kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ ডিসেম্বর ২০২২ । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

[ কার্যকারণ ]

কাঁদলে চোখের পানি পড়ে কেন?

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কাঁদলে চোখের পানি পড়ে কেন?

ছবি : কাকলী প্রধান

কাঁদলে চোখ দিয়ে পানি পড়বে, এমনটাই তো হওয়ার কথা। কিন্তু বিজ্ঞানীরা বড় খুঁতখুঁতে। তাঁরা একেবারে চোখে আতশ কাচ রেখে বের করে আনতে চান, পানিটা আসে কোথা থেকে। এমনিতে কান্না আসার এক শটা কারণ থাকতে পারে।

বিজ্ঞাপন

মা-বাবা বকা দিল, হাত থেকে আধখাওয়া চকোলেটটা পড়ে গেল, পড়ে গিয়ে ছিলে গেল হাঁটুর চামড়া; অমনি শুরু হয়ে যায় ভ্যা...। কিন্তু এই কান্নাকাটির সঙ্গে পানির সম্পর্ক কী?

সব চোখের পানিই আসলে দুটি জিনিস দিয়ে তৈরি—পানি আর এক ধরনের তেল। কান্না শুরু হলে আমাদের মগজে এক ধরনের সংকেত পৌঁছে। তখন মগজটা ব্যস্ত হয়ে পড়ে চোখকে ‘বাঁচানো’ নিয়ে। চোখের পানি হলো সেই বাঁচানোর ওষুধ।

প্রথমত, চোখের পানি চোখ পরিষ্কার করে। পানিটা যাতে সহজে বাষ্প হয়ে উবে যেতে না পারে এ জন্য এর মধ্যে কিছুটা তেলও মেশানো থাকে। আবার পানিটা যাতে চোখের ভেতর সব জায়গায় সমানভাবে গড়িয়ে যেতে পারে সে জন্য এতে থাকে অল্প পরিমাণ মিউকাস। সেই মিউকাসে মেশানো থাকে অ্যান্টিবডি ও বিশেষ কিছু প্রোটিন। ওই প্রোটিন আবার চোখে সংক্রমণ ঠেকাতেও কাজ করে। এসব মিলিয়েই চোখের পানিকে বলা চলে এক মহা রক্ষাকবচ।

চোখের পানির কাজ এখানেই শেষ নয়। এই পানিতে দ্রবীভূত থাকে কিছু পুষ্টিকর উপাদান ও অক্সিজেন। চোখের ভেতর রক্তনালি থাকে না বলে এই উপাদানগুলো বেশ উপকারে আসে। এদিকে বিজ্ঞানীরা আবার জানালেন, চোখের পানিরও আছে রকমফের। তিন রকম অশ্রু আছে। প্রথমটার নাম ব্যাসাল টিয়ারস। এই পানিটা সারাক্ষণই আমাদের চোখে থাকে, যার কারণে আমাদের অনেকের চোখ টলমল করে। এই পানিটাই আমাদের চোখকে নানা ধরনের সংক্রমণ ও রোগ-জীবাণু থেকে বাঁচায়। এই অশ্রুটা আবার আমাদের চোখের দৃষ্টিশক্তি ঠিক রাখা ও ফোকাস ঠিক রাখতেও সাহায্য করে।

আইওয়াশ টিয়ারস নামের আরেক ধরনের অশ্রু আছে, যা ভ্রুর ওপর থাকে। পেঁয়াজের ঝাঁজের কারণে যে চোখের পানি বের হয় এটাই সে। চোখে অযাচিত কিছু পড়লে বা ঝাঁজালো বস্তুর উপস্থিত দূর করে এই পানি। শরীরের ব্যথার কান্না আর মন খারাপের কান্না আবার দুই রকম। মন খারাপের কান্নার পানিতে বাড়তি করে মেশানো থাকে কিছু হরমোন (যা আমাদের মন ভালো-খারাপের সঙ্গে জড়িত) ও প্রাকৃতিক ব্যথানাশক।

এদিকে গবেষকরা আরো বললেন, চোখ দিয়ে খুব বেশি পানি বের হওয়া যেমন ভালো না, তেমনি একেবারে শুকনা থাকাও বিপদের কথা। এমনটা হলে যেতে হবে চোখের ডাক্তারের কাছে।

নূসরাত জাহান



সাতদিনের সেরা