kalerkantho

সোমবার । ১৪ মাঘ ১৪২৮। ১৭ জানুয়ারি ২০২২। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

♦ গ্রুপ-এ
♦ শ্রীলঙ্কা ♦ আয়ারল্যান্ড ♦ নেদারল্যান্ডস

নামিবিয়া

টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিং : ১৯

১৭ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নামিবিয়া

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এবারই প্রথম অংশ নিচ্ছে নামিবিয়া। ২০১৯ সালের অক্টোবরে দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত বাছাইয়ের প্লে-অফে ওমানকে হারিয়ে তারা বিশ্বকাপের টিকিট কাটে। আফ্রিকান আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়ন হয়ে কোয়ালিফায়ারে জায়গা করে নেয় তারা। কিন্তু নেদারল্যান্ডস ও পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে হারে বড্ড বিবর্ণ হয়ে ওঠে বিশ্বকাপের স্বপ্ন। দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ার পর দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে টানা পাঁচ জয়ে বাস্তব করে তোলে বিশ্বকাপের স্বপ্ন। অংশ নেওয়া ১৬ দলের মধ্যে সবার পেছনে অবস্থান আফ্রিকার দেশটির। তাই গায়ে লাগানো ‘আন্ডারডগে’র তকমা। তবে এটা দেখে নামিবিয়াকে খাটো করে না দেখতে প্রতিপক্ষকে হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন এরাসমুস। নামিবিয়ান অধিনায়কের চোখ তো সুপার টুয়েলভেও, ‘আমরা যদি সবাই নিজেদের দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করতে পারি। গ্রুপ পর্বে ওঠার মতো রসদ ও দক্ষতা নিঃসন্দেহে আমাদের আছে।’ তবু কাজটা মোটেও সহজ হবে না। গ্রুপে তাদের সঙ্গী সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কার পাশাপাশি নেদারল্যান্ডস ও আয়ারল্যান্ড।

 

সেরা তারকা

গেরহার্ড এরাসমুস

দলের প্রাণভোমরা। ব্যাটিং অর্ডারেরও মেরুদণ্ড। পরিস্থিতি অনুযায়ী ব্যাটিং করতে দারুণ পারঙ্গম। ঠাণ্ডা মাথায় ইনিংসের ইমারত গড়ায় সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে পারেন। আবার ব্যাটে ঝড় তুলে সেই তাণ্ডবে প্রতিপক্ষকে দুমড়েমুচড়ে দিতেও পারেন গেরহার্ড এরাসমুস। বিশ্বকাপ বাছাইয়ে সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে বড় জয়ে এক ওভারে ২৯ রান নেওয়ার পথে চার-চারটি ছক্কা মেরেছেন। এরপর আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ঝোড়ো হাফসেঞ্চুরিতেও চিনিয়েছেন নিজের জাত। ও হ্যাঁ, এরাসমুসের অফ স্পিনটাও কিন্তু বেশ কার্যকর। তা ছাড়া দলের সেরা ফিল্ডারও তিনি।

 

কোচ

পিয়েরি ডি ব্রুইন

দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটার। ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে দায়িত্ব নেন নামিবিয়ার। প্রথম দায়িত্বেই আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগের ডিভিশন টু জিতিয়ে দেশটিকে এনে দিয়েছেন ওয়ানডে স্ট্যাটাস। তাঁর কোচিংয়ে প্রথমবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও খেলছে নামিবিয়া।

 

স্কোয়াড

গেরহার্ড এরাসমুস (অধিনায়ক), স্টেফান বার্ড, কার্ল বিরকেনস্টোক, মিকাউ ডু প্রিজ, ইয়ান ফ্রাইলিংক, জেন গ্রিন, নিকোল লফটি-ইটন, বার্নার্ড স্কোলজ, বেন শিকোংগো, জোনাথন স্মিট, রুবেন ট্রম্পালমান, মিশেল ভ্যান লিনগেন,  ডেভিড ওয়াইজ, ক্রেগ উইলিয়ামস ও পিকি ইয়া ফ্রান্স।

 

পারফরম্যান্স

বিশ্বকাপে প্রথমবার

 

পরিসংখ্যান

♦ ২২ টি-টোয়েন্টিতে তাদের জয় ১৮টি, হার ৪টি।

♦ গেরহার্ড এরাসমুস খেলেছেন ২২টি ম্যাচই। সর্বোচ্চ ৫২২ রানও তাঁর।



সাতদিনের সেরা