kalerkantho

রবিবার। ১৮ আগস্ট ২০১৯। ৩ ভাদ্র ১৪২৬। ১৬ জিলহজ ১৪৪০

জামদানি আর মসলিনের শাড়ি

নাবিলা, অভিনেত্রী

৬ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে




জামদানি আর মসলিনের শাড়ি

প্রতিদিনের পোশাক নিয়ে আমার তেমন বাছবিচার নেই। তবে শাড়ি পরতে খুব পছন্দ করি। যেকোনো উপলক্ষে কিংবা কখনো উপলক্ষ ছাড়াই শাড়ি পরে ফেলি। শাড়ির মধ্যে জামদানি আর মসলিন সবচেয়ে প্রিয়। জামদানির নকশা আর মসলিনের উজ্জ্বল রং খুব টানে। সব সময় স্বচ্ছন্দে চলফেরার জন্য কুর্তা বেছে নিই। সাধারণত পোশাকের রং নিয়েও বিশেষ মাথা ঘামাই না। যেকোনো রঙের পোশাকই আমার সঙ্গে মানিয়ে যায়। এখন বেশ গরম। তাই সুতি কাপড়ের হালকা রঙের পোশাক বেশি পরা হচ্ছে। সাদা, স্কাই ব্লু, লেমন, হালকা হলুদ কুর্তি বেশি পরছি। কোথায় যাচ্ছি, কী কাজে যাচ্ছি তার ওপরও নির্ভর করে পোশাক নির্বাচন। দূরে কোথাও যাওয়ার প্রয়োজন হলে জিন্স আর টপস প্রাধান্য দিই। বাসায় বেশি পরা হয় সালোয়ার-কামিজ। আর উত্সব-উপলক্ষে অবশ্যই শাড়ি। পোশাকের সঙ্গে অলংকার নিয়েও খুব ভাবি না। হাতের কাছে যা মিলে যায় পরে নিই। স্বর্ণের গয়না একেবারেই পছন্দ করি না। দামি কোনো অলংকারের প্রতি আমার মোটেও টান নেই। বরং রুপার গয়না খুব ভালো লাগে। এ ছাড়া কাচের রেশমি চুরি পরতে ভালোবাসি। সাধারণত দেশ থেকেই পোশাক কেনা হয়। বিদেশে গেলে সেখানকার মার্কেটে ঢু মারা হয়। পছন্দ হলে কিনি। তবে বিদেশ থেকেই শপিং করতে হবে—এমন ভাবনা কাজ করে না।

 

কথা বলেছেন : আতিফ আতাউর

মন্তব্য