kalerkantho

রবিবার । ১১ আশ্বিন ১৪২৮। ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৮ সফর ১৪৪৩

পরিবারে ফিরলেন ত্ব-হা

রংপুর অফিস   

১৯ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



পরিবারে ফিরলেন ত্ব-হা

আলোচিত ধর্মীয় বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান পরিবারের কাছে ফিরেছেন। গত ১০ জুন রাত থেকে তিনিসহ দুই সঙ্গী আব্দুল মুহিত ও মোহাম্মদ ফিরোজ এবং গাড়িচালক আমির উদ্দিন নিখোঁজ ছিলেন। আট দিন পর গতকাল শুক্রবার রংপুরে তাঁর খোঁজ পাওয়ার পর পুলিশ তাকে নিজেদের জিম্মায় নেয়। তাঁর সঙ্গীদেরও বিভিন্ন স্থান থেকে উদ্ধার করা হয়। পরে রাতে আদালতের মাধ্যমে আবু ত্ব-হাসহ তিনজনকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

রংপুর মহানগর পুলিশের (আরএমপি) ক্রাইম ডিভিশনের উপকমিশনার আবু মারুফ হোসেন গতকাল সংবাদ সম্মেলন করে আবু ত্ব-হার খোঁজ পাওয়ার কথা জানান। তিনি জানান, পারিবারিক সূত্র ধরেই রংপুর থেকে তাঁকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। বিকেল ৫টায় রংপুর ডিবি কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন শুরু হওয়ার আগে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে আবু ত্ব-হাকে ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়।

ক্রাইম ডিভিশনের উপকমিশনার বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে আবু ত্ব-হা পুলিশকে জানিয়েছেন যে তাঁকে কেউ অপহরণ করেনি। ঘটনার দিন রাজধানীর গাবতলী থেকে স্ত্রীর মোবাইল ফোন নম্বরে কল দিয়ে সর্বশেষ কথা বলেন। এরপর মোবাইল বন্ধ করে সেখান থেকে চলে যান গাইবান্ধা সদর উপজেলার ত্রিমোহনীতে সিয়াম নামের এক বন্ধুর বাড়িতে। এর পর থেকে তিনি কারো সঙ্গে যোগাযোগ করেননি। ব্যক্তিগত কারণে বন্ধুর বাড়িতে আত্মগোপনে ছিলেন আবু ত্ব-হা। সেখানে তাঁর সঙ্গে ছিলেন গাড়িচালক আমির উদ্দিন ও মুহিত। অন্য সঙ্গী মুজাহিদকে তাঁরা বগুড়ায় রেখে যান।

আবু মারুফ জানান, গতকাল এক সঙ্গীকে নিয়ে অন্যজনকে বন্ধুর বাড়িতে রেখে রংপুরে আসেন আবু ত্ব-হা।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে উপকমিশনার বলেন, পারিবারিক একটি সূত্র ধরেই আবু ত্ব-হা ও তাঁর সঙ্গীদের সন্ধান পাওয়া যায়। পরে তাঁদের উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদের পর তাঁদের আদালতের মাধ্যমে পরিবারের জিম্মায় দেওয়া হবে কিংবা তাঁদের দেওয়া জবানবন্দি অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, আবু ত্ব-হার সফরসঙ্গী গাড়িচালক আমির উদ্দিনকে রংপুর নগরীর নিজ বাসা থেকে, মুহিতকে মিঠাপুকুর উপজেলার জায়গীরহাট থেকে এবং ফিরোজকে বগুড়ার শিবগঞ্জ থেকে উদ্ধার করা হয়। ফিরোজকে নিয়ে আসার বিষয়ে শিবগঞ্জ থানায় যোগাযোগ করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, আবু ত্ব-হার মা আজেদা বেগম গত ১১ জুন বিকেলে রংপুর মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি থানায় জিডি করেন। ওই  জিডির সূত্র ধরে পুলিশ অনুসন্ধান করছিল। গোপন সূত্রে খবর মেলে যে ত্ব-হা আদনান রংপুর নগরীর আবহাওয়া অফিস সংলগ্ন মাস্টারপাড়ায় তাঁর শ্বশুরবাড়িতে প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে আছেন। পরে পুলিশ সেখান থেকে তাঁকে নিয়ে আসে। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তাঁর অন্য সঙ্গীদেরও সন্ধান পাওয়া যায়। গাইবান্ধার ত্রিমোহনীতে বন্ধু সিয়ামের বাসায় ব্যক্তিগত কারণে আত্মগোপনে ছিলেন আবু ত্ব-হা আদনানসহ নিখোঁজ ব্যক্তিরা।

এদিকে আবু ত্ব-হা আদনান ও তাঁর দুই সঙ্গীকে রংপুর মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয় থেকে গতকাল রাত সাড়ে ৯টায় পুলিশ ভ্যানে করে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রট আদালতে নেওয়া হয়। অন্য দুইজন হলেন আবু মুহিত আনছারী ও গাড়িচালক আমির উদ্দিন। জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক কে এম হাফিজুর রহমানের কাছে জবানবন্দি শেষে রাত পৌনে ১২টায় নিজ জিম্মায় তাঁদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

রংপুর মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি থানার ওসি আব্দুর রশীদ জানান, আবু ত্ব-হা নিখোঁজের ঘটনায় তাঁর মা আজেদা খাতুনের দায়ের করা সাধারণ ডায়েরির পরিপ্রেক্ষিতে আদালতে জবানবন্দি শেষে তাঁদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আবু ত্ব-হার আরেক সফরসঙ্গী ফিরোজ আলম বগুড়ায় আছেন। বিষয়টি বগুড়া পুলিশকে জানানো হয়েছে।

 



সাতদিনের সেরা