kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ কার্তিক ১৪২৭। ২৯ অক্টোবর ২০২০। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

টি-শার্টের সময় এখন

এই সময়ে টি-শার্ট ছেলেদের জন্য জুতসই পোশাক। ফ্যাশনেবল আর ট্রেন্ডিও। আরামের কথা ভেবে এই পোশাকে নকশার বৈচিত্র্যেও মনোযোগী হাউসগুলো। বিস্তারিত জানাচ্ছেন এ এস এম সাদ

২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে




টি-শার্টের সময় এখন

মডেল : রাব্বী, পোশাক : লা রিভ, ছবি : কাকলী প্রধান

শোরুমে নতুন ফ্যাশনের হাওয়া

আবহাওয়ায় এখনো ভ্যাপসা গরম। সে কথা মাথায় রেখেই বিভিন্ন ব্র্যান্ডের শোরুমে ছেলেদের জন্য আনা হয়েছে নানা নকশার টি-শার্ট কালেকশন। কেন টি-শার্ট? কারণ এই পোশাক ম্যাটেরিয়াল আর টেক্সচারের জন্য বেশ আরামদায়ক যেকোনো ঋতুতে। নকশার বৈচিত্র্যও আনা যায় নানাভাবে। করোনার কারণে কাপড় পরিষ্কার করতে হয় প্রতিদিনই। সে বিবেচনায়ও এই পোশাকের গ্রহণযোগ্যতা এখন ছেলেদের কাছে বেশি। ক্যাজুয়াল বা নন-ফরমাল তো বটেই, ছেলেরা এখন ব্লেজার কিংবা কোটের সঙ্গে মিলিয়ে ফরমাল লুকেও পরছে টি-শার্ট।

ছেলেদের ফ্যাশন নিয়ে কাজ করে যেসব ব্র্যান্ড, যেমন ক্যাটস আই, ইজি, টুয়েলভ, জেন্টল পার্ক, লা রিভ কিংবা বিশ্বরঙ—এদের শোরুমগুলোতে গেলে দেখা মিলবে নতুন ডিজাইনের টি-শার্টের। অন্যান্য পোশাকের সঙ্গে    টি-শার্টের ফ্যাশনেও এসেছে পরিবর্তন। ইজি ফ্যাশন ব্র্যান্ডের ডিজাইনার তৌহিদ চৌধুরী বলেন, ‘টি-শার্ট আরামদায়ক হতে হবে। মিহি বুননের হলে তাতে অনেকটা স্বাচ্ছন্দ্য বোধ হয়। এখন গরম, তাই শার্ট থেকে টি-শার্ট পরতেই বেশি আরাম লাগবে সবার। এ ছাড়া টি-শার্টে সৌন্দর্য বাড়াতে প্রিন্ট করা হয়েছে। এই প্রিন্টের মধ্যেও এসেছে নতুনত্ব। উজ্জ্বল রঙের পাশাপাশি পলো টি-শার্টে সাদা, ঘিয়ে, বাদামি, হালকা লেবু রংসহ নানা রঙে নকশা করা হয়েছে।’

টুয়েলভের ফাশন ডিজাইনার

বুশরা নুজহাত বলেন, ‘এখন গরম বলে ছেলেরা টি-শার্টে ঝুঁকছে বেশি। টি-শার্টের ডিজাইনের সঙ্গে কাপড়ের মানেও বৈচিত্র্য এনেছে হাউসগুলো।’

আরাম দেবে

আরামের জন্যও টি-শার্ট বেছে নিচ্ছে অনেকে। লকডাউনের পর খুলে গেছে প্রায় সব অফিস। আরামের কথা মাথায় রেখেই অফিসের পোশাকেও যুক্ত হচ্ছে টি-শার্ট। অফিসে গিয়ে মিটিংয়ের সময় ওপরে শুধু একটা ব্লেজার পরে অনায়াসে মিটিং সেরে ফেলছে অনেকে।

সে ক্ষেত্রে টি-শার্টটির মান হতে হবে ভালো ও আরামদায়ক। টি-শার্টের ডিজাইন যেমনই হোক না কেন, মান নির্ভর করে ম্যাটেরিয়ালের ওপর। টি-শার্টের সুতার মান ভালো হলে তবেই  আরাম পাওয়া যাবে।

টি-শার্ট ক্যাজুয়ালি পরতেই পছন্দ করে তরুণরা। তবে ব্লেজার বা কোট চাপিয়ে নিলে এই পোশাকেই চলে আসবে ফরমাল লুক

 

দামে সাশ্রয়ী, পরিষ্কারেও সহজ

ফুলহাতা টি-শার্টের দাম মধ্যবিত্তের নাগালেই থাকে। ব্র্যান্ডের শোরুমগুলোতে টি-শার্টের দাম পড়বে ৬০০ থেকে ১৫০০ টাকার মধ্যে।

এ ছাড়া নিউ মার্কেট, ঢাকা কলেজ গেট, বদরুদ্দোজা মার্কেট, আজিজ সুপারমার্কেট বা বঙ্গবাজারে টি-শার্টের দাম শুরু হয়েছে ২০০ টাকা থেকে। শার্টের তুলনায় টি-শার্ট পরিষ্কার করা বেশি সহজ এবং সময়ও কম লাগে। শার্ট ধোয়ার পর ইস্ত্রি করতে হয়। কিন্তু টি-শার্ট এমনিতেও পরে নেওয়া যায়।

খেয়াল রাখা জরুরি

যতই দামি ব্র্যান্ডের শোরুম থেকে     টি-শার্ট কেনা হোক না কেন, ধোয়ার পর রোদে না দিয়ে ছায়ায় শুকাতে দিলে সেটা কাপড়ের জন্য ভালো। কারণ সূর্যের তাপে অনেকক্ষণ কাপড় থাকলে রং চটে যেতে পারে। আর বাইরে পরার টি-শার্ট বেশি ক্ষারযুক্ত পাউডারে না ধুয়ে একটু কম ক্ষারযুক্ত পাউডারে ধুতে হবে।

মন্তব্য