kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ফ্যাক্টস

টুকরো রসায়ন

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য রসায়ন বই থেকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টস দেওয়া হলো

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



টুকরো রসায়ন

♦    কাঁচা আমে বিভিন্ন ধরনের জৈব এসিড থাকে। এ কারণে কাঁচা আম টক হয়। আম পাকলে এই জৈব এসিডেগুলোর রাসায়নিক পরিবর্তন ঘটে গ্লুকোজ ও ফ্রুকটোজ তৈরি হয়। তখন আম হয় মিষ্টি।

♦    রসায়নে অনুসন্ধান ও গবেষণা প্রক্রিয়ার প্রথম ধাপ হলো বিষয়বস্তু নির্ধারণ।

♦    ইথার, অ্যালকোহল দাহ্য পদার্থ।

♦    কঠিন পদার্থের নির্দিষ্ট ভর, নির্দিষ্ট আকার ও নির্দিষ্ট আয়তন থাকে।

♦    তরল পদার্থের নির্দিষ্ট ভর ও আয়তন আছে; কিন্তু নির্দিষ্ট আকার নেই।

♦    বায়বীয় বা গ্যাসীয় পদার্থের নির্দিষ্ট ভর আছে; কিন্তু নির্দিষ্ট আকার কিংবা আয়তন নেই।

♦    গ্যাসীয় পদার্থের আন্তঃকণা আকর্ষণ বল খুবই কম।

♦    কোনো মাধ্যমে কঠিন, তরল, বায়বীয় পদার্থ স্বতঃস্ফূর্ত ও সমভাবে ছড়িয়ে পড়ার প্রক্রিয়াকে ব্যাপন বলে।

♦    সরু ছিদ্রপথে কোনো গ্যাস উচ্চ চাপের স্থান থেকে নিম্ন চাপের স্থান দিয়ে বেরিয়ে আসার প্রক্রিয়া হলো নিঃসরণ।

♦    ব্যাপনের ক্ষেত্রে চাপের প্রভাব নেই, কিন্তু নিঃসরণে আছে।

♦    পারদ তথা মারকারির প্রতীক Hg.

♦    প্রোটনসংখ্যা বা পারমাণবিক সংখ্যাকে Z দ্বারা প্রকাশ করা হয়।

♦    কোনো পরমাণুর প্রোটন ও নিউট্রন সংখ্যার যোগফলকে ওই পরমাণুর ভরসংখ্যা বলে।

♦    IUPAC-এর পূর্ণরূপ International Union of Pure and Applied Chemistry.

♦    পর্যায় সারণিতে ৭টি পর্যায় ও ১৮টি গ্রুপ রয়েছে।

♦    একই পর্যায়ের বাঁ থেকে ডানে গেলে মৌলগুলোর ধর্ম পর্যায়ক্রমে পরিবর্তিত হয়।

♦    যেসব মৌল কখনো ধাতু আবার কখনো অধাতুর মতো আচরণ করে তাদের অর্ধধাতু বা অপধাতু বলে।

♦    পারমাণবিক ব্যাসার্ধ বাড়লে আয়নিকরণ শক্তির মান কমে।

♦    পর্যায় সারণির ১ নম্বর গ্রুপের ৭টি মৌলের মধ্যে হাইড্রোজেন ছাড়া বাকি ৬টি মৌলকে ক্ষারধাতু বলে।

♦    কপার, সিলভার, গোল্ড—এ তিন মৌলকে মুদ্রা ধাতু বলে।

♦    পর্যায় সারণির ১৮ নম্বর গ্রুপের মৌলগুলোকে নিষ্ক্রিয় গ্যাস বলে।

♦    ২০১৬ সাল পর্যন্ত পৃথিবীতে ১১৮টি মৌল আবিষ্কার হয়েছে।

♦    ইলেকট্রন শেয়ারের মাধ্যমে সমযোজী বন্ধন গঠিত হয়।

♦    সমযোজী যৌগের গলনাঙ্ক ও স্ফুটনাঙ্ক আয়নিক যৌগ অপেক্ষা কম।

♦    আয়নিক যৌগ জলীয় দ্রবণে বিদ্যুৎ পরিবহন করে।

♦    সব ধাতুই বিদ্যুৎ সুপরিবাহী।

♦    পানি একটি সর্বজনীন দ্রাবক।

♦    যেসব পদার্থ নিয়ে রাসায়নিক বিক্রিয়া শুরু করা হয় তাদের বিক্রিয়ক বলে।

সংকলন : জুবায়ের আহম্মেদ

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা