kalerkantho

সোমবার । ৭ আষাঢ় ১৪২৮। ২১ জুন ২০২১। ৯ জিলকদ ১৪৪২

বাঘের মুখে ছাগলের ডাক

শেখ সাওয়া আস সাবিল, তৃতীয় শ্রেণি, ফেনী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

১১ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এক জঙ্গলে একটি বাঘের ছানা বসে বসে কাঁদছিল। তার বয়স মাত্র তিন মাস। মা-বাবা, ভাই-বোন কেউ নেই তার। তাই মায়ের দুধ পান করতে না পেরে যায় যায় অবস্থা। একসময় কিছু লোক জঙ্গলে শিকার করতে এলো। ছানাটিকে দেখে তাদের মায়া হলো। তারা বাঘছানাটিকে নিজেদের ঘরে নিয়ে এলো। বাঘছানাটি তখন ক্ষুধায় অস্থির। মানুষগুলো বুঝতে পারছিল না তাকে কী খাওয়াবে। তাদের দুটি ছাগল ছিল। তার মধ্যে একটি ছাগল দুধ দেয়। একসময় তারা বুদ্ধি বের করল, ফিডারে ভরে ছাগলের দুধ নিয়ে বাঘছানাকে খাওয়ালে কেমন হয়। যেই কথা সেই কাজ। তারা ফিডারে ভরে ছাগলের দুধ খাইয়ে দিল বাঘছানাটিকে। অনেক দিন পর খাবার পেয়ে বাঘছানা তৃপ্তিভরে খেল। খাওয়া শেষে তাদের ছোট ছেলে-মেয়ের সঙ্গে খেলাধুলা শুরু করল। এই খবর টিভিতেও প্রচার হলো। এভাবেই চলছিল। কিন্তু দেখা গেল বড় হতে হতে বাঘছানাটি ছাগলের মতো ভীতু হচ্ছে! গর্জন করতে গেলে ছাগলের ডাকের মতো শব্দ হয়। সে যখন বড় হলো তাকে জঙ্গলে ছেড়ে দিয়ে আসা হলো।  বনে যখন ছোটবেলার কথা অন্যান্য বাঘকে বলল, তখন তারা তাকে ছাগলছানা বলে খেপাত। শুনে মন খারাপ হতো। কিন্তু বাঘটি পরে আর কোনো মানুষের ক্ষতি করেনি।