একটা রাজনৈতিক চাল। ইমপিচমেন্টের কথা ওঠে খুব জরুরি কিছু ঘটলে।’ সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা