kalerkantho


বায়োলজি অলিম্পিয়াড

চট্টগ্রামের ৭৯ শিক্ষার্থী জাতীয় পর্যায়ের জন্য নির্বাচিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



চট্টগ্রামের ৭৯

শিক্ষার্থী জাতীয়

পর্যায়ের জন্য

নির্বাচিত

গতকাল চট্টগ্রামে আঞ্চলিক জীববিজ্ঞান উৎসবে অতিথিরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

তিন স্তরের ৭৯২ জন শিক্ষার্থীর অংশ গ্রহণে শুক্রবার চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হলো ‘বায়োলজি অলিম্পিয়াড’। নগরীর নাসিরাবাদ শিল্প এলাকায় সাইডার ইন্টারন্যাশনাল স্কুল প্রাঙ্গনে আঞ্চলিক পর্যায়ের এই উৎসবের আয়োজন করা হয়। উৎসবের শেষ পর্বে ৭৯ শিক্ষার্থীকে জাতীয় পর্যায়ে অংশ গ্রহণের জন্য নির্বাচিত করা হয়।

চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত জীববিজ্ঞান উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপউপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাইডার ইন্টারন্যাশনাল স্কুল পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান নাদের খান।

অনুষ্ঠানে প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার বলেন, ‘জীবন নিয়ে যে বিজ্ঞান তাই জীববিজ্ঞান। জীববিজ্ঞান আজ অনেক দূর এগিয়েছে। চিকিৎসা বিদ্যায় এর অবদান অনেক। ’ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের জীব বিজ্ঞান অনুষদের সাবেক শিক্ষার্থী ও বর্তমানে প্রাণিবিজ্ঞানী সাজিদ হোসেনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘জীব বিজ্ঞানের ছাত্র থাকাকালে সাজিদ ব্যাঙের খোঁজে মত্ত থাকত। তখন সবাই তাকে নিয়ে হাসত। পরে সেই ছেলেটি অস্ট্রেলয়ায় গিয়ে ব্যাঙের নতুন প্রজাতি উদ্ভাবন করে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নাদের খান বলেন, ‘বায়োলজি অলিম্পিয়াড চট্টগ্রামে প্রথম। এতে করে আমরা নিজেদেরকে মূল্যায়ন করতে পারবো। ’

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আল্-ফোরকানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বায়োলজি অলিম্পিয়াডের আলোচনা পর্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ বায়োলজি অলিম্পিয়াডের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা আব্দুল হক, কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক অনিরুদ্ধ রামানিক, সাইডার ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের প্রিন্সিপাল জিসি ত্রিপাটি।

কালের কণ্ঠের সহাযোগিতায় অনুষ্ঠিত এবারের বায়োলজি অলিম্পিয়াডের প্রশ্নোত্তর পর্বে ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. কামরুল হুদাসহ প্রমুখ।


মন্তব্য