kalerkantho

রবিবার । ১৯ জানুয়ারি ২০২০। ৫ মাঘ ১৪২৬। ২২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

হিসাববিজ্ঞানের চেকলিস্ট

মো. আব্দুল হান্নান সহকারী শিক্ষক সামসুল হক খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ

৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হিসাববিজ্ঞানের চেকলিস্ট

প্রিয় শিক্ষার্থী, ‘একটি সঠিক পরিকল্পনা কোনো কাজ অর্ধেক সম্পন্ন হওয়ার সমান।’ তাই সঠিক পরিকল্পনা প্রণয়ন ও তা বাস্তবায়নের জন্য কঠোর পরিশ্রম অত্যাবশ্যকীয়।

সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তরে যেহেতু গাণিতিক সমস্যার সমাধান করতে হয়, তাই বেশির ভাগ শিক্ষার্থী সব সময় হিসাববিজ্ঞানের অঙ্ক নিয়েই ব্যস্ত থাকে। বহু নির্বাচনী অংশকে বিশেষ গুরুত্ব দেয় না। অথচ এটি ভুল। কোনো শিক্ষার্থী যদি বহু নির্বাচনীর নির্ধারিত ৩০টি প্রশ্নের সঠিক উত্তর করতে পারে, তাহলে তার জন্য সব মিলিয়ে ৮০ নম্বর পাওয়া সহজ হয়ে যায়।

বহু নির্বাচনী প্রশ্নের সঠিক ও নির্ভুল উত্তর দেওয়ার জন্য অবশ্যই মূল বই যত্ন সহকারে পড়তে হবে। সেই কাজটি তোমরা নিশ্চয়ই এরই মধ্যে সম্পন্ন করেছ? এখন পাঠ্য বই বারবার রিভিশন দিতে হবে। এরপর সহায়ক হিসেবে বিভিন্ন সালের বোর্ড প্রশ্ন ও গুরুত্বপূর্ণ স্কুলগুলোর নির্বাচনী পরীক্ষার প্রশ্ন পড়তে হবে। বহু নির্বাচনী পড়ার ক্ষেত্রে মূল বইকে অগ্রাধিকার দিতে হবে।

সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর লেখার সময় ‘ক-বিভাগ’ (আবশ্যিক) বা আর্থিক বিবরণী থেকে প্রথমে উত্তর না করাই ভালো। দেখে-শুনে, বুঝে যে প্রশ্নটি তোমার সবচেয়ে সহজ মনে হবে, সেটির উত্তরই প্রথমে লেখা ভালো।

কোনো উত্তরের সপক্ষে যদি নোট দেওয়ার মতো কিছু থাকে, তাহলে তা অঙ্কের শেষে দেখাতে হবে। যেমন—ক্রয় জাবেদা বা বিক্রয় জাবেদার শেষে গণনাকার্য তারিখ অনুসারে দেখানো যায়। শতকরা (%) হারগুলো সতর্কতার সঙ্গে দেখতে হবে, যেন ভুল সংখ্যা দ্বারা গণনাকার্য না হয়। আবার খেয়াল রাখতে হবে, টাকার অঙ্কগুলো যেন সঠিকভাবে লেখা হয়। একটি হিসাবের টাকা যেন আরেকটি হিসাবে লেখা না হয় বা টাকার অঙ্ক লেখার সময় ভুলবশত শূন্য (০) কম বা বেশি লেখা না হয়, সে বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। ক্যালকুলেটর ব্যবহারে সতর্ক থাকতে হবে। যে সংখ্যাটি ক্যালকুলেটরে লিখেছ, তা ঠিকমতো উঠেছে কি না—খেয়াল রাখতে হবে। অনেক সময় যোগ, বিয়োগ ভুল হয়; যেমন—কোনো খরচের সঙ্গে বকেয়া যোগ হয়, সেটি বিবরণে হয়তো ঠিক লেখা হয়েছে, অথচ টাকার অঙ্ক থেকে তা বিয়োগ করা হয়েছে!

বিভিন্ন বোর্ড প্রশ্ন বিশ্লেষণ করে যে প্রশ্নগুলো বারবার আসে, সেগুলো চিহ্নিত করে ভালোভাবে রপ্ত করতে হবে। মূল বই থেকে সরাসরি প্রশ্ন না থাকলেও মূল বইয়ের অনুকরণে প্রশ্ন বানানো হয়। তাই মূল বইয়ের অঙ্কগুলোর ওপর দক্ষতা থাকা জরুরি। হিসাববিজ্ঞানের অঙ্ক করতে হলে কিছু কিছু বিষয় মুখস্থ থাকতে হবে। যেমন—ডেবিট-ক্রেডিট নির্ণয়ের সূত্র, প্রারম্ভিক ও সমাপনী মূলধন নির্ণয়ের সূত্র, লাভ-ক্ষতি নির্ণয়ের সূত্র, মালিকানাস্বত্ব নির্ণয়ের সূত্র, চালান, ক্যাশমেমো, ডেবিট নোট, ক্রেডিট নোট, ডেবিট ভাউচার, ক্রেডিট ভাউচার ইত্যাদির ছক, বিশদ আয় বিবরণী, মালিকানাস্বত্ব বিবরণী ও আর্থিক অবস্থার বিবরণীর ছক ইত্যাদি। এসব ভুলে গেলে জানা প্রশ্নের উত্তর ভুল হতে পারে। হিসাববিজ্ঞানে ভালো করতে হলে অবশ্যই বহু নির্বাচনী ও সৃজনশীল প্রশ্নগুলোর উত্তর বারবার রিভিশন দিতে হবে। হিসাববিজ্ঞানে যেহেতু অনেক সূক্ষ্ম বিষয় আছে, তাই মাথা ঠাণ্ডা রেখে সুচিন্তিতভাবে শান্ত মনোভাব নিয়ে উত্তর লিখবে। কোনো অবস্থায়ই ঘাবড়ে যাওয়া কিংবা চিন্তিত বা উত্তেজিত হওয়া চলবে না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা