kalerkantho

বুধবার । ২৪ আষাঢ় ১৪২৭। ৮ জুলাই ২০২০। ১৬ জিলকদ  ১৪৪১

সেপ্টেম্বরেই ২শ কোটি টিকা আনছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা, অর্ধেক অনগ্রসর দেশগুলোর

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ জুন, ২০২০ ১৩:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সেপ্টেম্বরেই ২শ কোটি টিকা আনছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা, অর্ধেক অনগ্রসর দেশগুলোর

করোনার প্রকোপে গোটা বিশ্ব এখন বিপর্যন্ত। এরই মধ্যে আশার বাণী নিয়ে আসলো  ব্রিটিশ-সুইডিশ ফার্মাসিউটিক্যাল কম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকা। খুব তাড়াতাড়ি ২শ কোটি ডোজ করোনার ভ্যাকসিন উৎপাদন ও বণ্টন করতে যাচ্ছে এই কম্পানি।  এর মধ্যে ৪০ কোটি ডোজ ভ্যাকসনি বরাদ্দ থাকছে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনের জন্য। আর নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশগুলোর জন্য থাকছে ১০০ কোটি ডোজ।

প্রায় ১০ হাজার  প্রাপ্ত বয়স্ক স্বেচ্ছাসেবীদের মধ্যে ড্রাগটি পরীক্ষা করছে। অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে এ পর্যন্ত এটি "নিরাপদ এবং সহনশীল"। ভ্যাকসিনটির নাম দেওয়া হয়েছে এজেডডি১২২২। আগামী সেপ্টেম্বর কিংবা অক্টোবরেই এগুলোর বণ্টন শুরু হবে।  প্রথমে পাবে যুক্তরাষ্ট্র এবং ব্রিটেন। এরপর নতুন বছরের শুরুতেই বিশ্বব্যাপী বণ্টন করা হবে এই ভ্যাকসিন। অ্যাস্ট্রজেনেকার সিইও প্যাসক্যাল সোরিয়েট বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের কাছে এ তথ্য জানান। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশগুলোর মধ্যে ১০০ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন বণ্টনের জন্য  এরই মধ্যে ভারতীয় কম্পানি সেরাম ইন্সটিটিউটের সঙ্গে একটি চুক্তি হয়েছে। বছরের শেষ দিকে ৪০ কোটি ডোজ হস্তান্তর করা হবে।

 এজেডডি১২২২ নামের ভ্যাকসিনটি তৈরির পিছনে কাজ করেছে ব্রিটেনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। ব্রিটেন-সুইডিশ কম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকা ফার্মাসিউটিক্যাল পার্টনার হিসেবে এই ভ্যাকসিন উৎপাদন ও বণ্টনের কাজ করছে। এটি ভ্যাকসিনটি কাজ করবে কিনা জানতে চাইলে অ্যাস্ট্রাজেনেকোর সিইও সোরিয়েট বলছেন, "ভ্যাকসিনটি কাজ করার বিষয়ে আমি বলব যে আমরা এখন পর্যন্ত যা দেখেছি তা থেকে আমাদের সকলের খুব ভাল আশা রয়েছে।  এরই মধ্যে একটি ডাটাবেস তৈরি করা হবে এবং ৫০ হাজারের বেশি স্বেচ্ছাসেবক ক্লিনিকাল ট্রায়ালে অংশ নেয়ার কথা রয়েছে।

সবশেষে সোরিয়েট বলেন, “আমরা বিশ্বাস করি যে আমরা সবচেয়ে কম আয়ের দেশগুলিতে, বিশেষত, বিশ্বজুড়ে কয়েক কোটি মানুষকে ভ্যাকসিনটি সরবরাহ করতে পারব।”

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা