kalerkantho

সোমবার । ২৬ আগস্ট ২০১৯। ১১ ভাদ্র ১৪২৬। ২৪ জিলহজ ১৪৪০

রূপচর্চা

ঘরে চুল রাঙাবেন?

সব চুলে রং না করে কিছু অংশ হাইলাইট এবং আগার চুল লোলাইট করার ফ্যাশন জনপ্রিয় এখন। চুল রাঙাতে বাজারে আছে নানা ধরনের হেয়ার কালার। তবে ঘরে বসে কম খরচে রাঙাতে চাইলে জানতে হবে সঠিক উপায়, মানতে হবে সতর্কতা। বিস্তারিত জানাচ্ছেন রেড বিউটি স্যালনের রূপবিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন

৮ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ঘরে চুল রাঙাবেন?

রং করার আগে

পুরনো একঘেয়ে লুক বদলে ফেলতে চাইলে হেয়ার স্টাইল বদলে নেওয়া সবচেয়ে সহজ সমাধান। ঝটপট লুক বদলে হেয়ার কালার বেশ কার্যকর। তবে চুলের রং আগে মাথায় রাখতে হবে ত্বকের রং, চুলের ধরন, হেয়ার কাট ও ব্যক্তিত্বের বিষয়গুলো। বাজারে স্থায়ী ও অস্থায়ী দুই ধরনের চুলের রং পাওয়া যায়। চুলের রং নিয়ে দ্বিধায় থাকলে প্রথমে অস্থায়ী রং করে দেখে নিতে পারেন, সেটা আপনাকে কেমন মানাচ্ছে। অনেক দিন চুল না কাটলে রং করানোর আগে চুলে একটা নতুন কাট দিতে পারেন। বিশেষ করে লোলাইট—অর্থাৎ নিচের দিকে রং করতে চাইলে চুল ট্রিম করে নেওয়া ভালো। চুল রং করার আগের দিন শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। ঘরে বসে চুলে রং দেওয়ার আগে অবশ্যই প্যাকেটের গায়ে লেখা নির্দেশনা ভালো করে পড়ে নিতে হবে।

 

রং করার সময়

চুলে রং করার সময় গাঢ় রঙের পুরনো বা বাতিল পোশাক পরে নিন। এ সময় অসাবধানতায় কপাল, কানের পাশে বা ঘাড়ে রঙের দাগ লাগতে পারে। এসব অংশে পেট্রলিয়াম জেলি মেখে নিলে এ সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে। হাতের কাছে ওয়েট টিস্যু রাখুন। ত্বকের কোনো অংশে ডাই লেগে গেলে যত দ্রুত সম্ভব ওয়েট টিস্যু দিয়ে মুছে ফেলুন। আর মেঝেতে পুরনো খবরের কাগজ বা প্লাস্টিক বিছিয়ে নিলে মেঝেতে দাগ হওয়ার আশঙ্কা থাকবে না। চুলে রং লাগানো হয়ে গেলে একটা শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে চুল আটকে ফেলুন। চুলে কতক্ষণ ডাই লাগিয়ে রাখতে হবে, সেটা প্যাকেটের গায়ের নির্দেশনায় স্পষ্ট করে লেখা থাকে। সেই নিয়ম মেনে চলুন। কেননা ব্র্যান্ডভেদে চুলে রং বসার সময়ের পার্থক্য হতে পারে। নির্দিষ্ট সময় পার হলে শাওয়ার ক্যাপ খুলে স্বাভাবিক পানি দিয়ে চুল ও স্কাল্প ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।

 

পরবর্তী যত্ন

চুলে রং করার পরদিন শ্যাম্পু করতে হবে। রং করা চুলের জন্য আলাদা শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার পাওয়া যায়। সেই শ্যাম্পু ব্যবহারের পরামর্শ দিলেন আফরোজা পারভীন। কারণ সাধারণ শ্যাম্পুর চেয়ে কালার চুলের শ্যাম্পুতে ডিটারজেন্টের পরিমাণ তুলনামূলক কম থাকে। তাই চুলের রঙের কোনো ক্ষতি হয় না। চুল রং করার পর প্রথম দুই দিন চুলে সরাসরি সূর্যের আলো লাগানো যাবে না। বাইরে যেতে হলে স্কার্ফ দিয়ে চুল ভালো করে ঢেকে নিন এবং ছাতা ব্যবহার করুন। হেয়ার ডাই চুল রুক্ষ করে ফেলে। তাই রং করা চুলে শ্যাম্পু করার পর অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। এ ছাড়া সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন রাতে চুলে হট অয়েল ম্যাসাজ করলে চুলের রুক্ষতা কমে আসবে। রং করার পর চুলের ধকল সারাতে সপ্তাহে একদিন প্রোটিন প্যাক লাগান। ১ টেবিল চামচ মেথি গুঁড়া, ১টি ডিম, ১ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল, ২ টেবিল চামচ টক দই ও একটি পাকা কলা মিশিয়ে বানিয়ে নিন ঘরোয়া প্রোটিন মাস্ক। স্কাল্পসহ সব চুলে লাগিয়ে ৪০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

 

বিশেষ সতর্কতা

♦    ভালো মানের হেয়ার ডাইয়েও ত্বকে অ্যালার্জি হতে পারে। তাই চুলে ব্যবহারের আগে ত্বকে অ্যালার্জি পরীক্ষা করে নিন। এ জন্য সামান্য ডাই কানের পেছনে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত প্রতিক্রিয়া দেখা না গেলে বুঝবেন সেই ডাই আপনার জন্য নিরাপদ।

♦    টেস্ট করার পরও ডাই লাগানোর পর ত্বক বা স্কাল্পে কোনো ধরনের জ্বালাপোড়া বা চুলকানি হলে সঙ্গে সঙ্গে বেশি করে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

♦    হেয়ার ডাই এমনিতেই চুল শুষ্ক করে। তাই শুষ্ক চুলে রং করার এক সপ্তাহ আগে থেকে প্রতিদিন চুলে কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। পার্লারে গিয়ে হেয়ার স্পা করিয়ে নিতে পারলে আরো ভালো।

♦    বছরে দুবারের বেশি চুল রং না করাই ভালো।

মন্তব্য