kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

রঙিলা পিঠা

দেখতে রঙিন, খেতেও সুস্বাদু। এমন পিঠা পাতে এলে না খেয়ে উপায় নেই। বিশেষ করে বাচ্চাদের জন্য রঙিন পিঠা খুবই লোভনীয়। রেসিপি দিয়েছেন জান্নাত আরা এ্যানি

১ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৭ মিনিটে



রঙিলা পিঠা

গজিয়া

উপকরণ

ময়দা দেড় কাপ, লবণ আধা চা চামচ, পানি পরিমাণমতো, বাটার/ঘি ১ চা চামচ।

পুরের জন্য : সুজি আধা কাপ, শুকনা নারকেল কোরানো আধা কাপ, আইসিং সুগার আধা কাপ, ড্রাই ফ্রুটস যেমন—পেস্তা, কাজুবাদাম কুচি, মোরম্বা কুচি ৩-৪ কাপ, তেল ভাজার জন্য, পালংশাকের রস সবুজ রঙের জন্য।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.   প্রথমে একটা বাটিতে ময়দা ও ঘি ভালো করে মিশিয়ে নিন। অর্ধেকটা পানি দিয়ে খামির/ডো তৈরি করুন। বাকি অর্ধেকটা ময়দা শাকের রস দিয়ে খামির তৈরি করুন। ডো দুটি আধা ঘণ্টার জন্য রেখে দিন।

২.   ফ্রাইপ্যানে ঘি দিয়ে সুজি ভেজে নিন। তারপর ড্রাই ফ্রুটস দিন এবং আইসিং সুগার ভালো করে মিশিয়ে নিন। এলাচি গুঁড়া দিয়ে নাড়াচাড়া করে নামিয়ে ঠাণ্ডা করুন।

৩.   এবার সাদা খামির ও সবুজ খামির দুটি রুটি তৈরি করুন। গ্লাস দিয়ে গোল আকারে পুরো রুটি কেটে নিন। সবুজ রুটিটার মাঝখানে ছুরি/কাটার দিয়ে কেটে নিন। তারপর সবুজ রুটির ওপর সাদা রুটিটা লাগিয়ে নিন। সাদা রুটির মাঝে নারকেল পুর দিয়ে মুখ ভালো করে এঁটে দিন। সাইডগুলো ভালো করে মুড়ে দিন।

৪.   এবার চুলার আঁচ কমিয়ে একটু সময় নিয়ে ডুবো তেলে পিঠাগুলো ভেজে নিন।


মাওয়া পিঠা

উপকরণ

ময়দা ২০০ গ্রাম, দই ২ চা চামচ, লবণ একচিমটি, ঘি ৫০ গ্রাম, বেকিং পাউডার একচিমটি, পানি ২-৩ টেবিল চামচ।

সিরার জন্য : চিনি ৫০০ গ্রাম, পানি ১ কাপ।

পুরের জন্য : ঘি ২ চা চামচ, মাওয়া ২০০ গ্রাম, চিনি ২০০ গ্রাম, এলাচি গুঁড়া আধা চা চামচ, কুচি করা বাদাম আধা কাপ। তেল (পিঠা ভাজার জন্য)।

যেভাবে তৈরি করবেন

১.   ময়দা, দই, লবণ, ঘি, বেকিং পাউডার একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। এরপর পানি মিশিয়ে ডো তৈরি করুন। আধা ঘণ্টা রেখে দিন।

২.   চিনি ও পানি দিয়ে সিরা তৈরি করে নিন।

৩.   পুরের জন্য ফ্রাইপ্যানে ঘি নিয়ে বাদামগুলো ভেজে নিন। তারপর মাওয়া, চিনি ও এলাচি গুঁড়া দিয়ে নেড়েচেড়ে নামিয়ে নিন।

৪.   ময়দা ও পানি দিয়ে পেস্ট তৈরি করে রেখে দিন।

৫.   এবার খামির থেকে কিছুটা নিয়ে রুটির মতো বেলে নিন। রুটিটা চারভাগে ভাগ করুন। মাঝখানে কাটা যাবে না। একটি অংশে সামান্য পুর দিয়ে এর সামনের অংশ দিয়ে চারপাশে ময়দার পেস্ট দিয়ে মুখটা খুব ভালো করে এঁটে দিন। বাকি দুই অংশ পাতলা লম্বালম্বি কেটে নিন। এক সাইডের একটা অংশ এবং আরেক সাইডের একটা অংশ। এভাবে সব অংশ পুরভরা অংশে লাগিয়ে নিন। তারপর পিঠা ফোল্ড করে মুখটা খুব ভালো করে এঁটে দিন। ডুবো তেলে হালকা আঁচে পিঠাগুলো ভেজে নিন। সিরার মধ্যে কিছুক্ষণ রেখে দিন। তারপর পরিবেশন করুন।


ভাপা পুলি

উপকরণ

ডোর জন্য : ময়দা ২ কাপ, লবণ ৩-৪ চা চামচ, পানি দুই কাপ (পরিমাণমতো)।

পুরের জন্য : কোরানো নারকেল আধা কাপ, আতপ চালের সুজি আধা কাপ, ঘন দুধ দেড় কাপ, লবণ সিকি চা চামচ, খেজুরের গুড় আধা কাপ, এলাচি গুঁড়া সামান্য।

যেভাবে তৈরি করবেন

১.   প্রথমে প্যানে নারকেল, আতপ চালের সুজি, ঘন দুধ, লবণ, খেজুরের গুড় ও এলাচি গুঁড়া একসঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে নিন। মিডিয়াম আঁচে পুর তৈরি করে নিন।

২.   ফুটন্ত গরম পানিতে লবণ ও ময়দা দিয়ে খামির তৈরি করে নিন।

৩.   পুলি পিঠা রাইস কুকার অথবা পাতিলে ভাপ দিয়ে নিতে পারেন। পাতিলে পানি গরম করতে বসিয়ে দিন।

৪.   পিঠা তৈরির জন্য প্রথমে খামির দিয়ে ছোট ছোট বল তৈরি করে নিন। ভেজা কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখুন। একটা বল নিয়ে ছোট লম্বাটে রুটির মতো বেলে নিন। তারপর রুটিটার মাঝে পুর ভরে লম্বাটে আকার করে মুখটা এঁটে দিন। এরপর ওপর থেকে নিচ পর্যন্ত কাঁচি দিয়ে কেটে নিন। এভাবে পিঠা তৈরি করে নিন।

৫.   চুলায় পাতিলের পানি ফুটে উঠলে এর ওপর একটি জালি দিয়ে নিন। জালির ওপর পাতলা সুতি কাপড় দিয়ে নিন। পিঠাগুলো জালির ওপর রেখে ঢাকনা দিয়ে ডেকে দিন। ১২ থেকে ১৫ মিনিট সময় লাগবে পিঠাগুলো ভাপ দিয়ে নিতে। গরম বা ঠাণ্ডা পছন্দমতো পরিবেশন করুন।


রঙিলা মালাই

উপকরণ

পুরের জন্য মাওয়া ২০০ গ্রাম, গুঁড়া চিনি ১২৫ গ্রাম, ঘি ১ টেবিল চামচ, এলাচি গুঁড়া আধা চা চামচ, কাজু+পেস্তা+কাঠবাদাম কুচি ১ টেবিল চামচ করে।

ডোর জন্য : ময়দা ২০০ গ্রাম, ঘি ৩ টেবিল চামচ, লবণ একচিমটি, পানি পরিমাণমতো।

সিরার জন্য : পানি দেড় কাপ, চিনি দেড় কাপ।

লেয়ারের মধ্যে পেস্টের জন্য : ঘি ২ টেবিল চামচ, কর্নফ্লায়ার ২ টেবিল চামচ।

কালার : লাল+সবুজ (বিট ও পালংশাকের রস ব্যবহার করতে পারেন)।

যেভাবে তৈরি করবেন

১.   ফ্রাইপ্যানে ঘি দিয়ে বাদামগুলো ভেজে নিন। এর মধ্যে মাওয়া ও এলাচি গুঁড়া দিয়ে নাড়াচাড়া করে নামিয়ে ফেলুন। ঠাণ্ডা হলে এর মধ্যে গুঁড়া চিনি মিশিয়ে নিন এবং ছোট ছোট বল তৈরি করে রাখুন।

