kalerkantho

সোমবার । ২৯ আষাঢ় ১৪২৭। ১৩ জুলাই ২০২০। ২১ জিলকদ ১৪৪১

অষ্টম শ্রেণি : পদার্থবিজ্ঞান, চতুর্থ অধ্যায়

কাজ, ক্ষমতা ও শক্তি

মো. মিকাইল ইসলাম নিয়ন, সহকারী শিক্ষক (ভৌতবিজ্ঞান), ঝিনুক মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, চুয়াডাঙ্গা

১৪ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



কাজ, ক্ষমতা ও শক্তি

১। গতিশক্তি কাকে বলে?

উত্তর : কোনো গতিশীল বস্তু তার গতির জন্য কাজ করার যে সামর্থ্য লাভ করে, তাকে গতিশক্তি বলে।

২। বিভব শক্তি কাকে বলে?

উত্তর : স্বাভাবিক অবস্থান বা অবস্থা থেকে পরিবর্তন করে কোনো বস্তুকে অন্য কোনো অবস্থান বা অবস্থায় আনলে বস্তু কাজ করার যে সামর্থ্য অর্জন করে, তাকে বিভব শক্তি বলে।

৩। এক জুল কাকে বলে?

উত্তর : কোনো বস্তুর ওপর এক নিউটন বল প্রয়োগের ফলে যদি বস্তুটির বলের দিকে এক মিটার (m) সরণ হয়, তবে সম্পন্ন কাজের পরিমাণকে এক জুল (J) বলে।

৪। কাজ কাকে বলে?

উত্তর : কোনো বস্তুর ওপর বল প্রয়োগের ফলে যদি বস্তুটির সরণ হয়, তাহলে প্রযুক্ত বল এবং বলের দিকে বস্তুর অতিক্রান্ত দূরত্বের গুণফলকে কাজ বলে। কাজের একক জুল (J)।

৫। বলের বিরুদ্ধে কাজ বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : যদি বল প্রয়োগের ফলে বস্তু বলের বিপরীত দিকে সরে যায় তাহলে সেই কাজকে বলের বিরুদ্ধে কাজ বলে।

৬। 250J কাজ বলতে কী বোঝো?

উত্তর : 250J কাজ বলতে বোঝায়—

ক) 250N বল প্রয়োগের ফলে বলের দিকে বলের প্রয়োগ বিন্দুকে 1m সরাতে যে কাজ সম্পাদিত হয়।

খ) 1N বল প্রয়োগের ফলে বলের দিকে বলের প্রয়োগ বিন্দুকে 250m সরাতে যে কাজ সম্পাদিত হয়।

৭। বিভব শক্তি কিসের ওপর নির্ভরশীল? ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : m ভরের কোনো বস্তুকে ভূ-পৃষ্ঠ থেকে h উচ্চতায় উঠাতে কৃতকাজই হচ্ছে বস্তুতে সঞ্চিত বিভব শক্তির পরিমাপ। আমরা জানি,

বিভব শক্তি = বস্তুর ওজন x উচ্চতা

V= mgh

অর্থাত্ বিভব শক্তি = বস্তুর ভর x অভিকর্ষ ত্বরণ x উচ্চতা

সমীকরণ হতে দেখা যায়, উচ্চতা যত বেশি হবে বস্তুর বিভব শক্তিও তত বেশি হবে। অতএব, আমরা বলতে পারি, বিভব শক্তি বস্তুর উচ্চতার ওপর নির্ভরশীল।

৮। কর্মদক্ষতা কাকে বলে?

উত্তর : লভ্য কার্যকর শক্তি ও মোট প্রদত্ত শক্তির অনুপাতকে কর্মদক্ষতা বলে।

৯। ক্ষমতা কাকে বলে?

উত্তর : কোনো ব্যক্তি বা বস্তুর কাজ করার হারকে ক্ষমতা বলে। একক সময়ের কৃতকাজ দ্বারা ক্ষমতা পরিমাপ করা হয়। কোন ব্যক্তি বা উত্স t সময়ে W পরিমাণ কাজ সম্পাদন করলে ক্ষমতা P = w/t

১০। 400 MeV শক্তিকে জুল (J)-এ রূপান্তর করো।

উত্তর : প্রদত্ত শক্তি = 400 MeV

= 400x106 eV

= (400 x 106 x 1.6 x 10-19) J

= 6.4 x 10-11J

১১। দেখাও যে T = P2 x 2m  

উত্তর : v2 = u2+2as

ev as =V2/2 [আদিবেগ u = ০]

T = m x V2/2

আবার ভরবেগ  P = mv

বা P2 = m2v2

সুতারাং T = P2/2m  

১২। একটি ইঞ্জিনের কর্মদক্ষতা 70% বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : একটি ইঞ্জিনের কর্মদক্ষতা 70% বলতে বোঝায়, ইঞ্জিনটিতে 100J শক্তি সরবরাহ করলে আমরা তা থেকে 70J শক্তি পাই। বাকি 30J শক্তি অপচয় হয়। 

১৩। কোনো বৈদ্যুতিক উত্পাদন কেন্দ্রের ক্ষমতা 200 MW বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : কোনো বৈদ্যুতিক উত্পাদন কেন্দ্রের ক্ষমতা 200 MW বলতে বোঝায় ওই বৈদ্যুতিক উত্পাদনকেন্দ্র প্রতি সেকেন্ডে ২০০ গঔ শক্তি সরবরাহ করে।

১৪। 1 Unit বিদ্যুত্ বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : 1 কিলোওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন একটি যন্ত্র 1 ঘণ্টা ধরে যে বিদ্যুত্শক্তি সরবরাহ বা ব্যয় করে তার পরিমাণকে 1 unit বিদ্যুত্ বলে| 1 unit = 1kWh

১৫। বল প্রয়োগ করলে সব ক্ষেত্রে কাজ সম্পন্ন হয় না কেন—ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : আমরা জানি, কাজ = বল x সরণ। সরণ মানে নির্দিষ্ট দিকে বস্তুর অবস্থানের পরিবর্তন। কিন্তু বল প্রয়োগের ফলে যদি বস্তুর আদি অবস্থান ও শেষ অবস্থানের কোনো পার্থক্য না হয়, তবে কোনো বস্তুর সরণ হয় না। অর্থাত্ বস্তুর কৃত কাজের পরিমাণ শূন্য হয়। সুতরাং বলা যায় যে বল প্রয়োগ করলেই সব সময় কাজ সম্পন্ন হয় না। কাজ তখনই হবে যখন বল প্রয়োগের ফলে বস্তুর সরণ হবে।

১৬। শক্তির সংরক্ষণশীলতানীতিটি লেখো।

উত্তর : শক্তির সৃষ্টি বা বিনাশ নেই। শক্তি শুধু এক রূপ থেকে অন্য এক বা একাধিক রূপে পরিবর্তিত হতে পারে। মহাবিশ্বের মোট শক্তির পরিমাণ নির্দিষ্ট ও অপরিবর্তনীয়।

১৭। এক ওয়াট কাকে বলে?

উত্তর : এক সেকেন্ডে এক জুল কাজ করা বা শক্তি রূপান্তরের হারকে এক ওয়াট বলে।

১৮। কোনো বস্তুর বিভব শক্তি 60J বলতে কী বোঝায়? ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : কোনো বস্তুর বিভব শক্তি 60J বলতে বোঝায়, বস্তুটির অবস্থান বা অবস্থার পরিবর্তন করতে 60J কাজ করতে হয়েছে এবং বস্তুটিতে 60J পরিমাণ শক্তি সঞ্চিত আছে। বস্তুটি তার স্বাভাবিক অবস্থা বা অবস্থানে ফিরে আসতে 60J পরিমাণ কাজ করবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা