kalerkantho


ফেসবুকে ঘুরছে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রের নির্বাচনী পোস্টার!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৮:৫২



ফেসবুকে ঘুরছে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রের নির্বাচনী পোস্টার!

পোস্টারটি দেখলেই প্রথম ঝলকে মনে হয়তে পারে বুঝি কোনো জাতীয় নির্বাচন কিংবা স্থানীয় প্রতিনিধি নির্বাচনের পোস্টার। চোখ একটু কাছে নিয়ে গেলে বিষ্ফোরিতও হতে পারে। কেননা এটা কোনো বড় ধরনের বা ক্ষুদ্র কোনো নির্বাচনীও পোস্টার নয়। তাহলে কিসের পোস্টার? সেজন্যই তো প্রথমেই বললাম, 'চোখ বিষ্ফোরিতও হতে পারে। '

একটু প্রাইমারি স্কুল লেভেলের কথা ভাবি, আমরা তখন এক ক্লাস থেকে আরেক ক্লাস উঠলে নতুন বইয়ের গন্ধ নেওয়ার জন্য উদগ্রীব থাকতাম। নতুন বই পেয়ে গেলেই স্যার, আপা ( প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ম্যাডামদের আপা'ই ডাকা হয়। তারপরে ক্লাসের এক রোল কিংবা তার অপারগতায় দুই রোলকে ক্লাস ক্যাপ্টেন নির্বাচিত করে দেন স্যার আপারা। সেভাবেই একজন ক্লাস ক্যাপ্টেন হয়ে যায়।    এই গল্পটা করার কারণ হলো, যে পোস্টারটি ফেসবুকসহ সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়েছে সেটা হলো এক প্রাথমিক স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ক্লাস ক্যাপ্টেন নির্বাচনের পোস্টার।   এই পোস্টার দেখে রীতিমতো বিস্ময় প্রকাশ করছেন নেটিজেনরা।  

পোস্টারে লেখা রয়েছে, কামারগাওঁ আব্দুল বারী খান প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্যাপ্টিন নির্বাচন।

শ্রেণি চতুর্থ, শাখা-গোলাপ, রোল-০২। মাহমুদুর রহমান অনিককে টিফিন বক্স মার্কায় ভোট দিন।   টিফিন বক্স মার্কায় আপনার মূল্যবান ভোট দিয়ে সহপাঠী বন্ধু-বান্ধবী, এবং অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীবৃন্দের সেবা করার সুযোগ দিন।

পোস্টারটির সত্যতার বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে সর্বপ্রথম নিজের ফেসবুক টাইমটাইনে পোস্ট করেন ওয়াসিম ফারুক নামের একব্যক্তি। তিনি একটি জাতীয় দৈনিকে লেখালেখি করেন।   ওয়াসিম ফারুক কালের কণ্ঠকে বলেন, 'আমাকে ফেসবুকে একজন পোস্টারটি সরবরাহ করে। পরে পোস্টারের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য খোঁজ নিয়ে জানতে পারি এটি মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর থানার ভাগ্যকূল ইউনিয়নের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ঘটনা। পরে আমি সেই স্কুলে যোগাযোগ করি। '  

এ বিষয়ে ওয়াসিম ফারুক কামারগাওঁ আব্দুল বারী খান প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কণিকা রানী ঘোষের সাথে যোগাযোগ করেন। কণিকা রানী ঘোষ পোস্টারের বিষয়ে ওয়াসিম ফারুককে বলেন, 'আজ ক্লাস ক্যাপ্টেন নির্বাচনের দিন ছিল। সকালে এসে দেখি স্কুলের আশেপাশে কা বা কারা এসব পোস্টার লাগিয়ে গেছে। '  

সৌদি প্রবাসী ফারুখ আহমেদ পোস্টারটি শেয়ার করে লিখেছেন,  'নেতৃত্বের প্রশিক্ষণ এখন প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে শুরু হচ্ছে । আশা করছি তা সংসদে গিয়ে শেষ হবে। '  


মন্তব্য