kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

♦ গ্রুপ-২
♦ পাকিস্তান ♦ আফগানিস্তান ♦ নিউজিল্যান্ড ♦ বি-১ ♦ এ-২

ভারত

টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিং : ২

১৭ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভারত

টি-টোয়েন্টি তরুণদেরই খেলা। তবে শুধু তরুণরাই যে বিশ্বকাপ জেতাতে পারবে না, ভালোই জানা ভারতের। তাই রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে পাঁচ বছর পর বিশ্বকাপের দলে ফিরিয়েছে তারা। মেন্টর হিসেবে নিয়ে এসেছে মহেন্দ্র সিং ধোনিকে। ধোনির ঠাণ্ডা মাথাটা কাজে লাগাতে চায় ভারত। আইপিএলের পরের অংশটা আরব আমিরাতে হওয়ায় দলের সবাই মানিয়ে নিয়েছেন কন্ডিশনের সঙ্গে। লোকেশ রাহুল, রোহিত শর্মারা যেমন রানের মধ্যে আছেন; তেমনি জাসপ্রিত বুমরাহ, মোহাম্মদ সামিরা বল হাতে আছেন ছন্দে। জয়ের ধারায় বিরাট কোহলির দলও। র‌্যাংকিংয়ে দুইয়ে থাকা ভারত দ্বিতীয় সারির দল পাঠিয়ে শ্রীলঙ্কায় সিরিজ হেরেছিল ২-১-এ। এর আগে ইংল্যান্ডকে ৩-২ আর অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে ২-১ ব্যবধানে। এমনকি নিউজিল্যান্ডের মাটিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে জয় ছিল তিনটি, অন্য দুই ম্যাচ হয়েছিল টাই। এমন একটা দলকে নিয়ে বাজি ধরাই যায়। গত বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ড্যারেন সামিও এগিয়ে রাখছেন কোহলির দলকে, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে এবার হয়তো ভারতই ফাইনাল খেলবে।’

 

সেরা তারকা

বিরাট কোহলি

গত বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে বিরাট কোহলির ৪৭ বলে ৮৯* রানের বিস্ফোরণ। এর পরও ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে হেরে বসে ভারত। এত দিনে কোহলি পরিণত হয়েছেন আরো। তিন ফরম্যাটে একই ছন্দে বিশ্বকাপের পরই ছাড়বেন টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব। তবে নেতা নয় বিপক্ষ ভয় করেন ব্যাটার কোহলিকেই। তাঁর সর্বশেষ ছয়টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ইনিংস ৮৫, ০, ৭৩*, ৭৭*, ১ ও ৮০*। আউটই হননি শেষ চার ম্যাচের তিনটিতে। ইংল্যান্ড আর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজও নিশ্চিত হয়েছিল তাতে। এবার বিশ্বকাপে ঝড় তোলার অপেক্ষায় কোহলি।

 

কোচ

রবি শাস্ত্রী

বিশ্বকাপ পর্যন্তই চুক্তি রবি শাস্ত্রীর। ২০১৭ সালে কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর দ্বিপক্ষীয় সিরিজে সফল হলেও কোনো আইসিসি টুর্নামেন্টের শিরোপা জেতা হয়নি ভারতের। অথচ শাস্ত্রীর বছরে বেতন আট কোটি রুপি। সফল না হলে বিশ্বকাপের পরে তাঁর চুক্তির মেয়াদ বাড়বে না আর।

 

স্কোয়াড

বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), রোহিত শর্মা, লোকেশ রাহুল, সূর্যকুমার যাদব, ঋষভ পান্ট, ইশান কিষান, হার্দিক পাণ্ডে, রবীন্দ্র জাদেজা, রাহুল চাহার, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, শার্দূল ঠাকুর, বরুণ চক্রবর্তী, জাসপ্রিত বুমরাহ, ভুবনেশ্বর কুমার ও মোহাম্মদ সামি।

 

পারফরম্যান্স

২০০৭ :    চ্যাম্পিয়ন

২০০৯ :    সুপার এইট

২০১০ :    সুপার এইট

২০১২ :    সুপার এইট

২০১৪ :    রানার্সআপ

২০১৬ :    সেমিফাইনাল

 

পরিসংখ্যান

♦ ৩৩ ম্যাচে জয় ২০, হার ১১, টাই এক আর ফল হয়নি এক ম্যাচে। সাফল্যের হার ৬৪.০৬ শতাংশ।

♦ বিরাট কোহলির রান সর্বোচ্চ ৭৭৭ আর সবচেয়ে বেশি ২০ উইকেট রবিচন্দ্রন অশ্বিনের।



সাতদিনের সেরা