kalerkantho


বাংলা

সৃজনশীলের জন্য ১০টি গদ্য আর ১০টি পদ্য পড়তে হবে

বাংলা সিলেবাস

১৭ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



 সৃজনশীলের জন্য ১০টি গদ্য আর ১০টি পদ্য পড়তে হবে

লুত্ফা বেগম, সিনিয়র শিক্ষক, বিএএফ শাহীন কলেজ, কুর্মিটোলা, ঢাকা

পরীক্ষায় লিখিত অংশে ৭০, বহু নির্বাচনীতে ৩০। লিখিত অংশের প্রশ্নপত্রে থাকবে—সৃজনশীল প্রশ্ন (গদ্য ও কবিতা, ৪০ নম্বর), নির্মিতি অংশ (৩০)।

 

♦ সৃজনশীল অংশ :

♦ সৃজনশীল অংশে গদ্য থেকে ৮টি, পদ্য থেকে ৮টি ও ব্যাকরণ-বিরচন অংশ থেকে ১৪টি বহু নির্বাচনী প্রশ্ন মিলিয়ে মোট ৩০টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।

♦ এ বছর জেএসসি পরীক্ষার পাঠ্যসূচি থেকে ১টি গদ্য, ৩টি পদ্য ও আনন্দপাঠ সম্পূর্ণ বাদ পড়ায় তোমাদের শুধু ১০টি গদ্য ও ১০টি পদ্য পড়তে হচ্ছে। গদ্য অংশে ৫টি প্রবন্ধ, ৩টি গল্প, ১টি নাটিকা ও ১টি ভ্রমণকাহিনি রয়েছে।

♦ ক ও খ বিভাগের গদ্য ও কবিতা অংশ থেকে ৩টি করে মোট ৬টি প্রশ্ন থাকবে। প্রতিটি বিভাগ থেকে ২টি করে মোট ৪টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।

♦ কবিতা অংশে এবার তিনটি নতুন কবিতা সংযোজিত হয়েছে। প্রতিটি গদ্য-পদ্যের ‘পাঠের উদ্দেশ্য’ পড়লেই কোনটি কতটা গুরুত্বপূর্ণ—নিজেরাই বুঝতে পারবে। বিগত বছরের (২০১৭) নিজ নিজ বোর্ডের প্রশ্ন দেখলেও ধারণা হবে।

♦ সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর লেখার শুরুতেই যে বিভাগের উত্তর করতে চাও, সেই নাম আগে লিখবে। যেমন—

‘ক বিভাগ : গদ্য

... নম্বর প্রশ্নের উত্তর’

এক বিভাগের উত্তর লেখা শেষ করে অন্যান্য বিভাগের উত্তর লেখা শুরু করবে।

♦ সৃজনশীল প্রশ্নের উদ্দীপকগুলো পাঠ্য বাইয়ের নমুনা প্রশ্ন বা এর বাইরে থেকেও হতে পারে। এ ক্ষেত্রে বইয়ের গদ্য থেকে কয়েকটি বাক্যের উদ্দীপক দিয়ে পদ্যের প্রশ্ন আসতে পারে। একইভাবে পদ্যের কয়েক লাইন গদ্য প্রশ্নের উদ্দীপক হিসেবে আসতে পারে। এমনটি তখনই হবে, যখন গদ্য ও পদ্যের বিষয়বস্তু প্রায় একই ধরনের হবে। যেমন—স্বদেশ প্রেমমূলক গদ্য বা কবিতা একটি আরেকটির উদ্দীপক হতে পারে। এ ধরনের উত্তরে ভালো করতে হলে মূল বই, শব্দার্থ, টীকা পাঠ-পরিচিতি ও লেখক-কবি পরিচিতি জানা থাকতে হবে।

 

♦ নির্মিতি অংশ :

♦ নির্মিতি অংশে থাকছে সারাংশ/সারমর্ম, ভাব-সম্প্রসারণ, পত্র রচনা, ও প্রবন্ধ রচনা।

♦  সারাংশ/সারমর্মের উত্তরে বানান ও বাক্য গঠন নির্ভুল হলে পুরো নম্বর (৫) পাবে।

♦ ভাব-সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে ৫টি গদ্য ও ৫টি পদ্যের উদ্ধৃতি রয়েছে। এখানেও যেকোনো একটি অংশ ভালো করে পড়ে তিনটি প্যারায় (উপশিরোনাম—মূলভাব, সম্প্রসারিতভাব ও মন্তব্য/সিদ্ধান্ত) ঠিকঠাক লিখতে পারলে পুরো নম্বর তুলতে পারবে। তবে প্রশ্নের নম্বর দিয়ে উদ্ধৃত অংশটি অবশ্যই উত্তরপত্রে লিখতে হবে।

যেমন—‘সঙ্গ দোষে লোহা ভাসে’। উপশিরোনাম না লিখলেও তিনটি প্যারায় উত্তর করতে হবে।

কারণ প্রতিটি অংশের জন্য নম্বর ভাগ করা।

♦ ব্যক্তিগত পত্রের ক্ষেত্রে প্রশ্নপত্রে—

তোমার বা তোমার বন্ধু/ভাই/বোনের যে নাম ও স্থানের যে নাম থাকবে, সেটাই লিখতে হবে। আর চিঠি পাঠানোর জন্য খাম এঁকে প্রেরক ও প্রাপকের অংশে পূর্ণ ঠিকানা ও ‘ডাকটিকিট’ কথাটা ডানদিকে ওপরের কোণে লিখতে হবে। তারিখের ক্ষেত্রে পরীক্ষার দিনের তারিখ-সাল লিখতে পারো।

♦ আবেদনপত্রের ক্ষেত্রেও প্রশ্নপত্রে তোমার যে নাম, বিদ্যালয়ের নাম, রোল উল্লেখ থাকবে, সেটাই লিখতে হবে। এর জন্য ব্যাকরণ বইয়ের নির্মিতি অংশের আবেদনপত্র ও নিমন্ত্রণপত্রগুলো অনুশীলন করবে।

♦ চৌদ্দটি প্রবন্ধের মধ্য থেকে সংকেতসহ তিনটি রচনা থাকবে, যে রচনাগুলোতে উদ্ধৃতি উল্লেখ করার সুযোগ থাকবে, দেবে। তাহলে ভালো নম্বর তোলা সহজ হবে। বইয়ে একটি মাত্র বিজ্ঞানবিষয়ক রচনা। এ ধরনের রচনা পরীক্ষায় থাকে।

 

♦ বহু নির্বাচনী প্রশ্ন :

 

♦ বহু নির্বাচনীর ক্ষেত্রে পাঠ্যসূচির অন্তর্ভুক্ত গদ্য-পদ্য, ব্যাকরণ-বিরচন অংশের খুঁটিনাটি সবই পড়তে হবে।

 

♦ বিগত বছরগুলোর বিভিন্ন বোর্ডের নমুনা প্রশ্নগুলোও ভালো করে দেখবে। ব্যাকরণ অংশ থেকে এবার অনেক কিছুই বাদ গেছে। যেমন—৪.৩, ৪.৪, ৫.২, ৯.১, ৯.৩, ১০.১, ১০.৩ ইত্যাদি।

 

বাংলা সিলেবাস

গদ্য

১। অতিথির স্মৃতি

২। ভাব ও কাজ

৩। পড়ে পাওয়া

৪। তৈলচিত্রের ভূত

৫। এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম

৬। আমাদের লোকশিল্প

৭। সুখী মানুষ

৮। মংডুর পথে

৯। বাংলা নববর্ষ          

১০। বাংলা ভাষার জন্মকথা

 

কবিতা

১। মানবধর্ম

২। বঙ্গভূমির প্রতি

৩। দুই বিঘা জমি

৪। পাছে লোকে কিছু বলে

৫। প্রার্থনা

৬। বাবুরের মহত্ত্ব

৭। নারী

৮। আবার আসিব ফিরে

৯। রুপাই

১০। একুশের গান

 

সহপাঠ

পরীক্ষার সিলেবাসে আনন্দ পাঠ থেকে কোনো অধ্যায় বা গল্প নির্বাচন করা হয়নি।

 

বাংলা ব্যাকরণ অংশ

২৫টি পরিচ্ছেদ নির্বাচন করা হয়েছে—

১.১ ভাষা, ১.২ মাতৃভাষা ও রাষ্ট্রভাষা, ১.৩ সাধু ও চলিত ভাষারীতির পার্থক্য, ২.১ ধ্বনি ও বর্ণ, ২.২ ম-ফলা ও ব-ফলার উচ্চারণ, ৩.১ সন্ধি, ৩.২ বিসর্গ সন্ধি, ৪. শব্দ ও পদ, ৪.১ লিঙ্গান্তরের নিয়ম ও উদাহরণ, ৪.৫ ধাতু ও ক্রিয়াপদ, ৪.৬ মৌলিক ও সাধিত ধাতু, ৪.৮ ক্রিয়ার কাল, ৫.শব্দ গঠন ৫.১ ধ্বন্যাত্মক শব্দ, অনুকার শব্দ ও শব্দ দ্বৈত, ৬. বাক্য, ৬.১ বাক্য গঠনের শর্ত, ৬.২ খণ্ডবাক্য, স্বাধীন ও অধীন খণ্ডবাক্য, ৬.৩ সরল, জটিল ও যৌগিক বাক্যের গঠন, ৭. বিরামচিহ্ন, ৭.১ কমা, সেমিকোলন, কোলন ও হাইফেনের ব্যবহার, ৮. বানান, ৮.১ বানানের কয়েকটি সাধারণ নিয়ম, ১০. শব্দার্থ, ১০.২ সমার্থক শব্দ প্রয়োগে বাক্য রচনা, ১০.৪ বাগধারা।

 

নির্মিতি অংশ

পাঁচটি অধ্যায় নির্বাচন করা হয়েছে—

৩. সারাংশ, ৪. সারমর্ম,

 ৫. ভাব-সম্প্রসারণ, ৬. পত্র রচনা,

৭. প্রবন্ধ রচনা।

 



মন্তব্য