kalerkantho

বুধবার । ১৭ জুলাই ২০১৯। ২ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৩ জিলকদ ১৪৪০

বিশ্বকাপ কর্নার

১২ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিশ্বকাপ কর্নার

ম্যাকগ্রাকে ছাড়িয়ে স্টার্ক

 

গ্লেন ম্যাকগ্রার পাশে আগেই বসেছিলেন মিচেল স্টার্ক। গতকাল সেমিফাইনালে জনি বেয়ারস্টোকে আউট করে ছাড়িয়েও গেছেন স্বদেশি কিংবদন্তিকে। বিশ্বকাপের একটি নির্দিষ্ট আসরে সর্বোচ্চ উইকেট নেওয়ার কীর্তিটা এখন অস্ট্রেলিয়ার এই পেসারের। সব মিলিয়ে শিকার সংখ্যা ২৭। ২০০৭ সালে উইন্ডিজ আসরে ২৬ উইকেট নিয়েছিলেন ম্যাকগ্রা।

ধোনির জন্য লতা

মহেন্দ্র সিং ধোনি রান আউট না হলেও ম্যাচটি জেতাতে পারতেন কি না সংশয় আছে। এই বিশ্বকাপে ফুরিয়ে যাওয়া এক ধোনিকেই দেখা গেছে। বিশ্বকাপ থেকে এমন বিদায়ের পর ধোনিও যে ক্রিকেট ছাড়ছেন—এমন অনুমান সবার। তবে ভারতের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক এমনটা যেন না করেন, তেমন চাওয়া লোকেরও অভাব নেই। কিংবদন্তি লতা মুঙ্গেশকরই যেমন ধোনিকে উদ্দেশ করে টুইট করেছেন তিনি যেন খেলা না ছাড়েন। হিন্দিতে লিখেছেন লতা, যার বাংলাটা এমন, ‘নমস্কার এম এস ধোনিজি, শুনছি তুমি ক্রিকেট ছাড়তে চাইছ। দয়া করে এমনটা করো না। দেশ তোমার কাছ থেকে এখনো অনেক কিছু পেতে পারে। তাই আমার চাওয়া অবসরের চিন্তা মাথায়ই যেন না আনো তুমি।’ কিংবদন্তি শিল্পী ক্রিকেট অনুরাগী ভীষণ, তিনি যে ধোনিভক্তও—নতুন করে সেটিই জানা গেল। টাইমস অব ইন্ডিয়া

 

লর্ডস তবু নীল!

লর্ডসে ফাইনালের সব টিকিট এরই মধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে। বলার অপেক্ষা রাখে না, ক্রেতাদের সিংহভাগই ভারতীয়। কিন্তু ম্যানচেস্টার থেকেই বিদায় নিয়েছে বিরাট কোহলির দল। তার মানে কি লর্ডস ফাঁকা থাকবে ফাইনালের দিন। এখনো পর্যন্ত যেমন আভাস তাতে মনে হচ্ছে নিজের দল না থাকলেও ফাইনাল উপভোগ থেকে বঞ্চিত হতে চাইছে না ভারতীয়রা। আইসিসির টিকিটিং সেলের সূত্রমতে, কেনা টিকিট এখনো সেভাবে কেউ বিক্রি করে দিচ্ছে না। ‘রিসেল’ প্ল্যাটফর্মে বরং টিকিট প্রত্যাশীদেরই ভিড় বেশি। ভারতীয় দর্শকদের বেশির ভাগই ইংল্যান্ডের নাগরিকত্ব নিয়ে নিয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, ফাইনালে থ্রি লায়ন্সের জন্যই গলা ফাটাবে তারা। কাল সেমিফাইনালের শুরুটাও তো হয়েছে ইংল্যান্ডের ফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে। পিটিআই

এটা যেন অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিংয়ের প্রতীকী ছবি। জোফ্রা আর্চারের বাউন্সারে হেলমেট উড়ে গেল অ্যালেক্স ক্যারির। ইংলিশ পেসারদের সামনে এভাবেই এলোমেলো হয়ে গেছে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং লাইন।

মন্তব্য