২.   ঘি ও কর্নফ্লায়ার মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে রাখুন লেয়ারের মধ্যে দেওয়ার জন্য।

৩.   ময়দা, ঘি, লবণ ভালো করে মিশিয়ে নিন। এরপর অল্প অল্প করে পানি দিয়ে শক্ত ডো তৈরি করে নিন। ডো আধা ঘণ্টা ডেকে রাখুন।

৪.   পানি ও চিনি মিশিয়ে সিরা তৈরি করে নিন।

৫.   ডো থেকে ছোট ছোট দুটি অংশ নিয়ে লাল ও সবুজ কালার করে লম্বা করে তিনটা রুটি বেলে নিন। সাদা বড় রুটির ওপরে হাত দিয়ে লাল রুটিটা লাগিয়ে নিন। সবুজ রুটিটাও একইভাবে সাদা রুটির ওপর লাগিয়ে নিন। এবার ঘি ও কর্নফ্লাওয়ারের পেস্ট পুরো রুটির ওপর লাগিয়ে নিন। এক টেবিল চামচ শুকনো ময়দা ছিটিয়ে দিন। পুরো রুটিটা রোলের আকারে ভাঁজ করে নিন। রোলগুলো ৫-৬টি অংশে ছুরি দিয়ে কেটে নিন। রাউন্ড রোলগুলো ওপর থেকে কেটে নিন। ১০ থেকে ১২ পিস হবে। এবার হাতের তালু দিয়ে চাপ দিন। গোল লুচির মতো হলে এর মাঝে পুর/বল দিয়ে ওপরে আরেকটি রুটি দিয়ে ঢেকে দিন। সাইডের মুখগুলো খুব ভালো করে মুড়িয়ে নিন। ডুবো তেলে অল্প আঁচে খাজাগুলো ভেজে নিন।

৬.   চিনির সিরায় ১০ মিনিট রেখে তারপর পরিবেশন করুন।


পুর ভরা ঝাল ডালিয়া

উপকরণ

ডোর জন্য : ময়দা দেড় কাপ, লবণ আধা চা চামচ, তেল ২ টেবিল চামচ, গাজরের রস পরিমাণমতো।

সাদা ডোর জন্য : ময়দা আধা কাপ, লবণ সামান্য, তেল আধা টেবিল চামচ, পানি পরিমাণমতো।

পুরের জন্য : মাংসের কিমা ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, লবণ আধা চা চামচ, তেল ৩ টেবিল চামচ, আদা-রসুন বাটা ১ চা চামচ, জিরা সিকি চা চামচ, ধনেগুঁড়া সিকি চা চামচ, গরম মসলা গুঁড়া আধা চা চামচ, গোলমরিচের গুঁড়া সিকি চা চামচ।

যেভাবে তৈরি করবেন

১.   বাটিতে ময়দা, লবণ, তেল ভালো করে মিশিয়ে নিন। তারপর গাজরের রস দিয়ে ডো তৈরি করে নিন। একইভাবে সাদা খামির/ডো তৈরি করে নিন।

২.   পুর মাংসের মতো করে রান্না করে নিন। পানি দেওয়ার প্রয়োজন নেই। কোনো রকম ঝোল থাকবে না।

৩.   সাদা ও কমলা খামির দুটি মথে নিন। কমলা খামির ডো থেকে সিকি অংশের একটু কম অংশ নিয়ে মোটা করে রুটি বেলে নিন। রুটিটার মাঝে আধা চা চামচ পুর নিয়ে গোল বল করে নিন। তারপর সাদা ডো থেকে ১ টেবিল চামচ নিয়ে পাতলা ছোট রুটি বেলে নিন। কমলা বলটার ওপরে সাদা রুটিটা লাগিয়ে নিন। তারপর নিচের দিক থেকে কাঁচি দিয়ে পাপড়ির মতো কেটে নিন। দ্বিতীয় লাইনে দুটি পাপড়ির মাঝে একটা করে পাপড়ি কেটে নিন। এভাবে পুরো বলটা কাঁচি দিয়ে ফুলের আকারে কেটে নিন। পিঠা তৈরি হলে ডুবো তেলে হালকা আঁচে ভেজে পরিবেশন করুন।

মন্তব্য