kalerkantho

সোমবার । ১৩ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১০ সফর ১৪৪২

ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের ঐতিহাসিক রায়

পৈতৃক সম্পত্তিতে সমান অধিকার পাবে হিন্দু মেয়েরা

অনলাইন ডেস্ক   

১১ আগস্ট, ২০২০ ২১:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পৈতৃক সম্পত্তিতে সমান অধিকার পাবে হিন্দু মেয়েরা

প্রতীকী ছবি।

পৈতৃক সম্পত্তিতে হিন্দু মেয়েদের সমান অধিকার দিয়ে এক ঐতিহাসিক রায় দিয়েছেন ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। এই রায় অনুযায়ী, পৈতৃক সম্পত্তিতে সমান অধিকার পাবে মেয়েরাও। মঙ্গলবার হিন্দু-আনডিভাইডেড ফ্যামিলি প্রপার্টিতে মেয়েদের অধিকারের পক্ষে রায় দিয়েছেন বিচারপতি অরুণ মিশ্রের নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির বেঞ্চ।

রায় অনুযায়ী, ২০০৫ সালের আগে অর্থাৎ হিন্দু উত্তরাধিকার আইনের সংশোধনী কার্যকর হওয়ার আগেও যদি কারো বাবা মারা গিয়ে থাকেন, তাহলেও তার সম্পত্তির উত্তরাধিকারী হতে পারেন সেই ব্যক্তির মেয়েরা। এদিন রায় দেওয়ার আগে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা বলেন, 'কন্যা সন্তান চিরকালই প্রিয় কন্যা সন্তান হয়েই থাকেন। নারীর জন্ম যে সালেই হয়ে থাক ২০০৫ সালের সংশোধিত এই আইন অনুযায়ী মেয়েরা বাবার সম্পত্তিতে হিন্দু আইন অনুযায়ী সমান অধিকার পাবেন।'

রায়ে স্পষ্ট করেই জানানো হয়েছে, হিন্দু-সাকসেশন অ্যাক্ট সংশোধন হওয়ার পরে মেয়েদের এই আইনি অধিকার নিশ্চিত রয়েছে। তবে সংশোধনের সময় বাবা বেঁচে থাকলে বা না থাকলেও সকল মেয়েদেরই এই সুবিধা পাওয়ার অধিকার রয়েছে।

২০০৫ সালে হিন্দু উত্তরাধিকার আইনের সংশোধনী কার্যকর হওয়ার আগে যাঁদের বাবা-মা মারা গেছেন, তারাও কি পৈতৃক সম্পত্তিতে সমান অধিকার পাবেন? এই নিয়ে একাধিক মামলা হয় সুপ্রিম কোর্টে। ২০১৬ সালে প্রকাশ বনাম ফুলবতী মামলা এই আইন কার্যকর হবে না বলে জানিয়েছিল আদালত। আবার ২০১৮ সালের অন্য আরেকটি মামলার প্রেক্ষিতে এই আইন কার্যকর হবে বলে জানায় সুপ্রিম কোর্ট। ফলে বিষয়টি নিয়ে স্পষ্ট কোনো নির্দেশনা ছিল না। কিন্তু এদিন সুপ্রিম কোর্টের তিন বিচারপতির বেঞ্চ জানিয়ে দেয়, ২০০৫ সালে হিন্দু উত্তরাধিকার আইনের ৬ নম্বর ধারা অনুযায়ী পৈতৃক সম্পত্তিতে মেয়েদের সমানাধিকার আছে। রায় দিয়ে বিচারপতি অরুণ মিশ্র বলেন, 'একটা মেয়েই সারাজীবন বাবা-মায়ের আদরের মেয়ে হয়ে থাকেন। কিন্তু সম্পত্তির মালিক বেঁচে থাকুক আর না থাকুক, সেই সম্পত্তির উপর মেয়ের সারাজীবন অধিকার থাকবেই।'

শুধু তাই নয়, সুপ্রিম কোর্ট এদিন স্পষ্টতই জানিয়ে দিল, যেহেতু শীর্ষ আদালত এই সংক্রান্ত বিভ্রান্তি কাটিয়ে দিল আজকের রায়ের মাধ্যমে, তাই সারা দেশে কন্যা সন্তানের আইনি উত্তরাধিকার সংক্রান্ত যে সমস্ত মামলা রয়েছে, সেগুলোর যেন দ্রুত নিষ্পত্তি করা হয়।

সূত্র : ইন্ডিয়া টাইমস।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা