kalerkantho

সোমবার । ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮। ২ আগস্ট ২০২১। ২২ জিলহজ ১৪৪২

এইচএসসি প্রস্তুতি-ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বীমা প্রথম পত্র

মো. রবিউল আউয়াল, প্রভাষক, ফিন্যান্স বিভাগ, নটর ডেম কলেজ, ঢাকা

১৮ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



এইচএসসি প্রস্তুতি-ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বীমা প্রথম পত্র

অধ্যায় ভিত্তিক প্রশ্ন

তৃতীয় অধ্যায়

অর্থের সময়মূল্য

জ্ঞানমূলক প্রশ্ন

১।        অর্থের মূল্য কী?

            উত্তর : অর্থের ক্রয়ক্ষমতাকে বলা হয় অর্থের মূল্য।

২।        মুদ্রাস্ফীতি কী?

            উত্তর : কোনো দ্রব্য বা সেবার সাধারণ মূল্যস্তরের ঊর্ধ্বগতিকে মুদ্রাস্ফীতি বলে।

৩।        প্রকৃত সুদের হার কী?

            উত্তর : ঋণগ্রহীতা প্রকৃতপক্ষে ঋণদাতাকে যে হারে সুদ প্রদান করে তাই প্রকৃত সুদের হার।

৪।        বাট্টাকরণ কী?

            উত্তর : ভবিষ্যতে প্রাপ্ত অর্থের বর্তমান মূল্য নির্ণয়ের কৌশলই হলো বাট্টাকরণ।

৫।        চক্রবৃদ্ধিকরণ কী?

            উত্তর : চক্রবৃদ্ধিকরণ হলো এমন একটি প্রক্রিয়া, যার সাহায্যে সুদ-আসলের ওপর সুদ হিসাব করে ভবিষ্যৎ মূল্য বের করা যায়।

৬।        Rule 72 কী?

            উত্তর : Rule 72 হচ্ছে এমন একটি কৌশল, যার মাধ্যমে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা বার্ষিক চক্রবৃদ্ধি সুদে কত সময়ে বা কত হারে দ্বিগুণ হবে তা বের করা হয়।

৭।        Rule 69 কী?

            উত্তর : Rule 69 এমন একটি কৌশল, যার মাধ্যমে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা অর্ধবার্ষিক/অবিরত চক্রবৃদ্ধি সুদে কত সময়ে বা কত হারে দ্বিগুণ হবে তা বের করা হয়। 

৮।        সুযোগ ব্যয় কী?

            উত্তর : একটি প্রকল্পে বিনিয়োগ করলে অন্য আরেকটি প্রকল্পে বিনিয়োগের সুযোগ ত্যাগ করতে হয়, যা অর্থায়নে   সুযোগ ব্যয় নামে পরিচিত। 

৯।        নামিক সুদের হার কী?

            উত্তর : ঋণদাতা ও ঋণগ্রহীতার মধ্যে নির্ধারিত চুক্তিবদ্ধ বার্ষিক সুদের হারকে নামিক সুদের হার বলে।

১০।      বিলম্বিত বৃত্তি কী?

            উত্তর : যে বৃত্তি এখন বা বছর শেষে শুরু না হয়ে বিলম্ব্বে শুরু হয় এবং ভবিষ্যতের একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত চলতে থাকে তাকে বিলম্ব্বিত বৃত্তি বলে।

১১।      অর্থের সময়মূল্য কী? 

            উত্তর : সময় পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে অর্থের মূল্যের যে পরিবর্তন হয় তাকে অর্থের সময়মূল্য বলে।

১২।      অ্যানুইটি কী?

            উত্তর : নির্দিষ্ট সময় পর পর একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ জমা দেওয়া হলে বা পাওয়া গেলে তাকে অ্যানুইটি বলে। 

১৩।      সময়রেখা কী?

            উত্তর : সময়রেখা হচ্ছে আনুভূমিক রেখা, যার সর্ববাম দিকে শূন্য থাকে এবং পরে বাম থেকে ডানে অর্থের আন্তঃপ্রবাহ ও বহিঃপ্রবাহ দেখানো হয়।

১৪।      চিরস্থায়ী বৃত্তি কী?

            উত্তর : যখন একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা অসীম সময়ের জন্য দেওয়া হয় বা হবে বা পাওয়া যাবে তখন তাকে চিরস্থায়ী বৃত্তি বলে।

 

অনুধাবনমূলক প্রশ্ন

১।        ঋণ পরিশোধসূচি কী? ব্যাখ্যা করো।

            উত্তর : ঋণ পরিশোধসূচি বলতে কিস্তিতে ঋণ পরিশোধের তালিকাকে বোঝায়।

            এই তালিকার মাধ্যমে প্রতিটি কিস্তিতে কী পরিমাণ সুদ ও আসল বাবদ পরিশোধ করা হচ্ছে তা বিস্তারিতভাবে দেখানো হয়। ঋণদাতারা এই তালিকা ব্যবহারের মাধ্যমে পরিশোধকৃত ঋণের পরিমাণ ও প্রদেয় ঋণের পরিমাণ সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা পেয়ে থাকে।

২।        অর্থের সময় পছন্দের দুটি কারণ উল্লেখ করো।

            উত্তর : অর্থের সময় পছন্দের দুটি কারণ হলো ভোগ অগ্রাধিকার ও মুদ্রাস্ফীতি।

            কোনো দ্রব্য বা সেবার বর্তমান ভোগ জরুরি অথবা ভবিষ্যতে অসুস্থতা, মৃত্যু, মুদ্রাস্ফীতির কারণে ভোগ সম্ভব না হওয়ার ঝুঁকি বিদ্যমান থাকায় বেশির ভাগ মানুষ ভবিষ্যতে কোনো দ্রব্য বা সেবা ভোগ অপেক্ষা বর্তমানকে বেশি প্রাধান্য দেয়। অন্যদিকে কোনো দ্রব্য বা সেবা মূল্যের ঊর্ধ্বগতিকে মুদ্রাস্ফীতি বলে। মুদ্রাস্ফীতির কারণে ক্রয়ক্ষমতা হ্রাস পায়। আর এই ক্রয়ক্ষমতা হ্রাস পাওয়ার ঝুঁকি এড়ানোর জন্য অধিকাংশ মানুষ বর্তমান নগদ অর্থ প্রাপ্তিকে বেশি গুরুত্ব দেয়। 

 

৩।        বিধি-৭২-এর ব্যাখ্যা করো।

            উত্তর : বিধি-৭২ বলতে বার্ষিক চক্রবৃদ্ধিকরণের ক্ষেত্রে যেকোনো পরিমাণ বিনিয়োগকৃত অর্থ কত বছরে বা কত % সুদে দ্বিগুণ হবে তা নির্ণয়ের কৌশলকে বোঝায়।

            বিধি-৭২ অনুসারে কত বছরে বিনিয়োগকৃত অর্থ দ্বিগুণ হবে তা নির্ণয়ের জন্য ৭২-কে সুদের হার দ্বারা ভাগ করা হয়। আর কত হারে টাকা দ্বিগুণ হবে তা নির্ণয়ের জন্য ৭২-কে বছরের সংখ্যা দ্বারা ভাগ করা হয়।

৪।        সময়ের পরিবর্তন একক নগদ প্রবাহের বর্তমান মূল্যের ওপর কী প্রভাব ফেলে?

            উত্তর : সময়ের পরিবর্তন একক নগদ প্রবাহের বর্তমান মূল্যকে হ্রাস করবে।

            আজকের ১০০ টাকার ক্রয়ক্ষমতা ১ বছর পরের ১০০ টাকার ক্রয়ক্ষমতা এক নয়। এর মূল কারণ হলো অর্থের সময়মূল্য বা সুদের হার। তাই সময় যত বৃদ্ধি পাবে একক নগদ প্রবাহের বর্তমান মূল্যও তত হ্রাস পাবে।

৫।        বর্তমান মূল্য ও ভবিষ্যৎ মূল্যের পার্থক্যকারী উপাদানগুলো ব্যাখ্যা করো।

            উত্তর : সময় ও সুদের হারের কারণে বর্তমান মূল্য ও ভবিষ্যৎ মূল্যের মাঝে পার্থক্যের সৃষ্টি হয়।

            সময় যতই বাড়তে থাকে ভবিষ্যৎ মূল্য ততই বাড়তে থাকে। আবার সুদের হার বেশি হলে ভবিষ্যৎ মূল্যও বেশি হয়। ফলে বর্তমান মূল্য ও ভবিষ্যৎ মূল্যের মধ্যে পার্থক্যের সৃষ্টি হয়। এ ছাড়া চক্রবৃদ্ধি সংখ্যার কারণেও বর্তমান মূল্য ও ভবিষ্যৎ মূল্যের মধ্যে পার্থক্যের সৃষ্টি হয়।



সাতদিনের সেরা