kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

♦ গ্রুপ-১
♦ অস্ট্রেলিয়া ♦ ইংল্যান্ড ♦ দক্ষিণ আফ্রিকা ♦ এ-১ ♦ বি-২

ওয়েস্ট ইন্ডিজ

টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিং : ৯

১৭ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ওয়েস্ট ইন্ডিজ

বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সবচেয়ে সফল দলও। ছয় আসরে দুইবার ফাইনাল খেলে দুইবারই করেছে শিরোপা উৎসব। ২০১২ সালে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে হতাশায় ডুবিয়ে প্রথমবার ক্যারিবীয়দের বিশ্বজয়ের আনন্দে ভাসান ড্যারেন সামির দল। চার বছর পর ড্যারেন সামির নেতৃত্বেই ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দ্বিতীয়বার বিশ্বকাপ জেতে ক্যারিবীয়রা। ইডেন গার্ডেনসের ফাইনালের শেষ ওভারে টানা চারটি ছক্কা মেরে ইংল্যান্ডের হাতের মুঠো থেকে ক্যারিবীয়দের শিরোপা এনে দিয়ে বিশ্বক্রিকেটে নতুন তারকা হিসেবে আবির্ভূত হন ক্রেগ ব্রাথওয়েট।

সেই জয়ের নায়ক ব্রাথওয়েট এবার নেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলেই। জায়গা পাননি সদ্যঃসমাপ্ত আইপিএলে নজরকাড়া পারফরম্যান্স দেখানো সুনীল নারিনও। ক্যারিবীয়রা র‌্যাংকিংয়েও পিছিয়ে এখন ৯ নম্বরে। সব কিছুর পরও বিশ্বকাপ জয়ে তারা এবারও অন্যতম ফেভারিট। বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে আলো ছড়ানো একঝাঁক টি-টোয়েন্টি বিশেষজ্ঞের উপস্থিতি শিরোপার অন্যতম দাবিদার হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছে ক্যারিবীয়দের।

 

সেরা তারকা

ক্রিস গেইল

স্বঘোষিত ‘ইউনিভার্স বস’! একজন বিধ্বংসী ব্যাটার। টি-টোয়েন্টির ধুমধাড়াক্কা ব্যাটিংয়ের বড় বিজ্ঞাপন। ছক্কা মারায় তাঁর জুড়ি মেলা ভার। প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ১০০০ ছক্কা, প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ১০ হাজার রানের মাইলফলক ছোঁয়া, দ্রুততম সেঞ্চুরি ও হাফসেঞ্চুরি এবং সর্বোচ্চ রানের ইনিংস—টি-টোয়েন্টিতে এমন অনেক বর্ণিল রেকর্ডের মালিক গেইল। ক্যারিয়ারের পড়ন্ত বেলায় দাঁড়িয়েও নিজের দিনে যেকোনো বোলারকে করতে পারেন কচুকাটা। এখনো তাই টি-টোয়েন্টি ব্যাটিংয়ের অন্যতম বিনোদনের নাম গেইল। 

 

কোচ

ফিল সিমনস

তাঁর কোচিংয়েই ২০১৬ সালে দ্বিতীয়বার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এরপর আফগানিস্তানের চাকরি করে ২০১৯ সালে আবার দায়িত্ব পেয়েছেন ক্যারিবীয়দের। সিমনস কি পারবেন সোনালি অতীত ফিরিয়ে এনে দেশটিকে তৃতীয়বার বিশ্বজয়ের আনন্দে ভাসাতে!

 

স্কোয়াড

কিয়েরন পোলার্ড (অধিনায়ক), নিকোলাস পুরান, ফাবিয়েন অ্যালেন, ডোয়াইন ব্রাভো, রোস্টন চেস, অ্যান্ড্রু ফ্লেচার, ক্রিস গেইল, শিমরন হেটমায়ার, এভিন লুইস, ওবেদ ম্যাককয়, রবি রামপল, আন্দ্রে রাসেল, লেন্ডল সিমনস, ওশানে থোমাস এবং হেইডেন ওয়ালশ (জুনিয়র)।

 

পারফরম্যান্স

২০০৭ :    গ্রুপ পর্ব

২০০৯ :    সেমিফাইনাল

২০১০ :    সুপার এইট

২০১২ :    চ্যাম্পিয়ন

২০১৪ :    সেমিফাইনাল

২০১৬ :    চ্যাম্পিয়ন

 

পরিসংখ্যান

♦ ৩১ ম্যাচে জয় ১৭ হার ১২, টাই ১টি এবং ফল হয়নি ১টিতে। সাফল্যের হার ৫৮.৩৩ শতাংশ।

♦ সর্বোচ্চ ৯২০ রান ক্রিস গেইলের। সর্বোচ্চ ২৫ উইকেট ডোয়াইন ব্রাভোর।



সাতদিনের সেরা