kalerkantho

horror-club-banner

হরর ক্লাব : ইউনিয়ন কবরস্থানের সেই ভূতের ছবি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ মার্চ, ২০১৭ ১১:৫৭



হরর ক্লাব : ইউনিয়ন কবরস্থানের সেই ভূতের ছবি

বিশ্বের নানা দেশে বিভিন্ন সময় অনেকের ক্যামেরায় উঠে এসেছে ভূতের প্রমাণ, যার কোনো ব্যাখ্যা নেই। এসব ছবির সত্যাসত্য নিয়ে বিতর্ক থাকলেও বহু মানুষেরই শিরদাঁড়া দিয়ে শীতল স্রোত বয়ে যায় এ ছবি দেখে। এ লেখায় তুলে ধরা হলো তেমন এক প্রমাণ। ধারাবাহিকভাবে এ ধরনের বেশ কয়েকটি ছবি প্রকাশিত হবে কালের কণ্ঠে। আজ পাচ্ছেন তার ১২তম পর্ব।

ইউনিয়ন কবরস্থানের সেই ভূত
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ভূতুড়ে কবরস্থান বলতে গেলে কানেক্টিকাট রাজ্যের ইস্টনের এই কবরস্থানটির কথা বলতেই হবে। এটি কবরস্থানে বহু ভূত দেখা যায় বলে জনশ্রুতি রয়েছে। কবরস্থানটি যেমন বিশাল তেমন রহস্যময়। এতে অসংখ্য মানুষই নানা অশরীরির দেখা পেয়েছেন বলে দাবি করেন, যে রহস্যর আজ পর্যন্ত কোনো কিনারা করা সম্ভব হয়নি।

এ কবরস্থানে অনেকেই সাদা এক নারীকে দেখেছেন। রহস্যময় এ নারীকে শুধু দেখাই যায়নি, অনেকের ক্যামেরায় তোলা ছবিতেও ধরা পড়েছে তার অবয়ব।


তার লম্বা কালো চুল ও সাদা দেহ বহু মানুষেরই আতঙ্ক জাগায়। তার গায়ে দেখা গেছে একটি নাইটগাউন ও মাথায় একটি সেনাবাহিনীর ব্যবহৃত টুপি দেখা যেত।

রহস্যময় এ নারীকে সবচেয়ে বেশিবার দেখা গেছে কবরস্থানের নিকটবর্তী ৫৯ ও ১১১ নম্বর রাস্তায়। এ দুটি রাস্তায় চলাচলকারী গাড়িগুলো প্রায়ই রাস্তার মাঝখানে হঠাৎ করে এক নারীকে দেখতে পেত। বিষয়টি অত্যন্ত বিপজ্জনক হয়ে উঠেছিল এবং দুর্ঘটনার আশঙ্কা ছিল। এ কারণে অনেকেই সেই রাস্তা এড়িয়ে চলত। অবশ্য এ বিষয়টির খবর পুলিশের কাছেও গিয়েছিল। এ কারণে সে রাস্তায় টহল জোরদার করা হয়। তবে পুলিশের দৃষ্টিতে সেই ভূত ধরা পড়েনি।

১৯৯৩ সালের এক রাতে সেই রাস্তা দিয়ে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিলেন একজন ফায়ার সার্ভিস কর্মী। আর সে সময়ে হঠাৎ করে তার গাড়ির সামনে চলে আসে সেই অশরীরি। চলন্ত গাড়ির সামনে মাঝ রাস্তায় হঠাৎ তিনি স্পষ্ট দেখতে পান সেই নারীকে। সংঘর্ষ এড়ানোর জন্য তিনি জোরে ব্রেক চাপেন। কিন্তু কাজ হয়নি। এরপর কিছু বোঝার আগেই গাড়ির সঙ্গে সংঘর্ষ হয়ে যায়।

সংঘর্ষের পর তিনি তাড়াতাড়ি গাড়ি থেকে নামেন কিন্তু রাস্তায় কোনো দুর্ঘটনার চিহ্ন পাননি। সেই নারী যেন জাদুমন্ত্রের মতো অদৃশ্য হয়ে গেছে। এ সময় তার কাছে ক্যামেরা ছিল। তা দিয়ে তিনি কয়েকটি ছবি তোলেন। রাস্তার ছবিগুলোতে কোনো দুর্ঘটনার চিহ্ন পাওয়া যায়নি। কিন্তু কবরস্থানের দিকে তাক করে তোলা ছবিটি সবাইকে ভয় পাইয়ে দেয় (ওপরের ছবিটি দেখুন)। ছবিতে অস্পষ্ট সাদা কুয়াশার মতো অস্বাভাবিক কিছু দেখা যাচ্ছে কি? আজ পর্যন্ত সেই ছবির রহস্য কেউ উন্মোচন করতে পারেনি।


মন্তব্য