kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ফেসবুক অফলাইন

অনলাইনে মজার মজার গল্প, বুদ্ধিদীপ্ত কৌতুক, সাম্প্রতিক বিষয়-আশয় নিয়ে নিয়মিত স্টেটাস দিয়ে যাচ্ছেন পাঠক-লেখকরা। সেগুলোই সংগ্রহ করলেন ইমন মণ্ডল

১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



দাওয়াত

বান্ধবী ফোন করে বিয়ের দাওয়াত দিল। খুশির সংবাদ।

তবে কষ্ট পাইছি তখন, শেষে যখন বলল, ‘গার্লফ্রেন্ড হইছে? তাইলে নিয়ে আসতে পারো। জিএফ/বিএফ এলাওড। ’

►নাজমুল হোসেন

আপনি যদি নব্বইবার অপরাধ (sin) করেন, তাহলে আপনি পঁয়তাল্লিশবার কট (cot) হবেন, মানে ধরা খাবেন!

কারণ sin ৯০ = cot ৪৫। অনলি ত্রিকোণমিতি ইজ রিয়েল!

►অর্পণ দাশগুপ্ত

 

পাণ্ডুলিপি

এক লেখক এক প্রকাশকের কাছে উপন্যাসের পাণ্ডুলিপি নিয়ে গেলেন। প্রকাশক উল্টেপাল্টে দেখে ফেরত দিয়ে দিলেন। বছর দুয়েক পর লেখক আবার পাণ্ডুলিপি নিয়ে প্রকাশকের কাছে গেলেন। প্রকাশক দেখে বললেন, আরে এটা তো দুই বছর আগের পাণ্ডুলিপিটাই। ওটা আবার নিয়ে এসেছেন কেন? লেখক বললেন, না মানে দেখছিলাম আপনার জ্ঞানবুদ্ধি আগের মতোই আছে, না বেড়েছে?

►চঞ্চল ভৌমিক

 

 

জানতাম

এখন আমি রিলেশনশিপ স্টেটাস দিলে কেউ কেউ কমেন্ট করবে, ‘আমি আগে থেকেই জানতাম, আপনি রিলেশনে আছেন। ’

আবার যদি একটু পর স্টেটাস দিয়ে বলি, ওটা ফান ছিল বা মজা করে দিছিলাম।

তখন আবার তাদের মধ্যেই কেউ কেউ কমেন্ট করবে, ‘আমি আগেই জানতাম, তখনই বুঝছি এটা ফান ছিল, আপনি আর প্রেম; এটাও কি কখনো হয় নাকি!’

মানে আমার সম্পর্কে দুনিয়ার সব তারা জানে। এমনকি যেটা আমি নিজেও জানি না, সেটাও তারা জানে।

►নাজমুল হোসেন

কাজি পেয়ারা

যারা কাজি পেয়ারা মুখে দিয়ে বলেন—‘এহ্, একদম পানি’, তাদের প্রতি আমার বাণী—

দেখুন, কাজি পেয়ারাকে পানির সঙ্গে তুলনা করবেন না। কারণ পানির একটা স্বাদ আছে।

►ইকবাল খন্দকার

 

সাজ

বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় আগে দেখা যেত ঈদের সাজ কেমন হবে—এসব নিয়ে ফিচার থাকত। আজকাল পূজার সাজ নিয়েও ফিচার আসতেছে। ব্যাপার হলো—একটা পত্রিকায় সাজগোজের বর্ণনা দেওয়া এভাবে—

সপ্তমীর দিন ভোরে স্নিগ্ধ একটা স্নান সেরে এসে শরীরে ময়েশ্চারাইজার মেখে নিন। চুলে শ্যাম্পু করলে হালকা করে বাঁধুন। মুখে দুটো প্যাক লাগাতে ভুলবেন না। এরপর হালকা কোনো শাড়ি পরুন। হালকা লিপস্টিক দিন। নখে নেইল পলিশ লাগাতে ভুলবেন না। পায়ে আলতা দিতে পারেন। এরপর অঞ্জলি দিতে বের হোন।

সমস্যা হলো, এগুলো করতে করতে অঞ্জলির টাইম যে শেষ হয়ে যেতে পারে—এটা কিন্তু ফিচারে লিখেনি।

►রাজিব চৌধুরী

 

এক ভারতীয় আমেরিকা গেছেন। তো একদিন আমেরিকান এক ভদ্রলোকের সঙ্গে দুই দেশের পুলিশের কর্মক্ষমতা নিয়ে তর্ক হচ্ছিল। আমেরিকান ভদ্রলোক বলছিলেন, আমাদের দেশের পুলিশ অপরাধীকে তার করা অপরাধ এক ঘণ্টার মধ্যে স্বীকার করাতে সক্ষম। ভারতীয় বলল, আমাদের দেশের পুলিশ কেউ অপরাধ না করলেও আধা ঘণ্টার মধ্যে স্বীকার করাতে পারে সে অপরাধী।

►চঞ্চল ভৌমিক

 

লালশাক খাই না দেখে অনেকেই বলে, এটা খাইলে শরীরে রক্ত হয়, তাই বেশি বেশি খাইতে হয়!

আমার সরল উত্তর, লালশাক খাইলে যদি রক্ত হয়, তবে ডাক্তাররা রোগীদের শরীরে ব্যাগে ব্যাগে রক্ত না ভরে রোগীর আত্মীয়দের বলত, কয়েক আঁটি লালশাক নিয়ে আইসেন! আর হ্যাঁ, কেনার আগে অবশ্যই ‘ও নেগেটিভের’ লালশাক দেখে কিইনেন!

 

 

 

জীবন

‘জীবনটা কোনো গল্প-উপন্যাস নয়’—এই কথাটা বেশির ভাগ সময় গল্প-উপন্যাসের কোনো নায়কই বলে থাকে।

►মিকসেতু মিঠু

 

ওরাই ধনী

তারাই ধনী, যাদের দুটি কিডনি থাকার পরও একটা iPhone7 আছে!

►শাকির আহসানুল্লাহ

 

ঠাণ্ডা

 

: তোমার কি কোনো সর্দি-কাশিজনিত সমস্যা আছে?

: না তো।

: ঠাণ্ডা জিনিসে কি কোনো অনীহা আছে?

: না তো। বরং এই গরমে ঠাণ্ডা কিছু খেতে ভালোই লাগে!

: তাহলে তো তোমাকে দেওয়াই যায়।

: অবশ্যই! এক্ষুনি পাঠিয়ে দাও। আমি খাওয়ার জন্য পাটি পেতে বসে আছি!

: পাটিতে বসে থাকার দরকার নেই। তোমাকে দিচ্ছি ঈদের ঠাণ্ডা শুভেচ্ছা। ব্যস্ততার কারণে এত দিন যা গরম গরম দিতে পারিনি!

 

►মাহদী হাসান লিখন

 

 

বিয়া কইরা বউকে খাওয়াবি কী?

এই প্রশ্নটি এত ব্যাপক হয়ে গেছে যে মনে হয় পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ খাদক হলো বউ।

►সিয়াম নাসির

 

বউ

ও রে! বউ কখনো মনের মতো হয় না রে, নিজেকেই বউয়ের মনের মতো হতে হয়!

►এমডি ইমরান আহমেদ

 

মিথ্যা বলা

মানুষ সবচেয়ে বেশি মিথ্যা কথা বলে বিপদে, নয়তো প্রেমে পড়লে! অতএব, প্রেম মানেই বিপদ, আর বিপদ মানেই প্রেম! (প্রমাণিত)

►সুমন আহমেদ

 

অতিসামাজিক প্রাণী

 

এক শ্রেণির মানুষ নিয়ে খুবই বিব্রতবোধ করি। এদের আমি ‘অতিসামাজিক’ প্রাণী বলি। কোনো অনুষ্ঠানে পরিচয়। ফেসবুক আইডি বিনিময়। দুই দিনের চ্যাটাচ্যাটির মাথায় জিজ্ঞেস করে বসে—রাতে কোন কালারের লুঙি পরে ঘুমাতে গেছেন? অথবা কতবেলে বিট লবণ খান কি না? দুনিয়ার যাবতীয় অতি ব্যক্তিগত বিষয়ে তাদের নাকগুলো মোমবাতির মতো গলতে থাকে। কেন ভাই? নেহাত ব্যক্তিগত বিষয় জানা ছাড়া কি আপন হওয়া যায় না? আপন হতে হলে লুঙ্গির গিট্টুতে কয় প্যাঁচ দিয়েছি, সেটা জানা জরুরি?

এতক্ষণ যাদের কথা বললাম, তারা মৌলিক অতিসামাজিক প্রাণী। আরেক শ্রেণি আছে। এরা যৌগিক অতিসামাজিক প্রাণী। তারা হলো আমারই পরিচিত। কোনো অনুষ্ঠানে বা আড্ডায় তাদের নিয়ে যাই। নতুন মানুষের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিই। তারপর তারা সেই নতুন মানুষের সঙ্গে বিক্রিয়া করে নতুন একটি সম্পর্ক তৈরি করে। আমার সঙ্গের পুরনো মৌলিক সম্পর্কের অস্তিত্বই ভুলে যায়। তাদের দুই দিনের পরিচয় দেখে টয়লেটে বসে চাপাস্বরে গেয়ে উঠি—তোমায় দেখলে মনে হয়/হাজার বছর তোমার সাথে ছিল পরিচয়।

এই যৌগিক শ্রেণিকে কোথাও কোনো আড্ডায় নিয়ে যেতে শঙ্কাবোধ করি। কারণ জানি এই প্রাণী দুই দিন বাদেই নতুন সার্কেলের সবার আইডিতে গিয়ে লিখে আসবে—কী রে হালার ভাই, ভুইলা গেছোস। অথবা কত দিন দেখা হয় না মিস ইউ কলিজারা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ওপর নির্ভরশীলতার এই যুগে ‘অতিসামাজিক’ প্রাণীগুলোকে আমি সতর্কতার সঙ্গে দেখি। মাঝেমধ্যে ‘অসামাজিক’ শব্দটাকে প্রশংসার মতো লাগে। অসামাজিকরা অন্তত অতিসামাজিকদের মতো একজনের তথ্য আরেকজনের কাছে বিলিয়ে বেড়ায় না। এরা শরীরের নিরীহ তিলের মতো। চুপচাপ পড়ে থাকে নির্দিষ্ট স্থানে। অপরদিকে, অতিসামাজিকরা হলো চুলকানির মতো। প্রথম প্রথম চুলকাতে খুব ভাল্লাগে। পরে ঘা হয়ে ছড়িয়ে যায় নানা স্থানে। আজই আপনার শিশুকে ‘অতিসামাজিক’ রোগের টিকা দিন। সমাজকে রোগমুক্ত রাখুন।

►আল নাহিয়ান


মন্তব্য