kalerkantho

শুক্রবার । ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৫ জুন ২০২০। ১২ শাওয়াল ১৪৪১

নবম-দ্বাদশ

১০০ বাগধারা

৪ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



১। অন্নজল ওঠা : আয়ু বা সময় শেষ হওয়া

২। অষ্টমঙ্গলা : আনন্দের রেশ থাকাবস্থা

৩। অকটবিকট : ছটফটানি

৪। অকড়িয়া : ধনহীন

৫। অকালকুসুম : অসম্ভব জিনিস

৬। অকালপক্ব : ইঁচড়ে পাকা

৭। অকালবোধন : অসময়ে আবির্ভাব

৮। অগত্যা মধুসূদন : অনন্যোপায় হয়ে

৯। অগস্ত্য যাত্রা : শেষ বিদায়

১০। অঙ্কুশ তাড়না : অন্তর্গত আঘাত

১১।  অজগরবৃত্তি : আলসেমি

১২। অঞ্চলপ্রভাব : স্ত্রীর প্রভাব

১৩।  অনন্তশয্যা : শেষ শয্যা

১৪।  অন্ধিসন্ধি : ফাঁকফোকর

১৫। অপোগণ্ড : অকর্মণ্য/অপ্রাপ্তবয়স্ক

১৬। অবরেসবরে : কালেভদ্রে

১৭। অলছতলছ : উদ্দাম, বাধাবন্ধনহীন

১৮। অশ্বমেধযজ্ঞ : বিপুল আয়োজন

১৯। অষ্টকপাল : হতভাগ্য

২০। অষ্টরম্ভা : কাঁচকলা/ফাঁকি

২১। অসূর্যম্পশ্যা : গৃহে অন্তরিন

২২। অস্থির পঞ্চক/অস্থির পঞ্চম :  কিংকর্তব্যবিমূঢ়তা

২৩। অক্ষরে অক্ষরে : সম্পূর্ণভাবে

২৪। অ আ ক খ : প্রাথমিক জ্ঞান

২৫।  অকালকুষ্মাণ্ড : অপদার্থ

২৬। অন্ধের যষ্টি : অপরিহার্য অবলম্বন

২৭। অকালের বাদলা : অপ্রত্যাশিত বাধা

২৮। অক্ষয়বট : প্রাচীন ব্যক্তি

২৯। আগড়মবাগড়ম : অর্থহীন কথা

৩০। অগ্নিশর্মা : ক্ষিপ্ত

৩১। অঙ্গ জল হওয়া : শীতল হওয়া

৩২। অতি দর্পে হত লঙ্কা : অহংকারে পতন

৩৩। অদৃষ্টের পরিহাস : ভাগ্যের বিড়ম্বনা

৩৪। অন্তরটিপুনি : গোপন ইশারা

৩৫।  অতি চালাকের গলায় দড়ি : বেশি চালাকের অশুভ পরিণাম

৩৬। অর্ধচন্দ্র দেওয়া : গলাধাক্কা দেওয়া

৩৭। অমাবস্যার চাঁদ : দুর্লভ বস্তু

৩৮। অষ্টবজ সম্মিলন : প্রতিভাবান ব্যক্তিদের একত্র সমাবেশ

৩৯। অগাকান্ত/অঘাচণ্ডী/অঘারাম : নির্বোধ, নিরেট বোকা

৪০। অন্ধকারে ঢিল ছোড়া : পুরোপুরি আন্দাজে কাজ করা

৪১। অথৈ জল : ভীষণ বিপদ

৪২। অনুরোধে ঢেঁকি গেলা : পরের অনুরোধে কষ্ট পাওয়া

৪৩। আচাভুয়ার বোম্বাচাক : অসম্ভব ব্যাপার

৪৪। আমড়াগাছি করা : অযথা প্রশংসা করা

৪৫। আকাশ ধরা : বৃষ্টি বন্ধ হওয়া

৪৬। আকাশে থুতু ফেলা : নিজেরই ক্ষতি করা

৪৭। আক্কেলমন্ত/আক্কেলমন্দ : বিবেচনা করে এমন

৪৮। আখাম্বা : বেখাপ্পা

৪৯। আটকপালে : হতভাগ্য

৫০। আটখান করা/আটখানা করা : টুকরো টুকরো করা

৫১। আটাশে ছেলে : দুর্বল ছেলে

৫২। আঠারো আনা : বাড়াবাড়ি

৫৩। আঠারো মাসে বছর : দীর্ঘসূত্রতা

৫৪। আড়ংঘাটা : খেয়াঘাট

৫৫। আতান্তরে পড়া : বিপদে পড়া

৫৬। আতারিকাতারি : ছটফটে ভাব

৫৭। আদমের কাল : সুপ্রাচীনকাল

৫৮। আদায় কাঁচকলায় : শত্রুভাবাপন্ন

৫৯। আদার ব্যাপারি : সাধারণ লোক

৬০। আদাড়ের হাঁড়ি : সামান্য লোক

৬১। আমগন্ধি : কাঁচাগন্ধযুক্ত

৬২।  আমড়া কাঠের ঢেঁকি : অকেজো লোক

৬৩। আমি আমি করা : আত্মপ্রশংসা করা

৬৪। আয়োসুয়ো : সধবা নারীদের দল

৬৫। আর আর : অন্যান্য

৬৬। আলেয়ার আলো : দুর্লভ বস্তু

৬৭। আহ্লাদে ফুটকড়াই : হেসে কুটি কুটি

৬৮। আঁকুপাঁকু করা : ছটফটানি

৬৯। আঁচল ধরে বেড়ানো : ব্যক্তিত্বহীন

৭০। আকাট মূর্খ : নিরেট বোকা

৭১। আকাশ থেকে পড়া : অপ্রত্যাশিত

৭২। আকাশ পাতাল : বিশাল ব্যবধান

৭৩। আকাশের চাঁদ : দুর্লভ বস্তু

৭৪। আক্কেল গুড়ুম : হতবুদ্ধি হওয়া

৭৫। আগুনে ঘি ঢালা : রাগ বাড়ানো

৭৬। আক্কেল সেলামি : ভুলের মাসুল

৭৭। আহ্লাদি পুতুল : আদুরে অকর্মণ্য

৭৮। আকাশ কুসুম : অসম্ভব কল্পনা

৭৯। আঙুল ফুলে কলাগাছ : হঠাত্ বড়লোক

৮০। আদাজল খেয়ে লাগা : প্রাণপণ চেষ্টা করা

৮১। আমতা আমতা করা : ইতস্তত করা, দ্বিধা করা

৮২। আলালের ঘরের দুলাল : অতি আদুরে নষ্ট ছেলে

৮৩। আকাশে তোলা : অতিরিক্ত প্রশংসা করা

৮৪। আঁতে ঘা : প্রাণে আঘাত

৮৫। আদিখ্যেতা : ন্যাকামি

৮৬। আনাড়ি : অপটু, অনভিজ্ঞ

৮৭। আঁটকুড়ে : নিঃসন্তান

৮৮। ইন্দ্রপতন : বিখ্যাত ব্যক্তির মৃত্যু

৮৯। ইষ্টনাম জপা : স্রষ্টাকে স্মরণ

৯০। ইতুনিদকুঁড়ে : অলস

৯১। মগের মুল্লুক : বিশৃঙ্খল বা অরাজক অবস্থা

৯২। ইলশে গুঁড়ি : গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি

৯৩। ইঁদুর কপালে : মন্দভাগ্য

৯৪। ইতরবিশেষ : প্রভেদ বা পার্থক্য

৯৫। ঈদের চাঁদ : কাঙ্ক্ষিত বস্তু

৯৬। উড়ো কথা : গুজব

৯৭। উড়নচণ্ডী : উচ্ছৃঙ্খল

৯৮। উকর ধাকর : এলোপাতাড়ি

৯৯। উনিশ বিশ : সামান্য পার্থক্য

১০০। উজলপাঁজল : উথাল পাথাল

সংকলন : এম এম মুজাহিদ উদ্দীন

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা