kalerkantho


আপেলের জন্য হাত-পা বেধে শিশুকে নির্যাতন

নাটোর প্রতিনিধি    

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২১:২৫



আপেলের জন্য হাত-পা বেধে শিশুকে নির্যাতন

নাটোরের গুরুদাসপুরে পেটের ক্ষুধা নিবারণের জন্য একটি আপেল চুরি করে খাওয়ায় সাইদুল নামে ১০ বছরের একটি শিশুকে হাত-পা বেধে নির্যাতন করার অভিযোগ করা হয়েছে। আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নাটোরের গুরুদাসপুরের চাঁচকৈড় মার্কাজ মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতিত সাইদুল গুরুদাসপুর উপজেলার মশিন্দা ইউনিয়নের জাকিরের মোড় এলাকার কৃষি শ্রমিক আবদুল মিয়ার ছেলে। দুই ভাই ও দুই বোনের মধ্যে তৃতীয় সে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, চাঁচকৈড় বাজারে হানিফের ফলের দোকান থেকে সাইদুল একটি আপেল নিয়ে দৌড় দেয়। এতে  ফলের দোকানদার হানিফ ও তাঁর সহযোগী সিএনজিচালক পিন্টু এবং মাইক্রোবাসের চালক মজনু শিশুটিকে ধরে ফেলেন। এক পর্যায়ে নাইলনের দড়ি দিয়ে তার হাত-পা বেঁধে তাকে মারধর করা হয়।  

শিশু সাইদুল জানায়, সকালে সে কিছু না খেয়েই বাড়ি থেকে বের হয়েছিল। খিদে যন্ত্রণায় সে আপেলটি চুরি করেছিল। অনেক কান্নাকাটি, আকুতি জানানোর পরও তাঁরা ছাড়েনি।  

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে গুরুদাসপুর থানার উপপরিদর্শক(এসআই) আজম আলী বলেন, আপেলের দোকানের পাশে গ্রিলের সাথে রশি দিয়ে শিশুটির হাত-পা বাঁধা ছিল।

বেলা ২টার দিকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি।  

তবে গুরুদাসপুর থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) সুব্রত কুমার মাহাতো বলেন, শিশুটি এখন থানা হেফাজতে আছে। শিশুটির বোন আজেদা বেগম থানায় এসেছেন। তারা যদি অভিযোগ দেয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য